SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ২৭-০২-২০২০ ১৯:০১:১১

চিকিৎসককে নির্যাতনকারীর গ্রেফতার দাবি

dnajpur-1

দিনাজপুরে ডা. মানিক হোসেনকে (দন্ত চিকিৎসক) সারারাত পৈশাচিক নির্যাতন এবং মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর প্রতিবাদে দাদন-ব্যবসায়ী শহিদুলকে গ্রেফতার ও শাস্তি দাবিতে সংবাদ সম্মেলন এবং মানববন্ধন করেছে স্থানীয় গ্রামবাসীরা।

ডা. মানিক হোসেনকে(দন্ত চিকিৎসক) নির্যাতনের নির্যাতনকারী শহিদুল ইসলামকে গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তি দাবিতে বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে পৈশাচিক নির্যাতনের নির্মমতা তুলে ধরে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন নির্যাতনের শিকার ডা. মানিক হোসেনের স্ত্রী সামসুন নাহার।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, বালুয়ডাঙ্গা-হঠাতপাড়া এলাকার সন্ত্রাসীদের গডফাদার ও দাদন-ব্যবসায়ী মো. শহিদুল ইসলাম তার স্বামী ডা. মানিক হোসেনকে চিকিৎসার নামে মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে ২০ ফেব্রুয়ারি) রাত ৮টায় তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে তারা ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। মানিক তাদের দাবিকৃত চাঁদার ২ লাখ টাকা দিতে অস্বীকার করায় সন্ত্রাসী শহিদুল ইসলাম, মো: বাপ্পি, মো: সুইট, মো: ববিসহ অজ্ঞাতরা ডা: মানিককে ঘরের ভিতরে আটকে রেখে সারারাত ধরে পৈশাচিক ও নিষ্ঠুর নির্যাতন চালিয়েছে। 

এরপর সন্ত্রাসী শহিদুল ২১ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১ টায় আমার স্বামীর মোবাইল থেকে আমাকে ডেকে ওই টাকা দাবি করে নইলে আমার স্বামীকে মেরে ফেলে লাশগুমের হুমকি দেয়। আমিও টাকা দিতে অস্বীকার করলে তারা আরো ভয়ংকর নির্যাতন শুরু করে। 

তিনি জানান, সন্ত্রাসীরা আবার পুলিশের ৯৯৯-এ মিথ্যা তথ্য দিয়ে পুলিশ ডেকে মিথ্যা সাজানো মামলায় ফাঁসিয়ে আহত অবস্থায় ডা: মানিককে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। তিনি জানান, পুলিশ আহতাবস্থায় চালান দিলে আমরা আদালতের মাধ্যমে জামিনে মুক্ত করে তাকে এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্যে ভর্তি করিয়েছি। আমাদের প্রশ্ন পুলিশ কেন তাদেরকে আটক না করে অন্যায়ভাবে পিটিয়ে আহত করা একজন মুমূর্ষু মানুষকে তাদের হেফাজতে নিয়ে চালান দিল। 

অথচ আমি শহিদুল ইসলামের কুকীর্তি ও বর্বরোচিত নিষ্ঠুরতার বিষয়ে গত ২২ ফেব্রুয়ারি একটি অভিযোগ কোতোয়ালি থানায় দায়ের করলেও সে ব্যাপারে মামলা গ্রহণ কিংবা আসামি আটকের বিষয়ে পুলিশি কোনো তৎপরতা এখনো দেখছি না। 

আমি প্রশাসনের কাছে ঘটনার সাথে জড়িত সন্ত্রাসীদের গডফাদার ও দাদনব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম ও তার সহযোগীদের গ্রেফতার এবং কঠোর শাস্তির দাবি করছি। 

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় শতাধিক গ্রামবাসী। পরে তারা প্রেসক্লাবের সন্মুখ সড়কে শহিদুল ইসলামসহ তার সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও কঠোর শাস্তির দাবিতে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।