SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon খেলার সময়

আপডেট- ২০-০১-২০২০ ০১:০৬:০৫

আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ না থাকায় সাফল্য আসছেনা হ্যান্ডবল

somoy-sports

বছরজুড়ে মাঠেই আছে খেলা। তবে নেই আন্তর্জাতিক পদচারণা। এভাবেই চলছে হ্যান্ডবল ফেডারেশন। জাতীয় পর্যায়ের সব ধরণের টুর্নামেন্ট আয়োজন হলেও আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ না থাকায়, বৈশ্বিক অঙ্গনে আসছেনা সাফল্য। মনে করেন খেলোয়াড়রা। বরাবরের মতোই আর্থিক সংকটকে প্রধান অন্তরায় হিসেবে দাঁড় করালেন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক।

এই হ্যান্ডবল স্টেডিয়ামটা সারাবছরই এমন মুখর থাকে। স্কুল টুর্নামেন্ট থেকে শুরু করে জাতীয় পর্যায়, বয়সভিত্তিক টুর্নামেন্ট থেকে বিভিন্ন লিগ টুর্নামেন্ট সহ পুরুষ ও নারী বিভাগে বছরে ডজনখানেক টুর্নামেন্ট আয়োজন করে হ্যান্ডবল ফেডারেশন।

এবার নজর দেয়া যাক বৈশ্বিকঅঙ্গণে। পুরো বছরে পুরুষ দল খেলেছে কেবল দুটো আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে। বছরের শুরুর দিকে পাকিস্তানে আইএইচএফ কাপের পর, শেষভাগে নেপালে এসএ গেমস। নারী দলের অবস্থা আরো নাজুক। সারা বছরে কেবল এসএ গেমসে অংশ নেয়া ছাড়া বিশ্বআসরে আর কোন পদচারণা নেই নারী হ্যান্ডবল খেলোয়াড়দের। ফলাফলও যা হওয়ার তাইই। ৭ দলের এসএ গেমসে পুরুষ দল হয়েছে চতুর্থ, তৃতীয় হয়ে মেয়েদের অর্জন একটি ব্রোঞ্জপদক।

বড় কোন আসর কিংবা বিদেশি কোন দলের সঙ্গে খেলতে না পারায়, সারাবছর মাঠে থেকেও খেলোয়াড়রা বুঝতে পারেননা বিশ্ব হ্যান্ডবলের প্রেক্ষাপটে তাদের অবস্থান ঠিক কোথায়?

আবির হোসেন বলেন, দেশের মধ্যে আমাদের থেকে ভালো প্লেয়ার আর নেই। আমরা ন্যাশনাল টিমে প্লেয়ার, আমরা যদি বাইরের দেশের সঙ্গে না খেলি তাহলে কীভাবে বুঝবো আমরা শক্তি কতটা?

সোহানুর রহমান বলেন, আমরা দুই বছর পরপর আন্তর্জাতিক ম্যাচে খেলছি। কিন্তু আমরা সাফল্য পায়নি।

প্রতিষ্ঠার পর থেকে এই ফেডারেশনের শীর্ষ পদে আছেন সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান কোহিনূর। বরাবরের মতোই এবারও তিনি গাইলেন সেই পুরনো গান। দুষলেন আর্থিক সংকটকে।

কোহিনূর বলেন, যখন আমরা বিদেশে খেলতে যাই সেখানে পুরুষ ও নারী মিলে ৪০ জন সদস্য থাকে। এই সদস্যের যাওয়া আসা এবং থাকা খাওয়া বেশ বড় অঙ্কের খরচের ব্যাপার। এটা আমাদের পক্ষে একা বহন করা সম্ভব না। সেজন্য এরকম সফরে যদি আমাদেরকে সাহায্য সহযোগিতা করা হয় তাহলে বাইরে গিয়ে আমরা খেলতে পারবো।

প্রতিযোগিতার যুগে অন্যান্য দেশগুলো যখন দিনেদিনে এগিয়ে যাচ্ছে শ্রেষ্ঠত্বের দিকে, সেখানে বিশ্বআসর নিয়ে খুব একটা ভাবনাও নেই এই হ্যান্ডবল ফেডারেশনের।