SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ২৩-০২-২০২০ ০৩:৪৬:২২

খাল খনন কাজে বাধা, বোরো চাষ নিয়ে দুশ্চিন্তায় কৃষকরা

khail

খনন কাজে বাধা দেয়াতে মৌলভীবাজার হাইল হাওরের ছড়া (খাল) খনন কাজ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এতে এলাকার কৃষকরা বোরো চাষাবাদ থেকে বঞ্চিত হওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গল উপজেলার অন্যতম বৃহত্তম হাওর হাইল হাওর। অভিযোগ রয়েছে, এ হাওরটির খাইছড়া, ভাতুরিছড়া ও হাকালুকি ছড়ার জমি কতিপয় প্রভাবশালী লোকের দখলে। সেখানে বসত ভিটাছাড়াও মৎস্য খামার গড়ে তুলা হয়েছে। এতে এ ছড়ার স্বাভাবিক পানি প্রবাহ বাধাগ্রস্ত হয়ে আসছে। 

এলাকার কৃষকরা জানান, এক সময় এ তিনটি ছড়ার পানিতে প্রতি বোরো মৌসুমে ব্যাপক বোরো ফসল চাষাবাদ হতো। কিন্তু এলাকার কতিপয় প্রভাবশালী লোকজন এ ছড়াগুলো দখল করায় তা একেবারে ভরাট হয়ে গেছে। বিভিন্ন স্থানে কচুরিপানা ও পলিবালি জমে ছড়ার অস্তিত্ব বিলীন হতে বসেছে। 

এলাকার কৃষকরা দীর্ঘদিন ধরে এ ছড়া তিনটি খননের দাবি জানিয়ে আসছেন। কৃষকদের দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে জাইকা প্রকল্পের অর্থায়নে এ ছড়া খনন কাজের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। নিয়ম অনুযায়ী স্থানীয় জাগছড়া পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতি লিমিটেড এ কাজের দায়িত্ব পায়। 

গত ৩ ফেব্রুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে খনন কাজের উদ্বোধন করা হয়। এরইমধ্যে নানা বাঁধা বিপত্তি কাঁটিয়ে প্রায় সাড়ে চার কিলোমিটার খনন কাজ সম্পন্ন হয়েছে। অভিযোগে জানা গেছে, ভাতুরিছড়া ও খাইছড়া খনন কাজ করতে গেলে প্রভাবশালীরা তাদের জমি দাবি করে খনন কাজে বাঁধা দিচ্ছে। এতে ছড়া খনন কাজ এখন অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে। 

সংগঠনের সভাপতি মো. আসাদ মিয়াসহ এলাকার একাধিক কৃষকের সাথে কথা হয়। তারা জানিয়েছেন, হাইল হাওরের এ ছড়া খনন কাজ সম্পন্ন হলে শ্রীমঙ্গল ইউনিয়নের প্রায় পাঁচ হাজার হেক্টর জমিতে কয়েক হাজার কৃষক বোরো চাষাবাদ করতে পারবে। এদিকে খনন কাজে বাধাপ্রাপ্ত হয়ে কমিটির লোকজন ২২ ফেব্রুয়ারি শ্রীমঙ্গল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।