SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ২৭-০৩-২০২০ ০৯:১৮:১৮

পেটের দায়ে নিষেধাজ্ঞা মানছেন না রংপুরের শ্রমজীবীরা

rang-labour

পেটের দায়ে নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে দলবেঁধে কাজ করছেন রংপুরের শ্রমজীবী মানুষ। মহামারি আকারে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসের অনাকাঙ্ক্ষিত বিস্তার রোধে তাদের ঘরে পাঠাতে প্রয়োজনে বাড়ি বাড়ি খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেয়ার দাবি উঠেছে।  

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বাঁচতে সারা বিশ্বে কোটি কোটি মানুষের অবস্থান এখন ঘরের কোণে। কিন্তু এক সময়ের মঙ্গা পীড়িত এলাকা বলে পরিচিত উত্তরের জনপদ রংপুর নগরীর চিত্র কিছুটা ভিন্ন। বাধা-নিষেধ উপেক্ষা করে দলবদ্ধ হয়ে কাজ করছেন শ্রমিকেরা। দৈনন্দিন চাহিদাকে প্রাধান্য দিতে গিয়ে করোনাভাইরাসের সংক্রমণকে আমলে নেয়নি তারা। এ অবস্থায় সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা তাদের সতর্কও করেছেন।

দিন এনে দিন খাওয়া এসব মানুষকে দৈনন্দিন খাদ্য সহায়তা হিসেবে প্রয়োজনে ঘরে ঘরে খাদ্য পৌঁছে দেয়ার দাবি উঠেছে।

কৃষক ও ক্ষেতমজুর সমিতির সভাপতি নজরুল ইসলাম হক্কানী বলেন, তাদের ঘরে রাখতে হবে, ঘরে না রাখলে এটা ছড়িয়ে পড়বে। ঘরে রাখতে হলে খাবারটাও দিতে হবে। 

পরিস্থিতি মোকাবিলায় জনসমাগম এড়াতে শ্রমজীবীদের অনুরোধ করেন জেলা প্রশাসক।

জেলা প্রশাসক আসিব আহসান বলেন, যারা জমিতে কাজ করেন তারা ঠিকই কাজ করবেন, তবে জনসমাগম থেকে দূরে থাকতে হবে।

শ্রমজীবী মানুষের খাদ্য ও নগদ অর্থ সহায়তা হিসেবে এরই মধ্যে ১৮০ মেট্রিক টন চাল ও নগদ ৫ লাখ ২০ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন।