SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ১৪-০১-২০২০ ২১:১০:৫২

সেনাবাহিনীর সহায়তায় ‘হ্যাপি হিল প্যারা স্কুল’ ফের চালু

army

সেনাবাহিনীর সহায়তায় পুনরায় চালু হলো বান্দরবানের রুমা উপজেলার হ্যাপি হিল প্যারা স্কুল। সেনাবাহিনীর রুমা জোনের সহায়তায় স্কুলটি মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) সকাল ১১টায় স্কুলটি চালু হয়।

স্কুলটি ২০০৬ সালে ক্রিশ্চিয়ান কমিশন ডেভেলপমেন্ট ইন বাংলাদেশ (সিসিডিবি) কর্তৃক নির্মিত হয়েছিল। অবকাঠামোগত ও অর্থায়নের সমস্যার কারণে ২০১৬ সাল থেকে এটি বন্ধ ছিল। 

স্কুলটি চালু হওয়া উপলক্ষে রুমা সেনা জোন থেকে শিক্ষার্থীদের জন্য ১০ সেট টেবিল এবং বেঞ্চ, ব্ল্যাকবোর্ড, বই, খাতা এবং শুকনো খাবার সরবরাহ করা হয়েছে।

সরকারের শিক্ষা প্রসারের কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করতে পার্বত্য চট্টগ্রামে নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছে সেনাবাহিনী। এখানে সেনাবাহিনীর সরাসরি অর্থায়ন ও উদ্যোগে বেশ কিছু প্রাথমিক বিদ্যালয়, উচ্চ বিদ্যালয় এবং কলেজ পরিচালিত হচ্ছে। এছাড়াও, সেনাসদস্যরা বিভিন্ন স্কুল, কলেজগুলোতে বিনামূল্যে চেয়ার-টেবিল, বই, খাতা, কলম, আসবাবপত্রসহ বিভিন্ন ধরনের শিক্ষা সামগ্রী প্রদান করে থাকে এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও দরিদ্র শিক্ষার্থীদেরকে আর্থিক সহায়তাও দিয়ে থাকে।

পাশাপাশি দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় সেনাসদস্যরা পাঠশালা প্রোগ্রাম পরিচালনার মাধ্যমে স্থানীয় শিশুদেরকে স্কুলে যেতে উৎসাহিত করে থাকে। ডিজিটাল স্কুল প্রতিষ্ঠা করে রাঙামাটির সাজেকের মত দুর্গম এলাকাতেও শিক্ষার আলো পৌঁছে দিচ্ছে সেনাবাহিনী। সেই সাথে পিছিয়ে পড়া উপজাতি জনগোষ্ঠীর শিক্ষার মান উন্নয়নে তাদের জন্য আবাসিক হোস্টেল নির্মাণ করেও শিক্ষা ক্ষেত্রে অবদান রাখছে সেনাবাহিনী। বান্দরবানের আলীকদম উপজেলায় মুরং কমপ্লেক্স, রুমা উপজেলার বম হোস্টেল এবং রাঙামাটির ঘাগড়াতে ত্রিপুরা মহিলা হোস্টেল যার প্রকৃত উদাহরণ।

পার্বত্য চট্টগ্রামে শিক্ষা বিস্তারে সেনাবাহিনীর এই অব্যাহত কর্মকাণ্ডে নতুন করে যুক্ত হলো বান্দরবান জেলার রুমা উপজেলার হ্যাপি হিল প্যারা স্কুল।

সেনাবাহিনীর এই মহৎ উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন শিক্ষার্থীদের অভিভাবকসহ স্থানীয় সকল জনসাধারণ। পার্বত্য চট্টগ্রামে শিক্ষার বিস্তারে সেনাবাহিনীর এধরনের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে রুমা জোন কমান্ডার জানান।