SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ২৩-০২-২০২০ ১৮:৫৩:০৫

সৈয়দপুর বিমানবন্দরে পুলিশ সদস্যকে মারপিট, আটক ৩

nilphamari

নীলফামারীর সৈয়দপুর বিমানবন্দরে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আর্মড পুলিশ ব্যাটানিয়নের এক সদস্যকে মারপিট করে আহত ঘটনায় তিন যুবককে আটক করা হয়েছে। রোববার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সৈয়দপুর বিমানবন্দর প্রবেশের প্রধান ফটকে এ ঘটনাটি ঘটেছে। 

আহত পুলিশ সদস্য সেলিমকে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় আটককৃতরা হলেন- শহরের হাতিখানার মো. শরীফের ছেলে মো. ওমর আলী (২৫) ও তার সহযোগী হায়দার আলী (২২) এবং একই এলাকার মো. আলী হোসাইনের ছেলে মো. ইজাজ আহমেদ ওরফে রফিক (২৩)। 
 
থানায় মামলার অভিযোগে বলা হয়, রোববার সকাল সোয়া ১০টার দিকে সৈয়দপুর বিমানবন্দর প্রবেশের প্রধান ফটকে ৮, আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের কনস্টেবল সেলিম, শহীদুল ও মনসুর নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করছিলেন। আর এ সময় শহরের হাতিখানা এলাকার ওমর আলী, তার ভাই হায়দার আলী ও ইজাজ আহম্মেদ ওরফে রফিক নামের তিন যুবক একই মোটরসাইকেলের (নম্বর: নীলফামারী-ল-১১-২৯৪৫) বসে দ্রুতগতিতে ও হেলমেটবিহীন অবস্থায় বিমানবন্দর প্রবেশের প্রধান ফটক দিয়ে বিমানবন্দরের ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করছিল। এ সময় সেখানে দায়িত্বরত পুলিশ কনস্টেবল সেলিম তাদের মোটরসাইকেলটি থামানোর জন্য সিগন্যাল দেন। কিন্তু মোটরসাইকেল আরোহী ওই তিন যুবক পুলিশের সিগন্যাল অমান্য করে বিমানবন্দরে প্রবেশের চেষ্টা করে। এ সময় পুলিশ কনস্টেবল সেলিম দৌঁড়ে বিমানবন্দর প্রবেশের প্রধান ফটক থেকে আনুমানিক ১৫ গজ ভেতরে গিয়ে মোটরসাইকেলটির সামনে দাঁড়ান। এতে তারা (যুকবরা) মোটরসাইকেল থামাতে বাধ্য হয়। এরপর মোটরসাইকেল আরোহী তিন যুবক মোটরসাইকেল থেকে নেমে পুলিশ কনস্টেবল সেলিমকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে। এ সময় যুবকদের গালিগালাজের প্রতিবাদ জানালে ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশ কনস্টেবল সেলিমকে এলোপাাতড়ি কিল ঘুষি মারতে থাকে। এতে পুলিশ কনস্টেবল সেলিমের নাকের হাঁড় ভেঙ্গে যায় এবং তিনি গুরুতর জখম হন। এ সময় সেখানে কর্মরত অন্যান্য পুলিশ ও আনসার সদস্যদের সহযোগিতায় ঘটনাস্থল থেকে ওই তিন যুবকদের আটক করা হয়। পরবর্তীতে আটককৃতদের সৈয়দপুর থানা পুলিশের হাতে সোপর্দ করা হয়েছে। 

এ ঘটনায় ৮, আমর্ড পুলিশ ব্যাটানিয়নের সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মো. লায়েকুজ্জামান বাদী হয়ে উল্লিখিত তিন জনের নামে সৈয়দপুর থানায় একটি মামলা করেছেন।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আবুল হাসনাত খান জানান, গ্রেফতারকৃতদের আদালতে সোপর্দ করে সাত দিনের রিমান্ডের জন্য আবেদন করা হয়েছে।