SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon বাংলার সময়

আপডেট- ০৪-০১-২০১৯ ০৬:১৪:০০

দেশে সাড়ে ৪ কোটি মানুষ ফ্যাটি লিভারে আক্রান্ত

fatty-liver1

দেশের প্রায় সাড়ে ৪ কোটি মানুষ ফ্যাটি লিভারে আক্রান্ত। কায়িক শ্রমের অভাব এবং তেল ও চর্বিযুক্ত খাবারে অভ্যস্ত হওয়ায় উচ্চবিত্ত, গ্রামীণ নারী ও স্থূল মানুষের মধ্যে আক্রান্তের হার সবচেয়ে বেশি। সরকারি বেসরকারি গবেষণা বলছে, এখন পর্যন্ত কার্যকরী প্রতিষেধক তৈরি না হওয়ায় আক্রান্তের একটি অংশ লিভার সিরোসিস, লিভার ক্যান্সারসহ নানা মরণব্যাধিতে আক্রান্ত হচ্ছে। সমস্যা সমাধানে শৈশব থেকেই সঠিক খাদ্যাভ্যাস ও নিয়মতান্ত্রিক জীবন যাপনের পরামর্শ চিকিৎসকদের।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কয়েকটি গবেষণায় দেখা যায়, ৪৫ থেকে ৫৪ বছর বয়সী গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর মধ্যে এই হার বেশি হলেও নারীদের মধ্যে তা সর্বোচ্চ। পর্যায়ক্রমে স্থূলদের মধ্যে ৬৩ দশমিক ৫৫ শতাংশ এবং উচ্চ আয়ের মানুষের মধ্যে ৫০ দশমিক ৩৮ শতাংশ ফ্যাটি লিভারে আক্রান্ত।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল ইউনিভার্সিটির হরমোন ও ডায়াবেটিস বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. ফরিদ উদ্দিন বলেন, ডায়াবেটিকস এর রোগীদের ফ্যাট জমতে জমতে লিভার সেলগুলো কার্যক্ষমতা হারাতে থাকে। চিকিৎসার মাধ্যমে পরবর্তীতে সবকিছু স্বাভাবিক অবস্থায় গেলে এই ফ্যাটগুলো কমতে থাকে।

আক্রান্ত সাড়ে ৪ কোটির অন্তত দেড় থেকে ২ কোটি ক্ষতিকর ফ্যাটি লিভারে আক্রান্ত। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা আশঙ্কা করছেন, এখনই নিয়মিত ব্যায়াম, খাদ্যাভ্যাসের পরিবর্তন ও চর্বিযুক্ত খাবার পরিহার না করলে আগামী ১০ থেকে ১৫ বছরের মধ্যে দীর্ঘস্থায়ী লিভার রোগে আক্রান্ত হবেন যাদের অনেককেই হার মানতে হবে মৃত্যুর কাছে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের হেপাটোলজি বিভাগের যোগী অধ্যাপক ডা. শাহিনুল আলম বলেন, ফ্যাটি লিভারজনিত হেপাটাইটিসের কারণে সিরোসিস ও লিভার ক্যান্সার হতে পারে। ক্যালোরি খরচ না হওয়া এবং অলস বসে থাকার কারণে এ সম্ভাবনা আমাদের দেশে বেড়ে গেছে।

প্রায় সব বয়সীরা আক্রান্ত হলেও বয়স বৃদ্ধির সঙ্গে এর ব্যাপকতা বাড়তে থাকে। আশঙ্কাজনকভাবে বাড়তে থাকা রোগটি প্রতিরোধে জাতীয় পর্যায়ে নীতি গ্রহণের জোর তাগিদ বিশেষজ্ঞদের।