বাজেয়াপ্ত


বাজেয়াপ্ত
২৭ আগস্ট, ২০২১
“স্বাধীনতা হারাইয়া আমরা যখন আত্মশক্তিতে অবিশ্বাসী হইয়া পড়িলাম এবং আকাশমুখো হইয়া কোন অজানা পাষাণ দেবতাকে লক্ষ্য করিয়া কেবলি কান্না জুড়িয়া দিলাম; তখন কবির কণ্ঠে আকাশবাণী দৈববাণীর মতোই দিকে দিকে বিঘোষিত হইল, ‘গেছে দেশ দুঃখ নাই, আবার তোরা মানুষ হ'। বাস্তুবিক আজ আমরা অধীন হইয়ছি বলিয়া চিরকালই যে অধীন হইয়া থাকিব, এরূপ কোনো কথা নাই। কাহাকেও কেহ কখনো চিরদিন অধীন করিয়া রাখিতে পারে নাই ইহা প্রকৃতির নিয়ম বিরুদ্ধ” (যুগবাণী: নজরুল)। অধীনতা মেনে নেওয়া নজরুল জীবনে ছিল অকল্পনীয়। বাল্য থেকেই স্বাধীনচেতা মনোভাব তাকে সাহসী, ব্রতী, সংগ্রামী, লড়াকু, দৃঢ় মনোবলের অধিকারী করেছে। জন্মেছিলেন পরাধীন দেশে। উপনিবেশ শাসনের ভেতর দেখেছেন শোষিত, বঞ্চিত পরাধীন এক জাতিকে। এক আত্মগরিমাহীন জাতি ক্ষয়িষ্ণু, দারিদ্র্য আর অশিক্ষা, কুসংস্কারে তলিয়ে যাচ্ছে। ১৮৯৯ সালে রাঢ়বঙ্গে জন্ম নেওয়া কাজী নজরুল ইসলাম শৈশবেই মুখোমুখি হয়েছেন দারিদ্র্যের। নামতে হয়েছে রোজগারে। শিশু শ্রমিক থেকে কিশোর শ্রমিক জীবনের মাঝে শিক্ষার আগ্রহ থেকে দূরবর্তী হননি। দশম শ্রেণির ছাত্র যখন, তখনই স্বাধীনচেতা নজরুল পথ খুঁজে নিলেন। সৈনিকের খাতায় নাম লেখালেন। সশস্ত্র পথে দেশমাতার স্বাধীনতা অর্জনের স্বপ্নে তখন টগবগে।
© ২০২১ সময় মিডিয়া লিমিটেড
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়