SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon খেলার সময়

আপডেট- ৩০-১২-২০১৭ ১১:১০:৫২

আলোর মুখ দেখছে নারী ফুটবল লিগ, দ্বিধা-দ্বন্দ্বে ক্লাবগুলো

women-league

৪ বছর বন্ধ থাকার পর আবারো আলোর মুখ দেখছে নারীদের পেশাদার ফুটবল লিগ। সম্প্রতি বাফুফে সভাপতি জানিয়েছেন আগামী বছরই মাঠে গড়াচ্ছে লিগ। সেক্ষেত্রে প্রণয়ন করা হবে নতুন সূচি। তবে এ নিয়ে দেশের ক্লাবগুলো রয়েছে দ্বিধা-দ্বন্দ্বে। অধিকাংশ ক্লাব কর্তা মনে করেন, নারীদের লিগ চালু করার পথে সবচেয়ে বড় বাধা, পর্যাপ্ত মানসম্মত খেলোয়াড়।

সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জয়ের পর, আবারো নারীদের পেশাদার লিগ চালুর ঘোষণা দিয়েছিলেন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দীন। ২০১৫ সাল থেকেই বাফুফে ভবনের আবাসিক ক্যাম্পে অবস্থান করে আসছে বাংলাদেশ নারী দলের ফুটবলার'রা। আগামী বছরের শুরুতেই যে সংখ্যাটা বেড়ে দাঁড়াবে ৫০-এ।

কিন্তু বাস্তবতা বলছে ২০১৮ সালেই লিগ চালু করতে চাইলে, সেক্ষেত্রে কঠিন চ্যালেঞ্জই অপেক্ষা করছে বাফুফের জন্য। নানান যদি কিন্তুর সমীকরণের সঙ্গে মানসম্মত নারী ফুটবলার পাওয়াই হবে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ।

মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের পরিচালক সরোয়ার হোসেন বলেন, 'একটা গ্যাপ হয়ে গেলে হুট করেই কিন্তু খেলোয়াড় পাওয়া যায় না। এরআগে যখন খেলা হচ্ছিলো তখন বেশ কিছু মেয়ে উঠে আসছিলো যারা নিয়মিত ফুটবল খেলতো। এখন কতগুলো মেয়ে এই মুহূর্তে পাওয়া যাবে এটা কিন্তু বড় একটা প্রশ্ন।'

ফিফা পেসক্রিপশনে বাধ্যতামূলক নারীদের লিগ। সম্প্রতি এএফসি প্রেসিডেন্ট শেখ সালমান বিন ইব্রাহিম বাংলাদেশ সফরে আসলে এই লিগ চালু করতে তার কাছে চাওয়া হয় অনুদান। তাই তো ২০১৩ সালের পর আবারো যদি নারীদের পেশাদার লিগ আয়োজন করতে চায় বাফুফে, সেক্ষেত্রে ক্লাবগুলো তা স্বাগতই জানাবে।

ব্রাদার্স ইউনিয়নের ম্যানেজার আমের খান বলেন, 'বাংলাদেশের ছেলেরা ফুটবল খেলে, মেয়েরাও খেলছে এবং ভালো করছে। ব্রাদার্স ইউনিয়ন সেখানে অবশ্যই অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে।'

সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাসিরুদ্দিন চৌধুরী বলেন, 'আমরা যেহেতু পেশাদার ক্লাব তাই এখানে আমাদের নজর থাকবে। যদি মেয়েদের জন্য লিগ চালু করা হয় তবে সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব থেকে আমরা টিম করবো এবং অবশ্যই অংশ নেবো।'

আর মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের পরিচালক সরোয়ার হোসেন বলেন, 'আমরা এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই। আশা করি, এই ধরণের উদ্যোগ মেয়েদের আরও অনুপ্রাণিত করবে এবং ভবিষ্যতে বাংলাদেশের ফুটবলকে আরও এগিয়ে নিবে।'

তবে এ ব্যাপারে এখনও মন্তব্য করার মতো সময় আসেনি বলে জানিয়েছে আরেক ঐতিহ্যবাহী ক্লাব ঢাকা আবাহনী। ভবিষ্যতে অবস্থা অনুসারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে জানিয়েছেন ক্লাবটির ম্যানেজার সত্যজিৎ দাশ রুপু।