SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon খেলার সময়

আপডেট- ২৭-০৩-২০২০ ০১:৩৪:৫৪

করোনা: বাংলাদেশকে নিরাপদ মনে করছেন আবাহনীর কোচ

coach

করোনা ভাইরাসে পর্তুগালের চলমান পরিস্থিতিতে দুশ্চিন্তায় থাকলেও আপাতত বাংলাদেশকে নিরাপদ মনে করছেন আবাহনীর কোচ মারিও লেমোস। যদিও করোনাকে গুরুত্ব দিয়ে ফুটবলারদের পাশাপাশি নিজ পরিবারসহ সবাইকে সচেতন থাকার পরামর্শ এই পর্তুগীজ কোচের। আর জামার্নি ও নাইজেরিয়ায় করোনার প্রকোপ দেখা দিলেও হাজার মাইল দূরে থেকেও পরিবারকে নিরাপদে থাকার আহবান আবাহনীর এডগার বের্নহার্ড ও সানডে চিজোবার।

করোনা ভাইরাসের প্রভাবে প্রিমিয়ার লিগের দুই একটি ক্লাব ছাড়া বেশির ভাগ ক্লাবই ফুটবলারদের কয়েকদিনের জন্য ছুটি দিয়েছে। দেশীয় ফুটবলাররা যার যার পরিবারের সঙ্গে ছুটি কাটাতে গেলেও ক্লাবগুলোর বিদেশী ফুটবলারসহ কোচিং স্টাফরা বাংলাদেশেই আছেন। বিশ্বব্যাপী করোনা ভাইরাসের কঠিন পরিস্থিতিতে দুশ্চিন্তাও কম নয় তাদের।

এই যেমন করোনা ভাইরাস নিয়ে শঙ্কিত আবাহনীর পর্তুগীজ কোচ মারিও লেমোস। কারণ, বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো লেমোসের দেশ পর্তুগালে এরই মধ্যে ১২ হাজারের বেশি মানুষ কোভিড নাইন্টিনে আক্রান্ত। তাই এই মুহুর্তে পরিবারের চিন্তায় মগ্ন লেমোস। তবে নানা জটিলতায় মাতৃভুমিতে না যেতে পারলেও পরিস্থিতি বিবেচনায় বাংলাদেশকে নিরাপদ বলছেন এই পর্তুগীজ কোচ।


আবাহনীর কোচ মারিও লেমোস বলেন, দেখুন, একজন কোচ হিসেবে সবার আগে ফুটবলারদের নিরাপদে রাখাটাকে প্রাধান্য দিতে চাই আমি। করোনা ভাইরাসকে গুরুত্ব দিয়ে সচেতন থাকাটা জরুরি। চলমান পরিস্থিতিতে ছুটিতে থেকেও পরিবারকে খুব মিস করছি। বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারি আকার ধারণ করলেও,এই মুহূর্তে বাংলাদেশকে নিরাপদ মনে করছি। আর লিগে দল শীর্ষে আছে। তাই ফুটবলাররা ফিরলে আবার নতুন উদ্দ্যমে প্রস্তুতি শুরু করবো।

মারিও লেমোসের মতো নিজেদের পরিবারকে অনুভব করছে আবাহনীর এডগার বের্নহার্ড ও সানডে চিজোবা। কিরগিস্তানের ফুটবলার এডগারের পরিবার থাকে সুদূর জার্মানিতে। যেখানে ২১ হাজারেরও বেশি মানুষ এখন করোনার ছোবলে জর্জরিত। তাইতো ক্লাব ছুটি দিলেও চলমান পরিস্থিতিতে চিন্তার ভাঁজ এডগারের কপালে। তারপরও সবাইকে সতর্ক থাকার আহবান এই মিডফিল্ডারের। এদিকে, পরিবার নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছে নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড সানডে চিজোবাও। এ অবস্থায় পরিবার ও সতীর্থদের কাছে নিজের সুরক্ষায় সচেতন থাকার অনুরোধ সানডের।

করোনা প্রভাবকে গুরুত্ব দিয়ে প্রিমিয়ার লিগ ১৫ দিনের জন্য স্থগিত করায় বাফুফেকে ধন্যবাদ জানান এই দুই বিদেশী ফুটবলার।