SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ২২-০২-২০২০ ০৯:২৬:৫৭

ব্যর্থতার দায় নিয়েই বিদায় নিতে হচ্ছে মেয়র নাছিরকে

ctg-city-prob-22

নগরীর সড়কগুলোকে যান চলাচলের উপযোগী করতে না পারার পাশাপাশি জলাবদ্ধতা নিরসনে ব্যর্থতার দায় নিয়ে বর্তমান মেয়র আ জ ম নাছিরকে বিদায় নিতে হচ্ছে। এ অবস্থায় বিদ্যমান এ সমস্যা দূরীকরণের চ্যালেঞ্জ কতটুকু মোকাবিলা করতে পারবেন আগামী দিনের মেয়র। তবে পরিকল্পিত একটি নগরী গড়ে তুলবেন নতুন নগরপিতা এমন প্রত্যাশা সাধারণ মানুষের।

অন্যদিকে আইনগতভাবে মেয়রের ক্ষমতা আরো বাড়ানো না হলে তার পক্ষে কাঙ্ক্ষিত নগর গড়ে তোলা সম্ভব নয় বলে মনে করেন নগর পরিকল্পনাবিদরা।

৬০ বর্গমাইলের এই চট্টগ্রাম নগরীর প্রধান সমস্যা জলাবদ্ধতা। বর্ষা ও বৃষ্টির প্রয়োজন হয় না, যে কোনো মৌসুমের এক পশলা বৃষ্টিতেই নগরী তলিয়ে যায় হাঁটু সমান পানিতে। হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ করেও জলাবদ্ধতার অভিশাপ থেকে এখনও মুক্তি মেলেনি নগরবাসীর। এছাড়া আগ্রাবাদ এক্সেস রোডসহ বেশ কয়েকটি প্রধান সড়কের অবস্থা নাজুক। রাস্তা ভাঙাচোরা হওয়ায় বছরের পর বছর দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে মানুষজনকে। ফুটপাত দখলমুক্ত, সিডিএ, ওয়াসা ও সিটি করপোরেশনের মধ্যে কোনো ধরনের সমন্বয় করতে না পারার কারণে বর্তমান মেয়র আ জ ম নাছির দলীয় মনোনয়ন পাননি বলে মনে করেন নগরবাসী।

এলাকাবাসী বলেন, রাস্তাঘাটের উন্নয়ন হয়নি বিদায় বর্তমান মেয়র মনোনয়ন পাননি। 

নগরপিতা হিসেবে যিনি দায়িত্ব নেবেন জলাবদ্ধতামুক্ত, দূষণমুক্ত পরিকল্পিত একটি নগরী হিসেবে গড়ে তুলবেন এ প্রত্যাশা সাধারণ মানুষের। সাধারণ জনগণ বলেন, জলাবদ্ধতা নিরসন হয় নাই। ফুটপাত দখল মুক্ত হয় নাই। দূরদর্শী ও শিক্ষাবান্ধক মেয়র চাই আমরা। 

নগর পরিকল্পনাবিদরা বলছেন, আইনগতভাবে সিটি মেয়রের ক্ষমতা আরো বাড়ানো না হলে তার পক্ষে কোনোভাবেই পরিকল্পিত নগরী গড়ে তোলা সম্ভব নয়।

নগর পরিকল্পনাবিদ আশিক ইমরান বলেন, সবগুলো সেবা সংস্থা মেয়রের অধীনে ন্যস্ত করলে তবেই কাঙ্ক্ষিত সুফল পাওয়া যাবে। 

২০১৫ সালের সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে জয়ী হয়েছিলেন আ জ ম নাছির উদ্দীন। তবে এবার দলের মনোনয়ন পেয়েছেন রেজাউল করিম চৌধুরী। আর বিএনপি এখনো মনোনয়ন চূড়ান্ত করেনি। আগামী ২৯ মার্চ এ সিটি করপোরেশনের ভোটগ্রহণ হবে।