SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ২৯-০৩-২০২০ ১৪:০৭:৪৬

যুক্তরাজ্য-চীন থেকে এখনও আসছে ফ্লাইট

corona-flight

করোনাভাইরাসের উৎপত্তিস্থল চীন ও অন্যতম সংক্রমিত দেশ যুক্তরাজ্য থেকে এখনো ফ্লাইট আসছে বাংলাদেশে। যদিও ঢাকা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ ও এয়ালাইন্সগুলো বলছে, করোনামুক্তির সনদ ছাড়া কোনো যাত্রী এলে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হচ্ছে। তবে কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা না গেলে সামাজিক সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে মধ্যপ্রাচ্যসহ এশিয়ার বিভিন্ন দেশ বাংলাদেশের সঙ্গে বিমান চলাচল স্থগিত করেছে বেশ আগে। কিন্তু ২০ মার্চ পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞা আরোপকারী দেশ ছাড়া সব দেশের সঙ্গে বিমান চলাচল অব্যাহত রাখে বাংলাদেশ। ২৬ মার্চ থেকে সারাদেশে সড়ক, নৌ, বিমান চলাচল বন্ধ করে সরকার। কিন্তু যুক্তরাজ্য, চীন, হংকং ও থাইল্যান্ড থেকে এখনো আসছে ফ্লাইট। যাত্রী সঙ্কটে এয়ারলাইন্সগুলো হংকং ও থাইল্যান্ডে ফ্লাইট বন্ধ করলেও চীন ও যুক্তরাজ্যে বিমান চলাচল অব্যাহত রয়েছে।

আগামী ৩১ মার্চ থেকে বাংলাদেশ বিমান যুক্তরাজ্যে এক সপ্তাহের জন্য ফ্লাইট স্থগিত করলেও গত ২৯ দিনে দেশটি থেকে সাড়ে সাত হাজারের বেশি প্রবাসী দেশে ফিরেছে। বিমান বলছে, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বিধি মেনে ফ্লাইট পরিচালিত হচ্ছে। গেল কয়েকদিনে করোনামুক্তির সনদ ছাড়া যারা এসেছেন তাদের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে পাঠিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

এদিকে চীনের গুয়াংজুতে ফ্লাইট পরিচালনাকারি ইউএস বাংলার কর্মকর্তা জানান, চীন ও বাংলাদেশ সরকারের নিয়ম মেনেই ফ্লাইট চালানো হচ্ছে। বর্তমানে চীন ছাড়া অন্য দেশের নাগরিকদের প্রবেশ নিষিদ্ধ দেশটিতে। গুরুত্বপূর্ণ চিকিৎসা সামগ্রী আমদানির স্বার্থে রোববার থেকে চলবে শুধু একটি ফ্লাইট।

বিশেষজ্ঞর মতে বিদেশফেরতদের সামাজিক বিচ্ছিন্নকরণ নিশ্চিত করা গেলে সংক্রমণের ঝুঁকি নেই।

গত চার দিনে দেড় শতাধিক প্রবাসী দেশে ফিরেছেন। আর জানুয়ারি থেকে মার্চের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত এসেছেন প্রায় পৌনে দুই লাখ প্রবাসী।