SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ১৮-০২-২০২০ ১৩:৩০:৪৭

ভাইস চেয়ারম্যানদের অর্থ আত্মসাৎ করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান

samser-mobin

নরসিংদীর বেলাব উপজেলা চেয়ারসম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সমসের জামান ভূঁইয়া রিটনের বিরুদ্ধে ভাইস চেয়ারম্যানদের সম্মানী ভাতা, ভ্রমণ ভাতা ও আপ্যায়ন ভাতা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জেলা প্রশাসকের কাছে আইনগত সুরাহা চেয়ে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের প্যাডে লিখিত অভিযোগ করেছেন ভাইস চেয়ারম্যানরা।

লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, বেলাব উপজেলার পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান মো. মনিরুজ্জামান ভূঁইয়া জাহাঙ্গীর ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শারমিন আক্তার খালেদা প্রতি মাসের ৩-৪ তারিখে সোনালী ব্যাংক বেলাব শাখা থেকে নিজেদের সম্মানী ভাতা উত্তোলন করেন। গত বছরের নভেম্বরের মাসিক ভাতা ২৭ হাজার, ভ্রমণ ভাতা ৮ হাজার এবং আপ্যায়ন ভাতা পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যানের ৪ হাজার ৪২১ টাকা ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের ৪ হাজার ৩৬৬ টাকার চেক যথারীতি অফিস সহকারী তৌফিক আফ্রাদের কাছে চাইলে তিনি জানান, উপজেলা চেয়ারম্যান পুরো চেক বই তার কাছ থেকে নিজের হেফাজতে নিয়ে গেছেন।

ভাইস চেয়ারম্যানরা বিষয়টি নিয়ে চেয়ারম্যানের কাছে জানতে চাইলে তিনি এ বিষয়ে পরে কথা বলবেন বলে জানান। পরবর্তীতে সোনালী ব্যাংকে গিয়ে জানা যায়, চেয়ারম্যান গত ৪ ডিসেম্বর সকালে ওই টাকা উত্তোলন করে ফেলেছেন। বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করলে তিনিও চেয়ারম্যানকে দ্রুত সুরাহা করার অনুরোধ করেন। কিন্তু দুই মাস অতিবাহিত হয়ে গেলেও বিষয়টি কোনো সুরাহা হয়নি।

এ ঘটনায় দ্রুত আইনগত সুরাহা চেয়ে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শারমিন আক্তার খালেদার প্যাডে দু’জনই স্বাক্ষর করে জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। এছাড়া স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী, শিল্পমন্ত্রী, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সচিব, বিভাগীয় কমিশনারের কাছে অভিযোগের অনুলিপি দেন তারা।

ভাইস চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান ভূঁইয়া জাহাঙ্গীর বলেন, ব্যাংক থেকে এমনকি চেয়ারম্যানের ঘনিষ্ঠজনদের মাধ্যমে বলা হয়েছে বিষয়টি সমাধান করার জন্য। কিন্তু তিনি তা করছেন না। তাই বাধ্য হয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে অভিযোগ দিয়েছি।

এ বিষয়ে সোনালী ব্যাংকের বেলাব শাখার ব্যবস্থাপক আমিনুল ইসলাম বলেন, চেয়ারম্যান সাহেব ভাইস চেয়ারম্যানদের না জানিয়ে টাকাটা উত্তোলন করে ফেলেছেন। বিষয়টি দুঃখজনক। তাই ভাইস চেয়ারম্যান যখন আমার কাছে আসছিলেন তখনই তাদের নিজেদের নামে আলাদা আলাদা হিসাব খুলে দিয়েছি। এখন তাদের হিসাবে টাকা জমা হবে।

এদিকে উপজেলা চেয়ারম্যান সমসের জামান ভূঁইয়া রিটন বলেন, যেহেতু জেলা প্রশাসকের কাছে অভিযোগ দেয়া হয়েছে। নিশ্চয় তদন্ত হবে। এ ব্যাপারে আমি কোনো মন্তব্য করব না।