SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon তথ্য প্রযুক্তির সময়

আপডেট- ২৮-১০-২০১৮ ১০:০৪:২০

হুয়াওয়ে ওয়াই নাইন (২০১৯): মাঝারি বাজেটের সেরা ফোন

h1

মাঝারি বাজেটের ক্রেতাদের জন্য দেশের বাজারে নতুন হ্যান্ডসেট নিয়ে এসেছে হুয়াওয়ে। ওয়াই সিরিজের ফোনগুলোর মধ্যে জনপ্রিয়তায় শীর্ষে থাকা ওয়াই নাইনের দ্বিতীয় ভার্সন হলো ওয়াই নাইন (২০১৯)। এই হ্যান্ডসেটটি বাংলাদেশের বাজারে বিক্রি হচ্ছে ২২ হাজার ৯৯০ টাকায়। তবে যারা নিজেদের স্মার্টফোনটি পরিবর্তন করতে চান কিংবা মাঝারি বাজেরে হ্যান্ডসেট কিনতে চান তাদের জন্য কেমন হবে এই হ্যান্ডসেটটি? এটির পারফরমেন্স কেমন? ক্যামেরাই বা এই যুগের সঙ্গে কতটা মানানসই? ব্যাটারিতে চার্জ কেমন থাকে? গেমস খেলার জন্য কতটাই উপযুক্ত হুয়াওয়ে ওয়াই নাইন (২০১৯)? চলুন প্রশ্নগুলোর উত্তর খোঁজা যাক।

ডিজাইন

মিডনাইট ব্ল্যাক, সাফায়ার ব্লু এবং অরোরা পার্পেল; এই তিনটি রঙে পাওয়া যাচ্ছে হুয়াওয়ে ওয়াই নাইন (২০১৯) মডেলের হ্যান্ডসেটটি। এর পেছনে রয়েছে দুইটি ক্যামেরা, ফ্ল্যাশ লাইট ও ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর।

সামনে রয়েছে নচ, নচের মাঝে রয়েছে লাইট সেন্সর ও দুইটি সেলফি ক্যামেরা। উপরের মধ্যে বেজেলে দেয়া হয়েছে স্ট্যাটাস ইন্ডিকেটর ও এয়ারপিচ। ডিভাইসটির বেজেল খুবই সংকীর্ণ।

হ্যান্ডসেটটির উপরের দিকে রয়েছে সেকেন্ডারি মাইক্রোফোন এবং নিচের দিকে রয়েছে, প্রাইমেরি মাইক্রোফোন, হেডফোনের জ্যাক, মাইক্রো ইউএসবি পোর্ট এবং স্পিকার। ডান দিকে রয়েছে পাওয়ার বাটন, তার ঠিক উপরেই রয়েছে ভলিউম বাটন। বাম পাশে একটি স্লট যেখানে একটি মাইক্রো এসডি কার্ড ও দুটি সিম কার্ড ব্যবহার করা যায়।

হ্যান্ডসেটটির বডি স্লিম হওয়ায় খুব আরামেই সেটি হাতে নেয়া যায়। ডিজাইন খুবই সাধারণ, তবে আকৃষ্ট করার মতো। নচ যাদের খুব একটা পছন্দ নয় তারা চাইলে নচ বন্ধ করেও হ্যান্ডসেটটি ব্যবহার করতে পারবেন। তবে পেছনে স্ক্র্যাচ পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনার কথা ভেবেই হয়তো হুয়াওয়ে সঙ্গে একটি ব্যাক কাভার দিচ্ছে।

ডিসপ্লে

হ্যান্ডসেটটি হাতে নিলেই এর লম্বা ডিসপ্লে নজর কাড়তে বাধ্য। ৬ দশমিক ৫ ইঞ্চির হ্যান্ডসেটটির ডিসপ্লে রেশিও ১৯ দশমিক ৫ অনুপাত ৯ এবং স্ক্রিন টু বডি রেশিও ৮২ দশমিক ৮ শতাংশ। ফুল ভিউ ডিসপ্লেটির রেজ্যুলেশন ১০৮০ x ২৩৪০ পিক্সেল। ডিসপ্লে খুবই উজ্জ্বল হওয়ার টেক্সট পড়া যায় খুব আরামে। হ্যান্ডসেটটিতে ভিডিও দেখার ক্ষেত্রে অসাধারণ অভিজ্ঞতা দিবে।

কালার ব্যালেন্স অত্যন্ত নিখুঁত, যা হ্যান্ডসেটের ক্যামেরার ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই বিষয়টিতে হুয়াওয়ে বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছে।

স্ক্রিন রেজ্যুলেশন অটো রাখতে না চাইলে এইচডি প্লাস কিংবা ফুল এইচডি প্লাস; এর যেকোনো একটিতে রাখা যায়। রাতে আরামদায়কভাবে ব্যবহারের জন্য আই কমফোর্ট ম্যুড অন করে নেয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। সূর্যের আলোতে হ্যান্ডসেটটি ব্যবহারে কোনো সমস্যাই হয় না। এই বাজেটে বাজারের অন্যান্য হ্যান্ডসেটগুলোর মধ্যে হুয়াওয়ে ওয়াই নাইন (২০২৯) এর ডিসপ্লে সন্দেহাতীতভাবে সেরাদের তালিকায় রয়েছে।

ক্যামেরা

স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের কাছে অন্যতম আকর্ষণের ফিচার হচ্ছে ক্যামেরা। আর এই দিকটিতে হুয়াওয়ে বেশ ভালোভাবেই নজর দিচ্ছে। কারণ সাম্প্রতিক সময়ে বের করা হ্যান্ডসেটগুলোর বেশিরভাগেই চারটি করে ক্যামেরা রাখছে প্রতিষ্ঠানটি। ওয়াই নাইন (২০১৯) এর ক্ষেত্রেও এর ব্যতিক্রম ঘটেনি। চার ক্যামেরার এই স্মার্টফোনটির প্রত্যেকটি ক্যামেরা ব্যবহার করেই এআই মুডে ছবি তোলা যায়।

হ্যান্ডসেটটির ব্যাক ক্যামেরার একটি ১৩ মেগাপিক্সেল এবং সেকেন্ডারি ক্যামেরাটি দুই মেগাপিক্সেলের। এই ক্যামেরা ব্যবহার করে চমৎকার ছবি তোলা সম্ভব। স্বল্প আলোতে ছবি তোলার কাজও বেশ ভালোভাবেই চালিয়ে নেয়া সম্ভব। ক্যামেরার প্রো মুড ব্যবহার করে নিজের ইচ্ছে মতো ক্যামেরাকে কন্ট্রোল করা যায়। পোর্টেট মুডে ছবি তোলার অপশনও আছে এটিতে। এই ক্যামেরা ব্যবহার করে ফুল এইচডি ভিডিও করার সুযোগও রেখেছে প্রতিষ্ঠানটি।

অন্যদিকে সেলফি ক্যামেরার একটি ১৬ মেগাপিক্সেল এবং সেকেন্ডারিটি দুই মেগাপিক্সেলের। ক্যামেরার রেজ্যুলেশন দেখেই বোঝা যাচ্ছে, সেলফিপ্রেমিদের প্রতি বেশি নজর দিয়েছে হুয়াওয়ে। ফ্রন্ট ক্যামেরারও মানও অসাধারণ। হ্যান্ডসেটটিতে এআর লেন্স নামের একটি অপশন রয়েছে যেটি ব্যবহার করে ব্যাকগ্রাউন্ড পরিবর্তনসহ বিভিন্ন ফিল্টার ব্যবহারের সুযোগ রয়েছে। মজার ছবি তুলতে এই ফিল্টার বেশ নজরকাড়ার মতো।

এই হ্যান্ডসেটটিতে মুভিং পিকচার নামের একটি ফিচার যুক্ত করেছে হুয়াওয়ে। এই ফিচারটি অন করে সাবজেক্ট কিংবা ক্যামেরার অবস্থান পরিবর্তনের সময় ছবি তোলা সম্ভব। যেটা পরবর্তীতে অ্যানিমেটেড পিকচারের ফিল দেয়।

এআই মুডে ছবি তুললে সেটা অনেকের কাছেই ন্যাচারাল মনে না হতে পারে। তবে এআই মুড অপছন্দ হলে এটি অন করে ছবি তোলার পরও তা ডিসঅ্যাবল করা সম্ভব।

পারফরমেন্স

হ্যান্ডসেটটিতে প্রসেসর হিসেবে ব্যবহার করে হয়েছে হুয়াওয়ের নিজস্ব হিসিলিকন কিরিন ৭১০। র‌্যাম রয়েছে চার জিবি এবং ইন্টারনাল মেমোরি হিসেবে রয়েছে ৬৪ জিবি। অ্যান্ড্রয়েড ৮ দশমিক ১ অরিও’র এই হ্যান্ডসেটে গ্রাফিক্স প্রোসেসিং ইউনিট (জিপিইউ) হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে মালি-জি৫১। একাধিক অ্যাপ চালাতে কোনো ধরনের বিড়ম্বনায় পড়ার সম্ভাবনা নেই। হ্যান্ডসেটটি ব্যবহার করে ভারী অ্যাপ চালাতে গিয়ে কোনো ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে না।

প্রোফেশনাল গেমারদের জন্য হ্যান্ডসেটটি খুব উপযুক্ত না হলেও যারা শুধুমাত্র পাবজি খেলার জন্য হ্যান্ডসেট কিনতে চান তারা এটির উপর ভরসা রাখতেই পারেন। টানা গেমস খেললে হ্যান্ডসেটটি একটু গরম অনুভূত হতে পারে।

ব্যাটারি লাইফ

হ্যান্ডসেটটিতে ব্যাটারি দেয়া হয়েছে ৪ হাজার এমএইচ’র। হুয়াওয়ে ওয়াই নাইন (২০১৯) হ্যান্ডসেটটি চার্জে বসালে সেটি একটু বেশ সময় নিচ্ছে বলে মনে হতেই পারে। কারণ হ্যান্ডসেটটি একবার ফুলচার্জ হতে চার ঘণ্টারও বেশি সময় নেয়। তবে একবার চার্জ ফুল হলে টানা ৯ ঘণ্টা ভিডিও দেখা কিংবা গেম খেলা সম্ভব। এছাড়া ৬৫ ঘণ্টা গান শোনা কিংবা ফোরজি নেটওয়ার্কে ১৪ ঘণ্টা ওয়েব ব্রাউজিং সম্ভব।

সাউন্ড কোয়ালিটি

হ্যান্ডসেটটির সাউন্ড কোয়ালিটি উন্নত মানের। এর সঙ্গে দেয়া হেডফোন মাঝারি মানের। হ্যান্ডসেটের নিচের দিকে হেডফোনের পোর্ট থাকা যাদের জন্য বিরক্তি কর তাদের ব্লুটুথ হেডফোন ব্যবহার করা ছাড়া কোনো বিকল্প নেই। হ্যান্ডসেটের পার্টি মুড নামের অ্যাপস ব্যবহার করে একই সঙ্গে সাতটি হ্যান্ডসেট যুক্ত করে গান শোনা সম্ভব।

সিকিউরিটি

হ্যান্ডসেটটিতে ব্যবহৃত ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরের মিসজাজমেন্ট খুবই কম। এটিতে ব্যবহৃত ফেস আনলক পদ্ধতি বেশ চমকে দেয়ার মতো। অল্প আলোতেও চেহারা ঠিকই চিনে নিতে সক্ষম এই সেন্সর। এছাড়া পিন ও স্ক্রিন আনলক পদ্ধতিতো রয়েছেই।