SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon খেলার সময়

আপডেট- ১৬-১১-২০১৯ ০২:১৮:০৭

মন্টিনিগ্রোকে গোল বন্যায় ভাসিয়ে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের চূড়ান্ত পর্বে ইংল্যান্ড

fra-por-win

এর আগে মন্টিনিগ্রোকে গোল বন্যায় ভাসিয়ে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের চূড়ান্ত পর্ব নিশ্চিত করে ইংল্যান্ড। ফুটবল ইতিহাসে নিজেদের এক হাজারতম ম্যাচটিতে থ্রি লায়নরা প্রতিপক্ষের জালে করেছে ৭ গোল। অন্য ম্যাচে লিথুয়ানিয়াকে ৬-০ গোলে উড়িয়ে দিলেও চূড়ান্ত পর্বের টিকিটের জন্য এখনও অপেক্ষা করতে হচ্ছে পর্তুগালকে। এছাড়াও মলদোভাকে ২-১ গোলে হারিয়েছে ফ্রান্স।

একটা মাইলফলকের ম্যাচ এভাবে রাঙ্গাবে ইংল্যান্ড তা হয়তো দেশটির পাঁড় ভক্তরাও আঁচ করতে পারেনি। তবে ওয়েম্বলিতে এদিন ঘটেছে এমন দারুন কিছুই। যার শুরু ১১ মিনিটে হয় চেম্বারলাইনের পা থেকে।

পরের দৃশ্যপটে ইংলিশ কাপ্তান হ্যারি কেইন। ১৮ মিনিটে ব্যবধান করেন দ্বিগুণ। সেই উৎসবের রেশ না কাটতেই নিজের জোড়া গোল পুরণ করে আভাস দেন মন্টিনিগ্রোকে গোল বন্যায় ভাসানোর। সেটা বাস্তবে রূপ নেয় ৩৭ মিনিটে তার হ্যাটট্রিকে। এর আগে র‌্যাশফোর্ড করেন আরো এক গোল!

৫-০ ব্যাবধানে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয়ার্ধ শুরু করা ইংল্যান্ড, এই অর্ধে ম্যাচটাকে নেয় নিরীক্ষার মঞ্চ হিসেবে। সাইড বেঞ্চ ঝালিয়ে নিতে গ্যারেথ সাউথগেট পরিবর্তন আনেন একাদিক। তার পরও ম্যাচ শেষে ব্যবধান দাঁড়ায় ৭-০। আব্রাহামের এক গোলের পাশাপাশি যেখানে অবদান রাখে প্রতিপক্ষের একটি আত্মঘাতি গোল'ও।

এদিকে বি গ্রুপ থেকে চূড়ান্ত পর্ব নিশ্চিত করার মিশনে লিথুয়ানিয়ার জালে পর্তুগাল উৎসব শুরু করে সাত মিনিটে। পেনাল্টি থেকে গোল করে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। এরপর ২২ মিনিটে সি আর সেভেনের দ্বিতীয় স্কোরে জোড়া গোলের লিড নিয়ে বিরতিতে যায় সেলেকাওরা।

ম্যাচের ৫২ থেকে ৬৫! এই ১৩ মিনিটে লিথুয়ানিয়ার ওপর একটা ঝড় বয়ে যায়। যাতে লণ্ডভণ্ড দলটি গোল হজম করে এক হালি। একটি করে গোল করেন পিজ্জি, গঞ্জালো ও বার্নার্দো সিলভা। শেষটায় স্কোর করে নিজের হ্যাটট্রিক পূরণ করেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো।

এইচ গ্রুপ থেকে চূড়ান্ত পর্ব নিশ্চিত করার ম্যাচে মলদোভার বিপক্ষে কঠিন পরীক্ষা দিতে হয়েছে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সকে। ম্যাচের মাত্র ৯ মিনিটেই ভাদিম রাতার গোলে পিছিয়ে পড়ে ফরাসিরা। ৩৫ মিনিটে দলকে সমতায় ফেরান ভারানে।

ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিতে দ্বিতীয়ার্ধে জোর চেষ্টা চালায় ফ্রান্স। ৭৯ মিনিটে দিদিয়ের দেশম বাহিনীর জন্য ত্রাতা হয়ে আসেন অলিভার জিরু। পেনাল্টি থেকে করা তার গোলে স্বস্তির জয়ের পাশাপাশি চূড়ান্ত পর্ব নিশ্চিত করে গেল বারের রানার্সআপরা।