SomoyNews.TV

পশ্চিমবঙ্গ

আপডেট- ১৯-০৯-২০১৯ ২০:২১:২৪

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ও রাজ্যপালকে আটকে বিক্ষোভ বাম ছাত্র সংগঠনের

jadobpur-2

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের একজন প্রতিমন্ত্রীকে আটকে রেখে বিক্ষোভ করছেন এশিয়ার অন্যতম জনপ্রিয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যাদব বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা।

বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বিকালে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজেপির ছাত্র সংগঠনের একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসেছিলেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। কিন্তু অনুষ্ঠানের প্রবেশের সময় তার সঙ্গে বাম ছাত্র সংগঠনের এক অংশের ছাত্রছাত্রীদের তুমুল বাক-বিতণ্ডা লাগে। এমন কি মন্ত্রীকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিতও করা হয়।

যদিও সেই সময়ের মতো পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হওয়ায় বিজেপির ছাত্র সংগঠনের অনুষ্ঠান শুরু হয়। কিন্তু ওই অনুষ্ঠানের বাইরে হাজার হাজার ছাত্র সমবেত হয়ে বাবুল সুপ্রিয়কে ঘিরে রাখেন।

সন্ধ্যার পর পর্যন্ত তিনি আটকে থাকার খবর পেয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর নিজে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে ছুটে যান। তার গাড়ি বহর ক্যাম্পাসে ঢুকতেই হাজার হাজার ছাত্রছাত্রীরা তার গাড়ির গতিরোধ করেন এবং রাস্তায় শুয়ে পড়েন। পরিস্থিতির ভয়াবহতায় অসংখ্য পুলিশ ও র‌্যাফ ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে। তখনকার মতো বিক্ষুব্ধরা সরে যায় এবং রাজ্যপালের গাড়ি ভেতরে প্রবেশ করে আটক কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে উদ্ধার করে তার গাড়িতে তোলেন। কিন্তু ওই গাড়ি আটকে বিক্ষোভ শুরু করেন হাজার হাজার বামপন্থী ছাত্রছাত্রী।

এদিকে বিজেপির ছাত্র সংগঠন এভিডিপির কয়েকশ সমর্থক এই ঘটনার প্রতিবাদে ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরের বাম ছাত্র সংগঠনের অফিস ভাঙচুর চালায় এবং টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করে।

এদিকে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্য সুরঞ্জন দাস পরিস্থিতির ভয়াবহতায় অসুস্থ হয়ে পড়েন। তাকে কলকাতার পিজি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গোটা ঘটনায় রাজ্যপাল কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে ফোন করেন এবং উপাচার্যের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

এর আগে কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় সাংবাদিকদের কাছে প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বলেন, তাকে ঘুষি, লাথি মারা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছে পুলিশ।