SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ০২-০৪-২০২০ ১০:৩৭:২০

পরিছন্নতাকর্মীরা কাজ করছেন চরম ঝুঁকিতে

waste-corona

করোনা সতর্কতায় সবাই যখন বাসায় অবস্থান করছে; তখন হ্যান্ডগ্লাভস, মাস্ক ছাড়াই সবার বাসা থেকে ময়লা সংগ্রহ করছে সিটি কর্পোরেশনের পরিছন্নতাকর্মীরা। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ পরিছন্নতাকর্মীরা যেমন ঝুঁকিতে, তেমনি তারা যে বাসায় যাচ্ছে সেখানেও সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ছে। এদিকে মাস্ক, হ্যান্ডগ্লাভস ব্যবহার শেষে তা রাস্তায় ফেলার কারণে, প্রশ্ন উঠছে জনসচেতনতা নিয়ে।

করোনাভাইরাস থেকে নিজেকে রক্ষা করতে সবাই সচেতন, সবাই মুখে মাস্ক পড়ে রাস্তায়। নিজের নিরাপত্তা বা সচেতনায় ত্রুটি নেই। ব্যবহার শেষে নির্ধারিত স্থানে ফেলার নির্দেশনা থাকলেও মাস্ক হ্যান্ডগ্লাভস রাস্তায়। সেখানেই প্রশ্ন তাহলে সচেতনতা কোথায়?

সবাই যখন সরকারের নির্দেশনায় বাসায় তখনও নগরী পরিছন্ন রাখতে কাজ করে যাচ্ছে এই কর্মীরা। কিন্তু করোনার এ সময়ে তাদেরও নেই ন্যূনতম নিজেকে রক্ষার ব্যবস্থা।

এক পরিছন্নতাকর্মী বলেন, সারাবছর কাজ করেছি কেউ কোনো পোশাক দেয়নি। সবাই হাঁচি-কাশি-থুতু ফেললে সেগুলো আমরা পরিষ্কার করি। আমাদের উচিত ছিল গ্লাভস, মাস্ক, পোশাক দেয়ার।

করোনার বিস্তার রোধে পরিছন্নতাকর্মীদের এখনই সব ধরনের সামগ্রী দিতে হবে অন্যথায় তাদের মাধ্যমেও ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা রয়েছে।

মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার নাহিদুজ্জামান সাজ্জাদ বলেন, পরিছন্নতাকর্মীরা যেহেতু বিভিন্ন বাড়িতে যায়, সেহেতু তাদের মাধ্যমে ভাইরাস ছড়ানোর আশঙ্কা রয়েছে। 

পরিছন্নতাকর্মীদের সুরক্ষায় দ্রুত সময়ের মধ্যে মাস্ক এবং হ্যান্ডগ্লাভস দেয়ার কথা বলছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেন, এখন সবাইকে মাস্ক ব্যবহার করার জন্য উদ্ধুদ্ধ করা হবে। সিটি কর্পোরেশনকে ইতোমধ্যে চিঠি দেয়া হয়েছে।