SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon খেলার সময়

আপডেট- ১৬-১১-২০১৯ ০২:৪৭:০৯

ঝিনাইদহে অনুষ্ঠিত হলো গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠিখেলা

jhenai-stick

ঝিনাইদহে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠিখেলা। সদর উপজেলার ঘোড়ামারা গ্রামে এ খেলার আয়োজন করে মরমী লোককবি ইদু বিশ্বাস স্মৃতি সংরক্ষণ পরিষদ। লাঠিখেলা দেখতে সেখানে ভিড় করে বেশ কয়েকটি গ্রামের অসংখ্য দর্শক। লাঠিখেলাকে কেন্দ্র করে পুরো এলাকা পরিণত হয় উৎসবের নগরীতে।

চারদিকে ঢাকঢোল আর কাসার ঘণ্টার বাজনা। বাদ্যের তালে তালে লাঠিয়ালদের কসরত। যা দেখতে দূর দূরান্ত থেকে ছুটে আসেন শত শত নারী পুরুষ। দর্শকদের আনাগোনায় মুখর হয়ে পড়ে পুরো এলাকা। উৎসবের নগরীতে রূপ নেয় ঘোরামারা গ্রাম।

নানা রংয়ের পোশাকে সেজে দুপুরের পর থেকেই খেলা শুরু করে লাঠিয়াল সর্দাররা।বাদ্যের তালে তালে লাঠিয়ালরা আক্রমণ করেন একে অন্যকে। প্রতিপক্ষের লাঠির আঘাত থেকে নিজেকে রক্ষা আর কৌশলে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে মেতে ওঠেন তারা। চমৎকার এ আয়োজন ঘোরের রাজ্যে নিয়ে যায় সমর্থকদের।

আধুনিক প্রযুক্তির দৌরাত্ম্যের মাঝেও এমন আয়োজনে উচ্ছ্বসিত দর্শকরা। ধারাবাহিকভাবে এ আয়োজনের দাবি জানান তারা।

দর্শকদের আনন্দ দিতে পেরে খুশি লাঠিয়ালরাও। সরকারি পৃষ্ঠপোষকতার মাধ্যমে গ্রামীণ এ খেলার ঐতিহ্য ধরে রাখার অনুরোধ জানান তারা।

এখানে খেলতে আসা এক লাঠিয়াল বলেন, মানুষের আনন্দ মানে আমারও আনন্দ। তবে দিন দিন এ খেলা হারিয়ে যাচ্ছে, সরকারী পৃষ্ঠপোষকতা পেলে এ খেলা টিকে থাকবে।

গ্রামীণ ঐতিহ্যকে তুলে ধরার পাশাপাশি হারিয়ে যাওয়া খেলাধুলাকে ফিরিয়ে আনতেই এমন আয়োজন করা হয়েছে বলে জানান আয়োজকরা।

আয়োজক মিরাজ মণ্ডল বলেন, লাঠিখেলা আমাদের গ্রামীণ ঐতিহ্য, আর এই ঐতিহ্য ধরে রাখতেই এ খেলার আয়োজন করেছি।

লাঠিখেলায় ঝিনাইদহের ৬টি উপজেলা থেকে ১৫টি লাঠিয়াল দল অংশ নেয়। খেলা শেষে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেয়া হয়।