SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাণিজ্য সময়

আপডেট- ৩০-০৭-২০১৫ ১৯:৪৯:১৪

বিনিয়োগবান্ধব ও সংযত মুদ্রানীতি ঘোষণা

moneytary-pkg-2

কর্মসংস্থান সৃষ্টি মূল লক্ষ্য রেখে নমনীয়, বিনিয়োগবান্ধব ও সংযত মুদ্রানীতি ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এতে সরকারি খাতে ঋণের প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছে ২৩.৭ শতাংশ। আর বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবাহ স্থির করা হয়েছে ১৫ শতাংশ। বৃহস্পতিবার সকালে বাংলাদেশ ব্যাংক কার্যালয়ে এ মুদ্রানীতি ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান।

গত অর্থবছর বেসরকারি খাতে ঋণের প্রবৃদ্ধি ১৫ দশমিক ৫ শতাংশ নির্ধারণ করা হলেও রাজনৈতিক অস্থিরতা, অবকাঠামো সুবিধার অভাব এবং বিশ্ব প্রবৃদ্ধিতে মন্দার কারণে অর্জন সম্ভব হয়েছে ১৩ দশমিক ৬ শতাংশ। তবে ২০১৫-১৬ অর্থবছরের প্রথমার্ধের মুদ্রানীতিতে বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছে ১৫ শতাংশ। আর সরকারি খাতে এ প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছে ২৩ দশমিক ৭ শতাংশ।

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান বলেন, 'মূল্যস্ফীতি এই পর্যায়ে রাখতে চাই যেটা মডারেট ইনফ্লেশন। যেটা আমাদের উদ্যোক্তাদের কোন ক্ষতিগ্রস্ত না করে অথচ আমাদের ভোক্তাদের সুবিধা দেয় সেরকম একটি জায়গায় আমরা নিয়ে যেতে চাচ্ছি। যেটা আমাদের মত দেশের জন্য পাঁচ থেকে ছয় শতাংশের মাঝে থাকলেই সবচেয়ে ভাল। সেদিকে লক্ষ্য রেখেই আমরা মুদ্রানীতি দিচ্ছি। এবং সেই জায়গায় আমরা পৌঁছব বলেও আশা করছি।'

এসময় তিনি বলেন, মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ সম্ভব হলেও রাজনৈতিক অস্থিরতায় বিনিয়োগে নেতিবাচক প্রভাব পড়ায় সম্ভব হয়নি উচ্চতর প্রবৃদ্ধি অর্জন। আর অভ্যন্তরীণ ঋণের যোগান এবং কাঙ্ক্ষিত প্রবৃদ্ধি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন জরুরি বলেও মনে করেন তিনি।

আর্থিক অনিয়মের ব্যাপারে বাংলাদেশ ব্যাংক সতর্ক অবস্থানে থাকবে বলেও জানান তিনি। এছাড়া, ঋণে সুদহার ভবিষ্যতে আরো কমে আসবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। মুদ্রানীতিতে আগামী ৬ মাসের জন্য রিজার্ভ প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছে ১৬ শতাংশ।