SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ০১-০৩-২০২০ ১০:১৬:২২

ভোলায় নিষেধাজ্ঞার প্রথমদিনে ১৭ জেলের জেল জরিমানা

fish

ভোলায় একই সাথে জলে ও স্থলে অভিযানের মধ্য দিয়ে জাটকা সংরক্ষণ অভিযান শুরু করেছে স্থানীয় প্রশাসন। অভিযানের প্রথম দিনেই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করার দায়ে ১৭ জেলেকে আটক করে জেল জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। জব্দ করা হয়েছে একটি ট্রলার ও ২০ কেজি ইলিশ।

মৎস্য বিভাগ জানিয়েছে, রোববার (১ মার্চ) থেকে ২ মাসের জন্য (৩০ এপ্রিল পর্যন্ত) ভোলার মেঘনা- তেঁতুলিয়া নদীর ১৯০ কিলোমিটার এলাকায় সবধনের মাছ ধরার উপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সরকার। এসময় ইলিশ ধরা, পরিবহন ও বিক্রি বন্ধ থাকবে।

ইলিশের নিরাপপদে বেড়ে ওঠা নিশ্চিত করতে বিগত বছরের মতো এবারও সদর উপজেলা ইলিশা থেকে মেঘনার চর পিয়াল পর্যন্ত ৯০ কিলোমিটার ও ভেদুরিয়া থেকে পটুয়াখালীর চর রুস্তম পর্যন্ত তেঁতুলিয়া নদীর ১০০ কিলোমিটার এলাকাকে ইলিশের বিচরণ ক্ষেত্র হিসেবে চিহ্নিত করে জাল ফেলা নিষিদ্ধ করা হয়।

এদিকে  অভিযানের প্রথম দিন আজ ভোররাত থেকে মেঘনা নদীতে অভিযান চালায় জেলা প্রশাসন ও মৎস্য বিভাগ। এ সময় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে মাছ ধরার দায়ে ১৭ জেলেকে আটক করা হয়।

পরে ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. রায়হানুল ইসলাম জানান, আটকদের মধ্যে ১৪ জনকে এক বছর করে কারাদন্ড, ২ জনকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা ও বয়স বেশি হওয়ায় একজনকে অব্যহতি দেওয়া হয়েছে। জব্দ করা মাছ এতিমখানায় বিলিয়ে দেয়া হবে।

জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস. এম আজহারুল ইসলাম জানিয়েছেন, নিষেধাজ্ঞা অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে সমন্বিত অভিযান অব্যাহত থাকবে। ইলিশ উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনী সকল ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য সরকার দেশের উপকূলীয় এলাকায় ৬টি অভয়াশ্রম ঘোষণা করে ২ মাসের জন্য সব ধরনের মাছ ধরার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। ভোলার ২টি অভয়াশ্রম ছাড়া বাকী ৪টি অভয়াশ্রম হচ্ছে চাঁদপুরের ষাটনল থেকে  মেঘনা নদী, শরিয়তপুরের মেঘনা, বরিশালের আড়িয়াল খা ও পটুয়াখালীর আন্দার মানিক। তবে আন্দারমানিক এ অভিযানের বাইরে থাকবে।