SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ২৩-০২-২০২০ ১৮:৪১:১০

তিন ভবনকে ২৭ লাখ টাকা জরিমানা রাজউকের

rajuk-eviction

রাজধানীর রামপুরায় অভিযান চালিয়েছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ-রাজউক। পাশাপাশি নির্মাণকাজে আইন না মানায় নির্মাণাধীন ৩টি ভবনকে জরিমানা করা হয় মোট ২৭ লাখ টাকা।

রোববার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে রামপুরার বউবাজার এলাকায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জেসমিন আক্তারের নেতৃত্বে শুরু হয় রাজউকের অভিযান। এসময় সঙ্গে ছিলেন রাজউকের অথোরাইজড অফিসার মোবারক হোসেনসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

অভিযানের শুরুতেই রামপুরার বউবাজারে নির্মাণাধীন ৯ তলা ভবনের নকশা বহির্ভূত অংশ ভেঙ্গে দেয় রাজউক। একই সঙ্গে নির্মাণকাজে আইন না মানায় ভবনটির মালিকদের জরিমানা করা হয় ১০ লাখ টাকা। এরপর নির্মাণাধীন দুটি ১০ তলা ভবনের নকশা বহির্ভূত অংশ অপসারণ করে রাজউক। এসময় একটি ভবনকে ১০ লাখ টাকা ও আরেকটি ভবনকে ৭ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

অভিযানে গাড়ি পার্কিংয়ের জায়গা না রাখায় অপসারণ করা হয় একটি ভবনের নিয়ম বহির্ভূত অংশ। এছাড়া নির্মাণাধীন ২৫টি ভবনের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে সতর্ক করে দেয়া হয় ভবন মালিকদের।

রাজউকের অথোরাইজড অফিসার মোবারক হোসেন বলেন, 'এসব ভবন মালিকদের কেউ আইন মেনে বাড়ি করছে না, আইনকে অনুসরণ করে নির্মাণকাজ করছে না। নির্মাণ তথ্য সংবলিত সাইনবোর্ড রাখার কথা থাকলেও, সেটি মানছেন না তারা। কোনো পর্যায়েই তারা কোনো কথা রাখছেন না।'

তবে ৯-১০ তলা পর্যন্ত নির্মাণকাজ এগিয়ে নেয়া এসব ভবন নজরদারির ক্ষেত্রে রাজউকের কোনো গাফিলতি ছিলো কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে ভবন মালিকদের ওপরও দায় চাপালেন রাজউকের কর্মকর্তারা। তাদের মতে, নকশা মেনে নির্মাণকাজের ক্ষেত্রে ভবন মালিকের দায়িত্বই অনেক বেশি।
 
এ প্রসঙ্গে রাজউকের অথোরাইজড অফিসার মোবারক হোসেন বলেন, 'ভবন নির্মাণের সময় অনুমোদিত নকশা দেয়ার সময়ই ভবন মালিকদের বিস্তারিত বলে দেয়া হয়। এটা বলার অর্থ হলো, ভবন নির্মাণের সময় চারদিকে কতটুকু জায়গা ফাঁকা থাকবে, সে সম্পর্কে তারা যেন অবগত থাকেন। পাশাপাশি তারা যেন নিজস্ব প্রকৌশলী দিয়ে ভবন মনিটরিং করান, আমাদের জানালে আমরাও আসবো। তাদের কাছে থাকা অনুমোদিত নকশা থেকেই তাদের অনিয়ম দেখানো হয়েছে।'

এদিকে, আগে থেকেই নোটিশ না দিয়ে অভিযান পরিচালনা করা হয় বলে অভিযোগ করেন বেশ কয়েক ভবন মালিক। তবে ভবন মালিকদের এসব দাবিকে অযৌক্তিক ও অবান্তর বলছেন রাউজক কর্মকর্তারা।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জেসমিন আক্তার বলেন, 'অনুমোদনের সময়ই নকশা মেনে ভবন নির্মাণের শর্ত দেয়া হয়। এর কোনো ব্যত্যয় ঘটলে রাজউক তাদের বিরুদ্ধে যেকোনো আইনগত ব্যবস্থা নিলে কোনো ধরনের আপত্তি থাকবে না, এই শর্ত মেনেই নকশার অনুমোদন নিয়েছেন ভবন মালিকরা।''

অবৈধ স্থাপনা অপসারণে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান রাজউক কর্মকর্তারা।