SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ১৫-১১-২০১৯ ০২:৪৮:৩৪

বুলবুলের তাণ্ডবে ধানসহ অন্যান্য ফসলের ক্ষতি

jhen-paddy-copy

ঘুর্ণিঝড় বুলবুলের কারণে ঝিনাইদহে টানা বৃষ্টি ও ঝোড়ো হাওয়ায় ক্ষতি হয়েছে ধানসহ অন্যান্য ফসলের। মাঠের পর মাঠের অধিকাংশ ধান মাটিতে নুইয়ে পড়েছে। এতে ফলন কম হওয়ার আশঙ্কা করছেন কৃষকরা। তবে কৃষি বিভাগের কর্মকর্তার দাবি, মাটিতে ধান পড়ে গেলেও প্রভাব পড়বে না ফলনে।

আর ক’দিন পরেই পাকা ধান ঘরে উঠবে কৃষকের। তাদের আশা ছিল গত মৌসুমের লোকসান কিছুটা হলেও কাটিয়ে উঠতে পারবেন। কিন্তু তার আগেই কৃষকের সেই স্বপ্ন তছনছ করে দেয় ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’। ঘূর্ণিঝড়ের কারণে দু’দিনের টানা বৃষ্টি ও ঝোড়ো হাওয়ায় ক্ষতি হয়েছে মাঠের পর মাঠের ধান। জেলার সদর, কালীগঞ্জ, কোটচাঁদপুর ও মহেশপুর উপজেলার বিভিন্ন জমিতে পাকা ও আধাপাকা ধান মাটিতে নুইয়ে পড়েছে। পাশাপাশি ক্ষেতে জমে গেছে পানি। ধানের জমিতে প্রথম দিকে কারেন্ট পোকার আক্রমণে ফলনে কিছুটা ক্ষতি হয় । কিন্তু ঝড়ে ধান মাটিতে পড়ে যাওয়ায় ফলন বিপর্যয়ের আশঙ্কা কৃষকের।

কৃষকরা বলছেন, ধানের দাম কম। বুলবুল ঝড় এসে ধান নষ্ট করে দিয়ে গেছে। আমরা যেটা আশা করেছিলাম সেটা আর পাচ্ছি না। কারণ ধানের ফলন কম পাওয়া যাবে। 

তবে কৃষি কর্মকর্তার দাবি, ধান হেলে পড়লেও তেমন কোনো ক্ষতি হবে না।

ঝিনাইদহ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক জিএম আব্দুর রউফ বলেন, ধান পড়ে যাওয়ার জন্য তেমন কোনও ক্ষতি হবে না। এখন আকাশে রোদ আছে। কৃষকদের আমরা পরামর্শ দিয়েছি যেন তারা ধান কাটা শুরু করেন। 

জেলা কৃষি বিভাগের দেয়া তথ্য মতে, এ বছর ৬টি উপজেলায় রোপা আমন ধানের আবাদ হয়েছে ১ লাখ ৪ হাজার হেক্টর জমিতে। ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাবে প্রায় এক তৃতীয়াংশ জমির ধান ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।।