SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাণিজ্য সময়

আপডেট- ১৯-১০-২০১৭ ১০:১৬:৫৫

বাইসাইকেল রপ্তানিতে অপার সম্ভাবনা

bicycle-export

একসময়ের শতভাগ আমদানি নির্ভর শিল্প বাইসাইকেল বর্তমানে দেশের ৬০ ভাগ চাহিদা মিটিয়ে ইউরোপসহ বিভিন্ন দেশে রপ্তানি হচ্ছে। অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে এ শিল্পের জন্য জায়গা বরাদ্দ দেয়ার দাবি জানিয়েছে ব্যবসায়ীরা। যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে জিএসপি সুবিধা ফিরে পেতে কার্যকর উদ্যোগ নেয়ারও দাবি তাদের। তবে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো-ইপিবি বলছে, এ খাতে ব্যবসায়ীদের মধ্যে আছে নানা সমন্বয়হীনতার।

শুধু তরুণ নয়, সব বয়সী মানুষের কাছেই প্রিয় বাহন বাইসাইকেল। স্বাস্থ্যসম্মত, নিরাপদ, সময় সাশ্রয়ী এবং যানজট নিরসনের জন্য সাইকেলের বিকল্প শুধু সাইকেলই।

শুধু দেশে নয়, বিশ্ববাজারেও সমান সমাদৃত বাংলাদেশের তৈরি বাইসাইকেল। ইউরোপের বাজারে বাইসাইকেল রপ্তানিতে তৃতীয় অবস্থানে বাংলাদেশ। কারখানা ঘুরে দেখা যায়, উন্নত কাঁচামাল ও যন্ত্রপাতি ব্যাবহার করা হয় সাইকেল তৈরিতে।

আর এফ এল বাইসাইকেলের (রপ্তানি) হেড অব অপারেশন দেবাশীষ চন্দ্র দেবনাথ বলেন, 'যেহেতু সাইকেল রপ্তানি করছি তাই একটা আন্তর্জাতিক মান নিয়ন্ত্রণ করি। এই জন্য আমার এখানে ম্যাকানিক্যাল হাইটেক ল্যাবরেটরি আছে। পাশাপাশি কেমিকেল ল্যাবরেটরি আছে।'

অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে এ শিল্পের জন্য আলাদা জায়গা বরাদ্দ চান ব্যবসায়ীরা। সরকারের দ্রুত পদক্ষেপ চান, যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে জিএসপি সুবিধা ফিরে পেতে।

প্রাণ আর এফ এল গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আর এন পাল বলেন, 'আমেরিকার বাজারে আমাদের জিএসপি সুবিধা এখন নাই। সেটা যেনো আবার অর্জন করতে পারি। ইকোনমিক জোনে ইন্ডাস্ট্রি করা যতো সুবিধা আছে সেগুলো যদি সরকার দেয় তাহলে ইন্ডাস্ট্রি গড়ে উঠবে।'

রপ্তানি বাড়াতে ব্যবসায়ীদের অসহযোগিতাকে দায়ী করলো রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো-ইপিবি।

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর ভাইস চেয়ারম্যান বিজয় ভট্টাচার্য্য বলেন, 'বিভিন্ন পর্যায়ে জিএসপি ফিরে পাবার জন্য চেষ্টা করা হচ্ছে কিন্তু এখন পর্যন্ত কোন ইতিবাচক সাড়া পাইনি। বাইসাইকেল যারা রপ্তানি করেন তারা যদি নির্দিষ্টভাবে আমাদের সমস্যাগুলো জানান তবে আমরা সেটার সমাধান করতে পারবো। কিন্তু তেমন কোন যোগাযোগ নাই।

২০১০ সালে যেখানে শতভাগ আমদানি নির্ভর ছিলো এই বাইসাইকেল এখন দেশে প্রতিবছর দেড় মিলিয়ন পিসের ষাট শতাংশ চাহিদা মেটে স্থানীয় বাজার থেকে। এমনকি বিশ্বের প্রায় বিশটি দেশে রপ্তানি হয় আমাদের এই বাইসাইকেল। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নতুন উদ্যোক্তাদের উৎসাহী করতে এই খাতে সহায়তা দিলে বিশ্বের বাজারে বাইসাইকেল রপ্তানিতে বাংলাদেশ হবে রোল মডেল।