SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ০৬-১১-২০১৯ ০৪:১০:২২

জটিল হৃদরোগের উন্নতমানের চিকিৎসা চমেকে

ctg-heart

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এখন জটিল হৃদরোগের উন্নতমানের চিকিৎসা করা হচ্ছে। এনজিওগ্রাম থেকে শুরু করে ওপেনহার্ট সার্জারি তুলনামূলক কম খরচেই করা হচ্ছে। পর্যাপ্ত জনবল পাওয়া গেলে সেবার মান আরও কয়েকগুণ বাড়ানো সম্ভব বলে মনে করেন চিকিৎসকরা।

চট্টগ্রাম নগরীর পাশাপাশি বৃহত্তর চট্টগ্রামের ফেনী, নোয়াখালী ,খাগড়াছড়ি, কক্সবাজারসহ বিভিন্ন জেলার রোগীর ভিড় সব সময় লেগেই থাকে চমেকের হৃদরোগ বিভাগে। শয্যা ও মেঝেতে মিলে দিনে গড়ে রোগীর সংখ্যা থাকে ৩শ’ জনের বেশি।

চমেকে হৃদরোগ বিভাগ চালু করা হয় ১৯৮৯ সালে। এক বছর আগেও হৃদরোগ বিভাগে শয্যা ছিল ৫০টি। বর্তমানে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে একশোতে। ২০১২ সালে চালু করা হয় কার্ডিয়াক সার্জারি বিভাগ। দেশের সরকারি হাসপাতালগুলোর মধ্যে চট্টগ্রামেই প্রথম চালু করা হয় এ ধরনের বিভাগ। এনজিওগ্রাম, রিং লাগানো, পেস মেকার, ওপেন হার্ট অস্ত্রোপাচার অনেকটা কম খরচে করানো হচ্ছে হৃদরোগ বিভাগে।

সহকারী অধ্যাপক ডা. আনিসুল আউয়াল বলেন, ইচ্ছা করলে আমরা চার ঘণ্টা পরে রোগীকে ছেড়েও দিতে পারি।

ডা. রাজীব দে বলেন, ওয়ার্ল্ড ক্লাস ট্রিটমেন্ট এখন সরকারি খরচে হচ্ছে। 

কম খরচে উন্নত চিকিৎসা সুবিধা পেয়ে খুশি চিকিৎসা নিতে আসা রোগীরাও।
তবে জনবল সমস্যার কারণে রোগীদের সেবা দিতে কিছুটা হিমশিম খেতে হয় বলে জানালেন চিকিৎসকরা। এতে বিদেশে যাওয়ার হার অনেক কমেছে বলে জানান হৃদরোগ বিভাগের প্রধান।

হৃদরোগ বিভাগীয় প্রধান ডা. প্রবীর কুমার দাশ বলেন, দুইটা ওয়ার্ড মিলিয়ে আমাদের যে পরিমাণ রোগী থাকে প্রায় তিনশো চারশোর মত সে পরিমাণ চিকিৎসক তো আমাদের নাই। আমাদের অবশ্যই আরও বেশি চিকিৎসক দরকার। 

জাতীয় হৃদরোগ ইনিস্টিটিউটের বাইরে চমেক একমাত্র সরকারি হাসপাতাল যেখানে ১০ হাজার এনজিওগ্রামের মাইলফলক পার করেছে।