SomoyNews.TV

Somoynews.TV icon মহানগর সময়

আপডেট- ২৪-০৭-২০১৮ ০৫:১১:৫৫

দুই বছরেও সম্পূর্ণ হয়নি রাজধানীর ভাড়াটিয়াদের তথ্য সংগ্রহ

untitled-6

প্রায় দু'বছর পার হলেও এখনো সম্পূর্ণ হয়নি ভাড়াটিয়াদের তথ্য সংগ্রহ প্রক্রিয়া। রাজধানীতে ভাড়াটিয়ারা প্রথম দফায় তথ্য দিলেও বাড়ি পরিবর্তনের পর তা আর নির্ধারিত থানায় জানাতে আগ্রহী নন কেউ।

এছাড়া ঘনবসতিপূর্ণ এলাকাগুলোতে ভাড়াটিয়াদের পূর্ণাঙ্গ তথ্য সংগ্রহে এখনো পিছিয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ। বিশ্লেষকরা বলছেন, ভাড়াটিয়াদের তথ্য সংগ্রহ প্রতিটি এলাকায় সম্পূর্ণরূপে না হলে অকার্যকর থেকে যাবে তথ্য ভাণ্ডার, ব্যহত হবে মূল উদ্দেশ্য।

হলি আর্টিজেন বেকারিতে জঙ্গি হামলার পর রাজধানীতে যে কয়টি জঙ্গি আস্তানায় অভিযান চালানো হয়েছে তার মধ্য মিরপুরে সবচেয়ে বেশি। কিন্তু নানা কারণে ভাড়াটিয়াদের তথ্য সংগ্রহের ক্ষেত্রে মিরপুর এলাকা পিছিয়ে আছে। নতুন সমস্যা দাঁড়িয়েছে, ভাড়াটিয়ারা প্রথম দফায় তথ্য দিলেও বাড়ি পরিবর্তনের পর তা আর অবহিত করছেন না।

মিরপুরের বিভিন্ন বাড়ির বেশ কয়েকজন ভাড়াটিয়া জানান, তাদের বাসায় তথ্য সংগ্রহের জন্য বা কোন ফর্ম পূরণের জন্য কেউ আসেনি। তাদের কাছে কোন তথ্য চাওয়াও হয়নি।

কয়েকজন জানান, আগের বাসায় পুলিশের দেয়া ফর্ম পূরণ করলেও নতুন বাসায় তারা এ ধরণের কোন ফর্ম পূরণ করেননি।

এক বাড়িওয়ালা বলেন, 'ভাড়াটিয়াদের কাছে তথ্য চাইলে বলে, আগের বাসায় দিয়ে এসেছি। অথচ কোন ঝামেলা হলে আমাদের উপরে দায় পড়বে। বলা হবে, আমি কেন তাদের ফর্ম রাখি নাই।'

এদিকে ডিএমপির তথ্য অনুযায়ী রাজধানীতে আছেন ৫০ লাখ ভাড়াটিয়া, কিন্তু এখন পর্যন্ত ২০ লাখ ভাড়াটিয়ার তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। কিন্তু রাজধানীতে কাজের খোঁজে আসা মানুষ যোগ হচ্ছে প্রতিদিন। যাদের বেশির ভাগই বেছে নেন স্বল্পোন্নত ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা । এসব এলাকায় নতুন বাসিন্দাদের তথ্য সংগ্রহ ও হালনাগাদে পিছিয়ে আছে ডিএমপি।

ডিএমপির উপ-পুলিশ কমিশনার মাসুদুর রহমান বলেন, 'নিম্ন মধ্যবিত্ত বা মধ্যবিত্ত কিংবা যে শ্রেণি-পেশারই হোক না কেনো সবাইকেই আমরা সিটিজেন ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের আওতায় নিয়ে আসার চেষ্টা করছি। তবে যেসব এলাকায় ঘনবসতি রয়েছে সেসব এলাকায় ফর্ম বিতরণ, সংগ্রহ বা তথ্য যাচাই-বাছাই করতে কিছুটা সময় তো ব্যয় হয়ই।'

বিশ্লেষকরা বলছেন, রাজধানীর সকল এলাকার বাসিন্দাদের তথ্য সংগ্রহ না করা গেলে ভেস্তে যাবে এই উদ্যোগের মূল উদ্দেশ্য।

অপরাধ বিশ্লেষক অধ্যাপক শেখ হাফিজুর রহমান কার্জন বলেন, 'ওইটা তাৎক্ষণিকভাবে অ্যাডহক হয়েছে। ওইটা করার জন্য অবকাঠামো, স্টাফ আছে কিনা; সেটাকে হালনাগাদ কিভাবে করা হবে সেই সিস্টেমটার উন্নয়ন করা ছাড়াই আমি করেছি কিন্তু সেটার মধ্য দিয়ে প্রচুর লোক হয়রানি হয়েছে। সরকারের অনেক সংরক্ষিত জায়গায় বা পাওয়ারফুল জায়গায় তারা ঢুকতে পারেনি।'

তবে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের তথ্য অনুযায়ী, ভাড়াটিয়াদের তথ্য দেয়ায় গাফিলতি করায় কয়েকজন বাড়ির মালিককে বিভিন্ন সময় আটক করা হয়েছে।