SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ২৯-০১-২০২০ ১৩:২৫:৪৩

মায়ের কোল থেকে নিয়ে নির্মমভাবে পিটিয়ে মারা হল কুকুর ছানাগুলি

dog-kill

চারটি কুকুর শাবক হত্যার ঘটনায় আলমডাঙ্গা থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পিপলস ফর এনিমেল নামক সংগঠনের আবেদনের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার (২৯ জানুয়ারি) রাতে উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসার থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযুক্ত থানাপাড়ার ধনাঢ্য রূপক মিয়ার গাড়ির হেলপার সামিউল।

জানা গেছে, আলমডাঙ্গা থানার উত্তর পাশের সিমানা প্রাচীরের কাছে পড়েছিল মৃত ৪টি কুকুরের বাচ্চা।

আলমডাঙ্গা থানাপাড়ার একাধিক প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, গত ২২ জানুয়ারি দুপুরে প্রকাশ্যে মায়ের বুক থেকে কুকুরের বাচ্চাগুলিকে ধরে নিয়ে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যা করে ফেলে রাখা হয়েছে।

তারা বলেন, যখন কুকুর শাবকগুলিকে নৃশংসভাবে পিটিয়ে হত্যা করা হচ্ছিল, সে সময় বাচ্চাগুলির শোকাহত মা কিছুটা দূরে অসহায় দাঁড়িয়ে এ হৃদয় বিদারক দৃশ্য দেখে অনবরত চোখের পানি ঝরাচ্ছিল।

এ পৈশাচিক দৃশ্যে প্রত্যক্ষদর্শীদের হৃদয় রক্তাক্ত হলেও মানবিক বোধোদয় ঘটেনি নিরীহ কুকুর ছানা হত্যাকারীর। প্রত্যক্ষদর্শীদের নিষেধ শোনেননি তিনি।

এ ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ সোচ্চার হয়ে উঠে।

দাবি উঠেছে প্রাণী অধিকার আইনে -২০১৯ আওতায় শাস্তির। এরই প্রেক্ষিতে গতকাল মঙ্গলবার (২৮ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার লিটন আলী, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডাক্তার আব্দুল্লাহ-হেল কাফি ও আলমডাঙ্গা থানার ওসি তদন্ত গাজী শামীমুর রহমান ও এস আই হেলেনা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। তারা ঘটনার সত্যতা পান।

এ সম্পর্কে রূপক মিয়া জানান, ঘটনার সাথে তিনি জড়িত নন, এমনকি তিনি জানেনও না। তার কোন হেলপার জড়িত থাকলেও বিষয়টি সম্পর্কে কেউ তাকে কিছু অবহিত করেননি। গাড়ির হেলপার সামিউল এমন ঘটনা ঘটালে তার বিরুদ্ধে আমি নিজে ব্যবস্থা নেব।

মঙ্গলবার পিপলস ফর এনিমেল নামক সংগঠনের আলমডাঙ্গা প্রতিনিধি সাদ্দাম হোসেন এ ঘটনায় উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা বরাবর লিখিত আবেদন করেছেন প্রাণী অধিকার আইন ২০১৯ জানুয়ারি ব্যবস্থা গ্রহণের। এরই প্রেক্ষিতে রাতে উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ হেল কাফি এ ঘটনায় বন্য প্রাণী সংরক্ষণ আইনের ৭ ধারার ২ উপধারায় থানায় প্রসিকিউশন দায়ের করেন।

আলমডাঙ্গা থানার ওসি তদন্ত গাজী শামীমুর রহমান বলেন, উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা থানায় অভিযুক্ত সামিউলের বিরুদ্ধে প্রসিকিউসন দাখিল করেছে। আইনগত প্রক্রিয়া শেষে প্রসিকিউসনটি আদালতে প্রেরণ করা হবে। এটি একটি দুঃখজনক ঘটনা।