SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon প্রবাসে সময়

আপডেট- ২১-১১-২০১৯ ১৮:১২:২৬

ওমানে সুলতানের জন্মদিন ও ক্ষমতা গ্রহণের ৫০ বছর উদযাপন

oman

ওমানের সুলতান, সুলতান কাবুস বিন সাঈদ আল সাঈদের ক্ষমতা গ্রহণের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে একদিন বাড়িয়ে মোট তিন দিনের (১৮-২০ নভেম্বর) সাধারণ ছুটি ঘোষণা দেয়া হয়। ১৯ নভেম্বর ওমানের স্বাধীনতা দিবস, ১৮ নভেম্বর সুলতান কাবুস এর জন্মদিন, সঙ্গে সুলতানের ক্ষমতা গ্রহণের ৫০ বছরে পা রাখার বছর এইটি। তাই এই বছরটি স্মরণীয় করে রাখার জন্য দেশব্যাপী ব্যাপক আয়োজন করা হয়। আলোক সজ্জার বাহারি সাজে সাজানো হয় সারা দেশ।

দিনটি ছিলো ১৯৭০ সালের ২২ জুলাই; যেদিন সুলতান কাবুস আনুষ্ঠানিকভাবে তার পিতার নিকট হতে ক্ষমতা গ্রহণ করেন। বর্তমানে তার বয়স ৭৯ বছর।

তাই ওমান পৃথিবীর প্রাচীন জনপদের মধ্যে একটি। ১ লাখ ৬ হাজার বছর আগে থেকে ওমানে মানব বসতির আলামত পাওয়া যায়। ১৬৫১ সালে ওমান পর্তুগাল হতে স্বাধীনতা লাভ করে। সুলতান কাবুস ১৯৭০ সালে ক্ষমতা গ্রহণ করার সময় ওমান জুড়ে ছিল মাত্র ৩টি স্কুল এবং কোনো একটি ভালো হোটেল ছিলো না সারা দেশে। খাবার পানির অভাব ও যোগাযোগ ব্যবস্থা ছিল খুবই খারাপ। ১৯৮৬ সালে প্রতিষ্ঠিত দেশের প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় 'সুলতান কাবুস বিন সাঈদ আল সাঈদ বিশ্ববিদ্যালয়' বর্তমানে মধ্য প্রাচ্যের গুরুত্বপূর্ণ বিদ্যাপীঠ। ২০১৭ সালের হিসেব অনুযায়ী ওমানে বর্তমানে শিক্ষার হার ৯১.১ ভাগ। তেলের পর পর্যটন, মৎস্য এবং খেজুর দেশটির আয়ের অন্যতম উৎস। পৃথিবীর মধ্যে ওমানি ঘোড়া বেশ জনপ্রিয়।

দেশটিতে যোগ্যতা এবং মেধার বিচারে ছেলেদের চেয়ে মেয়েদের এগিয়ে রাখা হয়। তাই পৃথিবীতে একমাত্র দেশ ওমানের বিশ্ববিদ্যালয়ে ছেলেদের জন্য ভর্তির কোটা ব্যবস্থা প্রচলিত আছে।

ওমান উপ সাগরের তীরে ওমানের রাজধানী মাসকাট এখন ব্যবসায়ীদের জন্য আকর্ষণীয় স্থান। এখানে ব্যবসা করতে কোনো ট্যাক্স দিতে হয় না। ওমানে প্রায় ছয় লাখ বাংলাদেশী বিভিন্ন ক্ষেত্রে কর্মে নিয়োজিত।

১৯৯৬ সালের নভেম্বর মাসে ওমানে প্রথম লিখিত সংবিধান রচিত হয়। দুজন নারীসহ ৮৩ জন সদস্য নিয়ে মজলিসে সূরা দেশটি নিয়ন্ত্রণ করেন। এক লাখ ভোটারের ভোটে তারা নির্বাচিত হন। তবে এদেশে সুলতানের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গণ্য হয়। 

মধ্যপ্রাচ্যের রাজনৈতিক সমীকরণে ওমানের সুলতান ও তার নেতৃত্বের  প্রশংসা করতেই হয়।  ইরাক যুদ্ধের সময় ওমান ইরাকের সঙ্গে কূটনীতিক সম্পর্ক রক্ষা করে চলে, বিপরীতে সঙ্গে সঙ্গে জাতিসঙ্ঘের মিত্র বাহিনীতে যোগ দিয়ে সকল ধরনের সহযোগিতা প্রদান করে। আয়াতুল্লাহ আলী খোমেনী ইরানের ক্ষমতায় আসার পর সুলতান কাবুস প্রথম কোনো রাষ্ট্রপ্রধান হিসাবে ইরান সফর করেন। ইরান, যুক্তরাষ্ট্র, সৌদি আরবসহ মধ্য প্রাচ্যের সকল পক্ষের জন্য বিশ্বাসী বন্ধু ওমানের সুলতান কাবুস বিন সাঈদ।

হিউম্যান রাইটস এর মতে সংবাদপত্রে মত প্রকাশের অধিকার নেই ওমানে। তবে সন্ত্রাস মুক্ত শান্তিপূর্ণ দেশ ওমান। মধ্যপ্রাচ্যের মুসলিম শাসকদের মধ্যে সুলতান  কাবুস সবচেয়ে বেশি সময় ধরে ক্ষমতা আছেন। পৃথিবীর ইতিহাসে তৃতীয়  দীর্ঘকালীন ক্ষমতায় আসীন ব্যক্তি ওমানের সুলতান। সুদীর্ঘ প্রায় পাঁচ দশকের    ক্ষমতাকালে দেশের উন্নয়নে শিক্ষা, চিকিৎসা, যোগাযোগ, পর্যটন ও অবকাঠামোগত ক্ষেত্রে বিপুল উন্নয়ন করেছেন। তাই তিনি জনসাধারণের নিকট অত্যন্ত জনপ্রিয়। ব্যক্তি জীবনে নিঃসন্তান এই সুলতান তার ক্ষমতা ৫০ বছর পূর্ণ করতে পারবেন কি না তা নিয়ে প্রজারা চিন্তিত। কারণ তাদের সুলতান কয়েক মাস যাবত মরণ ব্যাধি ক্যান্সারে ভুগছেন।