SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon আন্তর্জাতিক সময়

আপডেট- ৩০-১১-২০২০ ১৭:৩৪:১৩

আফগানিস্তানে গণহত্যা: চীনকে ক্ষমা চাইতে বলল অস্ট্রেলিয়া

555

আফগানিস্তানে অস্ট্রেলিয়ার সেনা এক আফগান শিশুকে হত্যা করছে এমন একটি ছবি পোস্ট করা হয়েছে চীনের সরকারি টুইটার অ্যাকাউন্টে। ওই ছবিকে বিতর্কিত, ভুয়া আখ্যা দিয়ে বেইজিংকে ক্ষমা চাইতে বলেছে ক্যানবেরা। প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন বলেন, ভুল ছবি শেয়ার করার জন্য বেইজিংয়ের লজ্জিত হওয়া উচিৎ। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দু’দেশের মধ্যে রাজিনৈতিক উত্তেজনা বাড়ছে।

ওই ছবির মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ার কিছু সেনা যুদ্ধাপরাধে জড়িত বলে উল্লেখ করা হয়।

চলতি মাসের শুরুতে অকাট্য প্রমাণের ভিত্তিতে অস্ট্রেলিয়ার ২৫ সেনার বিরুদ্ধে ৩৯ আফগানকে হত্যার অভিযোগ তোলা হয়। ২০০৯ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত ওইসব হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হয়।

অস্ট্রেলিয়ার প্রতিরক্ষা বাহিনীর (এডিএফ) ওই তদন্ত প্রকাশের পরই বিশ্বব্যাপী নিন্দার ঝড় ওঠে। দেশটির পুলিশ এখন ওই ঘটনার তদন্ত করছে।

সোমবার চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লিজিয়ান ঝাও একটি এডিট করা ছবি পোস্ট করেন। যেখানে অস্ট্রেলিয়ার সেনাকে রক্তাক্ত ছুরি হাতে এক শিশুর পাশে দেখা যায়। শিশুটির হাতে তখন একটি বাতি ছিল।

আরও পড়ুন: ‘আফগানিস্তানে নিরপরাধ মানুষ হত্যা করেছে অস্ট্রেলিয়া’ 

আরও পড়ুন: আফগানিস্তানে গণহত্যায় জড়িত ১৩ অস্ট্রেলীয় সেনা বরখাস্ত

অস্ট্রেলিয়ার এলিট ফোর্সের সদস্যরা ১৪ বছর বয়সী আফগান শিশুকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেছে-পূর্বের এমন খবরই তুলে ধরা হয়েছে ছবিতে। অস্ট্রেলিয়ার গণমাধ্যম এবিসি নিউজ জানায়, এডিএফ’র তদন্তের এমন কোনো অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়নি।

তবে এলিট ফোর্সের সদস্যদের দ্বারা অবৈধ হত্যাকাণ্ড এবং ভয়াবহ আচরণের অকাট্য প্রমাণ পাওয়া গেছে তদন্তে। বন্দিদের গুলির মাধ্যমে জুনিয়র সেনাদের প্রথম হত্যাকাণ্ডে উৎসাহী করা হয়েছে বলেও উল্লেখ করা হয়।

ঝাও টুইটে বলেন, আফগান বন্দি এবং বেসামরিক নাগরিককে নৃশংসভাবে হত্যা করেছে অস্ট্রেলিয়ার সেনারা। আমরা তীব্র নিন্দা জানাই। অভিযুক্তদের বিচারের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি।

পোস্ট সরিয়ে ফেলার জন্য টুইটারকে আহ্বান জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। বলা হয়, ওই পোস্টের মাধ্যমে ভুল তথ্য ছড়ানো হচ্ছে।

মরিসন পোস্টকে সম্পূর্ণ ভুয়া, অত্যন্ত আপত্তিজনক এবং উস্কানিমূলক বলে অভিহিত করেছেন। বলেন, চীনা সরকারের উচিৎ এ ধরনের পোস্টের জন্য লজ্জিত হওয়া। এটা আমাদের প্রতিরক্ষা বাহিনীর বিরুদ্ধে ভয়ানক মিথ্যাচার।

গণতান্ত্রিক, স্বাধীন রাষ্ট্রের প্রত্যাশা অনুযায়ী যুদ্ধাপরাধের তদন্ত নিশ্চিতে একটি স্বচ্ছ প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।