SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ১৩-০১-২০২১ ১৫:৫৫:৪৩

সাংবাদিকদের ডেকে সিএনএন-এর সংবাদ পড়ে শোনাল বিসিএসআইআর!

138680597-800045397214086-2

করোনা ভাইরাসের জিনোম সিকোয়েন্সিং এর গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানানোর কথা বলে সংবাদ সম্মেলন ডেকে বাংলাদেশকে নিয়ে মার্কিন বার্তা সংস্থা সিএনএন এর করা একটি প্রশংসাসূচক সংবাদ পড়ে শুনিয়েছে দেশের রাষ্ট্রায়ত্ব অন্যতম গবেষণা সংস্থা বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদ (বিসিএসআইআর)।

বুধবার (১৩ জানুয়ারি) বেলা ১২টায় রাজধানীর সায়েন্সল্যাবে বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদ (বিসিএসআইআর) এর চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. আফতাব আলী শেখ সাংবাদিকদের সামনে এসে বলেন, ‘করোনার জিনোম সিকোয়েন্স নিয়ে নতুন কোনো অগ্রগতি নেই। আগের মিটিংয়ে যেটি জানানো হয়েছিল ততটুকুই। পরবর্তীতে কোনো আপডেট থাকলে সংবাদ সম্মেলন করে তা জানাবে বিসিএসআইআর।’ 

এ সময়, সাংবাদিকদের মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন এর একটি প্রতিবেদনে বাংলাদেশে জিনোম সিকোয়েন্সের স্যাম্পল প্রক্রিয়াকরণ সম্পর্কে প্রশংসাসূচক একটি বাক্য পড়ে শোনান। তবে এ সংক্রান্ত কোনো প্রশ্নের উত্তর তিনি দিতে পারেন নি।

করোনার জিনোম সিকোয়েন্সিং-এর নতুন কোনো তথ্য না জানিয়ে কেন সংবাদ সম্মেলন শেষ করা হচ্ছে? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে বিসিএসআইআর চেয়ারম্যান বলেন, ‘সিএনএন যা করেছে, সেটি একটি বড় অর্জন।’

এর আগে মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) বিকেলে গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে ক্ষুদেবার্তা পাঠানো হয় যে, ‘বুধবার জিনোম সিকোয়েন্স নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য তুলে ধরবে বিসিএসআইআর’। অথচ সংবাদ সম্মেলন শুরু হলে সেখানে ভিন্ন পরিস্থিতির উদ্ভব হয়। যদিও অনুষ্ঠানের ব্যানারে লেখা ছিল ‘বিসিএসআইআর’র জিনোমিক রিসার্চ ল্যাবরেটরির কোভিড-১৯ গবেষণার অগ্রগতি ও আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি’। অথচ এ নিয়ে কোনো তথ্য দেওয়া হয় নি সেখানে।

সংবাদ সম্মেলনের শুরুতে বিসিএসআইআর এর চেয়ারম্যান জানান, এখন পর্যন্ত ৩০৪টি জিনোম সিকোয়েন্সের ডেটা গ্লোবাল ইনিশিয়েটিভ অন শেয়ারিং অল ইনফ্লুয়েঞ্জা ডাটা (জিআইএসএইড) এ জমা দিয়েছে বাংলাদেশ।

আরও পড়ুন: ফারমার্স ব্যাংক কেলেঙ্কারি: এসকে সিনহাসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ ২ ফেব্রুয়ারি

চেয়ারম্যান ডা. আফতাব আলী শেখ সংবাদ সম্মেলনে দাবি করেন, বহুল প্রচারিত আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা সিএনএন কোভিড-১৯ এর গবেষণায় অগ্রগতির জন্য বাংলাদেশের গবেষকদলের ভূয়সী প্রশংসা করেছে। সিএনএন তাদের প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে- ‘কম রিসোর্স থাকা সত্ত্বেও বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা এবং সুরিনামের মতো দেশগুলো স্যাম্পল প্রক্রিয়াকরণের দিক দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র থেকেও দ্রুতগতিতে কাজ করে।’

উপস্থিত সাংবাদিকরা করোনার নতুন স্ট্রেইনের বিষয়ে জানতে চাইলে চেয়ারম্যান বলেন, ‘এটি এখনও বলা যাবে না। আমরা এটা নিয়ে কাজ করছি। এখনও কিছু বলার মতো সময় আসেনি।’

এর আগে গণমাধ্যমে যা এসেছে তা বিসিএসআইআর-এর বক্তব্য নয় বলেও উল্লেখ করেন তিনি। 

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকরা তথ্যপ্রাপ্তির জন্য চেয়ারম্যানকে বারবার অনুরোধ জানালেও তিনি নতুন কোনো তথ্য হাজির করতে অপারগতা প্রকাশ করেন। সেখানে, গবেষণা দলের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. সেলিম খান উপস্থিত থাকলেও, তাকে কোনো বক্তব্য দিতে দেওয়া হয় নি।

এর আগে গেল বছরের সাত সেপ্টেম্বর করোনা ভাইরাসের জিনোম সিকোয়েন্স বিষয়ে সর্বশেষ অগ্রগতি জানিয়েছিল বিসিএসআইআর।