SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ০৬-০১-২০২০ ০৯:৪৯:২১

ছেলেকে বাঁচাতে বাবা খুন, ধরাছোঁয়ার বাইরে ১২ আসামি

chand-murder

চাঁদপুরে তুচ্ছ ঘটনার জেরে ছেলেকে বাঁচাতে গিয়ে বাবাকে দিনেদুপুরে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে প্রধান আসামি সোহেলসহ ১২ আসামি। এ ঘটনায় দ্রুত সময়ের মধ্যে হত্যাকারীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছেন স্বজন ও এলাকাবাসী। গত ৩১ ডিসেম্বর এ ঘটনা ঘটে।

শাহারাস্তি উপজেলার শোরাশক বাজারের একটি চায়ের দোকানে গত ৩১ ডিসেম্বর কয়েকজন স্কুল ছাত্র বসে চা পান করছিল। স্থানীয়দের অভিযোগ, এ সময় এলাকার চিহ্নিত গ্যাং লিডার সোহেল ও তার সঙ্গীরা দোকানে বসাকে কেন্দ্র করে মুন্না, সাইফুলসহ বেশ কয়েকজন স্কুল ছাত্রকে বেধড়ক মারধর করে।

ঘটনাটি স্কুল কমিটিকে জানাতে চাইলে মুন্নার বাড়িতে অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় সোহেল ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী। এ সময় ছেলেকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে মুন্নার বাবা দিনমজুর রফিকুল ইসলামকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করা হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। কুপিয়ে আহত করা হয় আরো বেশ কয়েকজনকে।

নির্যাতিতদের একজন বলেন, 'দোকানে গিয়ে নাস্তা খাচ্ছিলাম এমন সময় সন্ত্রাসীরা দোকানে ঢুকে আমাদের ধাক্কা দিয়ে উঠায়ে দিছে।'

নিহত দিনমজুর রফিকুল ইসলামের স্ত্রী বলেন, 'আমার বাড়ির সামনে এসে আমার স্বামীকে কুপায়ে কুপায়ে খুন করছে।'

এই সন্ত্রাসী দলের বিরুদ্ধে এরআগেও নানা অভিযোগ রয়েছে বলে জানান এলাকাবাসী। হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূল শাস্তির দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও এলাকাবাসী।

চাঁদপুর শাহরাস্তি সূচিপাড়া উত্তর ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল বলেন, 'বিভিন্ন সময় অপরাধ ঘটিয়ে আজকে তারা খুনের মতো কাজ করেছে। আমরা এ ঘটনায় এলাকার পক্ষ থেকে বিচার চাই।'

ঘটনার দিন নিহতের স্ত্রী শাহারাস্তি থানায় ১৩ জনেক আসামি করে হত্যা মামলা করলেও মাত্র একজন আসামিকে আটক করতে পেরেছে পুলিশ।

চাঁদপুর শাহরাস্তি থানা উপ পরিদর্শক আব্দুল আউয়াল বলেন, 'আমরা আসামি ধরতে অভিযান চালিয়েছি। একজনকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।'

হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে রোববার বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করেছেন স্বজন ও এলাকাবাসী।