SomoyNews.TV

পশ্চিমবঙ্গ

আপডেট- ৩০-১০-২০১৯ ২১:৪৩:৩০

কুলগ্রামে গুলিতে নিহতদের অধিকাংশ মুর্শিদাবাদের

ক-লগ-র-ম-র-গ-ল-ত-ন-হতদ-র-অধ-ক-শ-ম-র-শ-ব-দ-র

ভারতের কাশ্মীরে কুলগ্রামে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় গুলিতে নিহতদের অধিকাংশই পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুর্শিদাবাদের বাসিন্দা। তারা সবাই আপেল বাগানের শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন। মুর্শিদাবাদ জেলায় এ ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। 

বুধবার সকালে মুর্শিদাবাদের সাগরদিঘির বহালনগর গ্রামের নিহতদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে দেখা করতে যান স্থানীয় সাংসদ এবং কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরী।

স্থানীয় সূত্র জানায়, মুর্শিদাবাদের সাগরদিঘির বহালনগর এলাকা থেকে জনা পনেরো শ্রমিকের একটি দল গিয়েছিল কুলগামে। কাতরাসু গ্রামের মধ্যে একটি বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতেন সবাই । সেই বাড়ি থেকে ওই শ্রমিকদের বের করে এনে এলোপাথাড়ি গুলি চালায় জঙ্গিরা। নিহত হন পাঁচজন। তারা হলেন,  রফিক শেখ, কামারুল উদ্দিন, মুরসালিম শেখ, নইম শেখ এবং রফিকুল শেখ। 

কাশ্মীরের এই ঘটনায় স্তম্ভিত গোটা মুর্শিদাবাদ জেলা। মঙ্গলবার রাতেই এই ঘটনায় গভীর শোক জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

বহরমপুরের কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরি জানিয়েছেন,  নিহতদের দেহ আনার এবং তাদের সৎকাজ করার সব ব্যবস্থার দায়িত্ব নিজে নিজে করবেন। 

 সাম্প্রতিক বেশ কিছু ঘটনায় মনে করা হচ্ছে যে, জঙ্গিরা অ-কাশ্মীরিদেরই বেছে বেছে টার্গেট করছে  । মূলত টার্গেটে থাকছে অ-কাশ্মীরি ট্রাকচালকেরা। 

কাশ্মীর পুলিশ সূত্রের খবর, গত কয়েকদিনে অ-কাশ্মীরিদের উপর অন্তত ৬টি হামলা হয়েছে কাশ্মীরে। যাতে মৃত্যু হয়েছে ১১জনের। 

গত সোমবার অনন্তনাগে এক ট্রাকচালককে হত্যা করে জঙ্গিরা। তার আগে সোপিয়ানেও একই রকম ঘটনা ঘটেছে। ১৪ থেকে ২৮ অক্টোবরের মধ্যে এভাবেই চার অ-কাশ্মীরি ট্রাকচালককে খুন করেছে জঙ্গিরা।