SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ১৬-১০-২০১৯ ০২:৪২:১৪

এসিল্যান্ডের অভাবে ধুঁকছে তানোর

raj-ac-land

রাজশাহীর তানোর উপজেলার ভূমি অফিসের সহকারী কমিশনার বদলির পর থেকে কোনো কাজ হচ্ছে না এখানে। গত তিন মাসে আটকে গেছে জমি-জমা সংক্রান্ত কয়েক হাজার ফাইল। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েছে সাধারণ মানুষ। তবে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি অবহিত করে সংকট উত্তরণের চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে জানান জনপ্রতিনিধি ও উপজেলা প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তা। 

রাজশাহীর তানোর উপজেলার ভূমি অফিস। এখানে তিন মাসেরও বেশি সময় ধরে নেই কোন এসিল্যান্ড। ফলে খাজনা ও খারিজ করতে দেয়া প্রায় ৩ হাজারেরও বেশি ফাইল আটকে আছে। ভুক্তভোগীরা বলছেন, ভূমি অফিসে কোনো কাজ না হওয়ায় জায়গা-জমি বিক্রি করতে পারছেন না তারা।
শুধু তাই নয়, অভিযোগ আছে টাকা ছাড়া ফাইল নড়ে না এ অফিসে। এতে ক্ষুব্ধ সাধারণ মানুষ। একজন ভুক্তভোগী বলেন, ‘একদিন ডাইকা অ্যানে বললো, সময় নাই। একটু পরে বলে দুইশটা ট্যাকা দাও!’

সংকটের কথা স্বীকার করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান মো. লুৎফর হায়দার রশীদ ময়না বলেন, আমাদের এখানে একজন এসিল্যান্ড খুবই জরুরি। এলাকার সব কার্যক্রম বন্ধ হয়ে আছে। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাছরিন বানু বলেন, এসিল্যান্ড না থাকায় বেশ সমস্যা হচ্ছে। আমরা আশা করছি খুব তাড়াতাড়ি আমরা এসিল্যান্ড পেয়ে যাব। 

চলতি বছরের ১৩ জুন তানোর ভূমি অফিসের সহকারী কমিশনার আব্দুল্লাহ আল মামুনকে অন্যত্র বদলি করা হয়। এরপর গোদাগাড়ি উপজেলাএসিল্যান্ডকে অতিরিক্ত দায়িত্ব দেয়া হয়। তিনি সপ্তাহে একদিন এ ভূমি অফিসে সময় দেন।