SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ১৫-১১-২০১৯ ১৩:২৪:২০

‘দীর্ঘদিন যারা দলে আছেন তাদেরকেই প্রাধান্য দেয়া হবে’

sebok-council1

কাল অনুষ্ঠিত হচ্ছে স্বেচ্ছাসেবক লীগের তৃতীয় জাতীয় সম্মেলন। সম্মেলনে শীর্ষপদ নিয়ে তৎপর সাবেক ছাত্রনেতারা। দলে অনিয়মিত ও সমালোচিতরাও হচ্ছেন প্রার্থী। নীতি নির্ধারকরা বলছেন, গোয়েন্দা পুলিশের মাধ্যমে নেয়া হচ্ছে নেতাদের খোঁজখবর। নিয়মিত, ত্যাগী ও স্বচ্ছ ভাবমূর্তির নেতা খুঁজছেন তারা।

আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতাদের পুনর্বাসন কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত স্বেচ্ছাসেবক লীগের তৃতীয় জাতীয় সম্মেলন আগামীকাল ১৬ নভেম্বর। এরই মধ্যে সম্পন্ন হয়েছে সংগঠনটির নগর সম্মেলনও। আর জাতীয় সম্মেলনকে ঘিরে পদপ্রত্যাশীদের চলছে শেষ মুহূর্তের দৌড়ঝাপ।

এরইমধ্যে রাজধানী জুড়ে লাগানো হয়েছে পোস্টার ব্যানার ফেস্টুন। কেন্দ্রীয় নেতা ও সংগঠনটির নীতি-নির্ধারকদের কাছে ধরনা দিচ্ছেন তারা। দীর্ঘদিন সম্মেলন না হওয়ার পেছনে সাবেক নেতাদের দায়ী করছেন তারা।

গত সাতবছরেও দলীয় কর্মকাণ্ডে যারা অনুপস্থিত এমন নেতারাও চাচ্ছেন দলটির শীর্ষপদ। নিয়মিত ও পরীক্ষিতদের মূল্যায়নের দাবি পদপ্রত্যাশীদের।

সেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খায়রুল হাসান জুয়েল বলেন, তারা যদি সঠিক সময়ে সম্মেলন করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন করতেন তাহলে নেত্রী তা অবশ্যই গ্রহণ করতেন। কিন্তু নেতৃত্বে অনেকদিন থাকার যে প্রবণতা সেটার জন্যই হয়তো এতদিন সম্মেলনটি হয়নি।

সেচ্ছাসেবক লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ সোহেল রানা টিপু বলেন, যারা পার্টির দুর্দিনে শ্রম দিয়েছেন, তাদের মধ্য থেকেই নেতৃত্ব ঠিক করে দেবেন নেত্রী।

যাদের সাংগঠনিক যোগ্যতা রয়েছে তাদের হাতেই তুলে দেয়া হবে দলটির আগামী নেতৃত্ব, বলছেন নীতি নির্ধারকরা।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, রাজনীতিতে এক দিনেই তো নেতা করা হয় না। যারা দীর্ঘদিন ধরেই দলের সঙ্গে আছেন, তাদেরকে তো আমরা চিনি। তাদের মধ্যে থেকেই নেতৃত্ব দেয়া হবে।

গেল মাসে আওয়ামী লীগের চার সহযোগী সংগঠনের সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা।