SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ১৮-০২-২০২০ ১৮:৩৪:০৯

যৌতুকের টাকা ফেরত না দেয়ায় গৃহবধূ হত্যা, শ্বশুর আটক

thakurgoan

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার রহিমানপুর ইউনিয়নে আমগাছ থেকে নাজমা আক্তার (২২) নামের এক গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সকালে গৃহবধূর স্বামীর বাসার পাশের একটি আমগাছ থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে নিহত গৃবধূর শ্বশুর বাচ্চা বাবুকে আটক করেছে সদর পুলিশ।

নিহত গৃহবধূর পরিবারের অভিযোগ, রাতে নাজমার স্বামী সাদ্দাম ও  শ্বশুরবাড়ির লোকেরা মোবাইল ফোনে ডেকে এনে তাকে হত্যা করেছে। নিহত নাজমা বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার গোয়ালকারী গ্রামের নাজমুল হকের মেয়ে। নাজমার ৯ মাস বয়সী মেয়ে রয়েছে।

পুলিশ জানায়, আজ (মঙ্গলবার) সকালে স্থানীয়রা গৃহবধূর মরদেহ গাছে ঝুলতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় একজনকে আটক করার পর পরিবারের অন্য সদস্যরা পলাতক রয়েছে বলে জানায় পুলিশ।

গৃহবধূর মামা সামশুল অভিযোগ করে বলেন বলেন, প্রায় দুই বছর আগে সদর উপজেলার রহিমানপুর খালপাড়া গ্রামের বাচ্চা বাবুর ছেলে সাদ্দামের সঙ্গে বিয়ে হয় নাজমার। গত তিন মাস আগে সাদ্দামের সঙ্গে  শালিস বৈঠকে নাজমাকে তালাক হয়। বিয়ের সময় ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা যৌতুক নিলেও তালাকের সময় ৮০ হাজার টাকা নাজমার পরিবারকে ফেরত দেয় সাদ্দাম। মেয়েকে দেখার কথা বলে সাদ্দাম নাজমাকে ১৫ ফেব্রুয়ারি মোবাইলে বাড়িতে নিয়ে আসে এবং নাজমার পরিবারের কাছে সেই ৮০ হাজার টাকার জন্য চাপ দেয়। আমরা টাকা দিতে রাজি না হলে সোমবার রাতে নাজমাকে হত্যা করে গাছে ঝুলিয়ে রাখে সাদ্দামের পরিবার। 

এ বিষয়ে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) গোলাম মুর্তজা জানান, মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। সুরতহাল রিপোর্টের পরে প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে। এ ঘটনায় নিহতের শ্বশুরকে আটক করা হয়েছে।