SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ২৫-০৩-২০২০ ২২:৫৮:২৫

ময়মনসিংহে করোনা রোধে নানা উদ্যোগ

maymanshingh

ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে নগরীর বিভিন্ন স্থানে সাবান-পানি দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ব্যক্তি উদ্যোগেও এগিয়ে এসেছেন অনেকে। সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন অফিসের সামনেও রাখা হয়েছে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা। এদিকে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা হ্যান্ডওয়াশ, মাস্ক বিতরণ এবং জীবাণুনাশক স্প্রে করছে গণপরিবহণে। এদিকে করোনা প্রতিরোধে যার যার অবস্থান থেকে কাজ করা এবং অপ্রয়োজনে বাড়ির বাইরে বের না হওয়ার আহবান জানিয়েছেন সিটি মেয়র ও জেলা প্রশাসক।

রাস্তার পাশেই রাখা আছে পানির ট্যাংক, সাবান, হ্যান্ডওয়াশ। যে যার ইচ্ছেমতো আসছেন, সাবান-পানি দিয়ে হাত ধুয়ে চলে যাচ্ছেন যার যার কাজে। এমনই দৃশ্য এখন চোখে পড়ে ময়মনসিংহ নগরীর বাঘমারা এলাকায়।

সিটি কর্পোরেশন, জনপ্রতিনিধি ও স্থানীয়দের উদ্যোগে এরকম অসংখ্য ওয়াশব্লক তৈরি করা হয়েছে বাঘমারাসহ নগরী বিভিন্ন এলাকায়। বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি অফিসের সামনেও রাখা হয়েছে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা।

এছাড়া সিটি কর্পোরেশন নগরীর ৮টি স্থানে করোনা সচেতনতা ডেস্ক থেকে মাইকিং ও লিফলেট বিতরণ করছে। জীবাণুনাশক ছিটানো হচ্ছে নগরীর বিভিন্নস্থানে। এতে খুশি নগরবাসী।

এদিকে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা হ্যান্ডওয়াশ, সেনিটাইজার ও মাস্ক তৈরি করে নিম্ন আয়ের মানুষের মাঝে বিতরণ এবং গণপরিবহনে জীবাণুনাশক স্প্রে করছেন।

স্থানীয় এক স্বেচ্ছাসেবী বলেন, গণসংক্রমণ যাতে না হয় সেজন্য আমরা গণপরিবহনগুলোতে নিয়মিত স্প্রে করে যাচ্ছি। এছাড়া বিভিন্ন জায়গায় আমরা সাবান-পানি দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করেছি।

এদিকে করোনা প্রতিরোধে যার যার অবস্থান থেকে কাজ করতে এবং অপ্রয়োজনে বাড়ির বাইরে বের না হওয়ার আহবান জানিয়েছেন সিটি মেয়র ও জেলা প্রশাসক।

ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. ইকরামুল হক টিটু বলেন, আমরা যদি মানুষের ঘরে থাকাটা নিশ্চিত করেতে পারি আমার মনে হয় লক্ষ লক্ষ মানুষকে আমরা নিরাপদ রাখতে পারবো।

ময়মনসিংহ জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান বলেন, আমরা সবাইকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য এই মুহূর্তে অনুরোধ করছি।

ময়মনসিংহে এ পর্যন্ত ৪৫৫ জন প্রবাসী হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন। আর স্থানীয় করোনা প্রতিরোধ কমিটির অনুমতি নিয়ে হোম কোয়ারেন্টাইন ছেড়েছেন ১৯৫জন।