SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাণিজ্য সময়

আপডেট- ২৯-০৫-২০১৯ ০৬:১০:২৫

ঈদে জেগেছে রংপুরের ঝিমিয়ে পড়া বেনারসি পল্লী

rang-bena

ঈদ উৎসব ঘিরে চাহিদা বাড়ায় রংপুরে আবারো জেগে উঠছে ঝিমিয়ে পড়া বেনারসি পল্লী। এবার ক্রেতাদের হাতে নিত্য নতুন ডিজাইনের পোশাক তুলে দিতে দিনরাত কাজ করছেন তাত শিল্পীরা। নগরীর অদূরে বেনারসি পল্লীতে গড়ে ওঠা শোরুম গুলোতে বাড়ছে ক্রেতাদের ভিড়।

চড়কায় সুতা কাটার ব্যস্ততা। পাশেই মাকুড় নিয়ে রংবেরংয়ের কাপড় বুনছেন তাতিরা।রংপুরের গঙ্গাচড়ার হাবু গ্রামের বেনারসি পল্লীর চিত্র এখন এমনই। বছরের অন্য সময় গুলোতে তেমন কাজ থাকে না। ঈদের মতো উৎসব পার্বণে ব্যস্ততা বাড়ায় তাতীদের চোখে মুখে খুশির ঝিলিক।  একজন বিক্রেতা বলেন, 'একটা শাড়ি বানাতে যতটুকু সময় দরকার ততটুকু সময়ই লাগবে। একারণে চাইলেও আমরা বেশি বেশি শাড়ি বানাতে পারি না।'

দুর-দূরান্ত থেকে বেনারসিপল্লীতে গড়ে ওঠা শোরুম গুলোতে ছুটছেন ক্রেতারা।  সংগ্রহ করছেন পছন্দের শাড়ি-থ্রি পিছ। ক্রেতারা বলছেন, স্থানীয় তাতে তৈরি এসব কাপড় সুলভে সংগ্রহ করতে পারছেন তারা।

এবার ক্রেতাদের রুচি, পছন্দ ও চাহিদার বিষয় বিবেচনায় রেখেই পোশাকের মান ও ডিজাইনে নতুনত্ব নিয়ে আসার কথা জানান ব্যবসায়ীরা। একজন ব্যবসায়ী বলেন, 'লোয়েস্ট থেকে হাইয়েস্ট প্রাইসের অনেক কাপড় আছে। সেগুলো আবার বিক্রিও হচ্ছে, কাস্টমারও প্রচুর।'  

রংপুরের বেনারসি পল্লীর সাথে শতাধিক পরিবার জড়িত। যারা বেনারসি, নিট কাতান, রেশমি কাতান, রিমঝিম কাতান, প্রিন্স কাতান, জামদানিসহ বাহারী নামের শাড়ী ও থ্রিপীছ তৈরি করছেন।