SomoyNews.TV

ভোটের হাওয়া

আপডেট- ০৬-০৩-২০১৮ ০৬:১৮:১৬

রাজশাহী-৫ আসন, ভোটযুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে বড় দলগুলো

raj-five

রাজশাহীর পূঠিয়া-দূর্গাপুর উপজেলা নিয়ে গঠিত সংসদীয় আসন রাজশাহী-৫ আসনটি কখনও আওয়ামী লীগ, কখনও বা ছিল বিএনপির দখলে। গত দুটি নির্বাচনে আসনটি দখলে রয়েছে আওয়ামী লীগের।

 

সুষ্ঠ নির্বাচন হলে জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী বিএনপিও। তবে ভোটাররা বলছেন, এলাকার উন্নয়নে সৎ ও যোগ্য প্রার্থীকেই সংসদ সদস্য নির্বাচিত করতে চান তারা।

কৃষি ও মৎস্য চাষে সমৃদ্ধ পূঠিয়া-দূর্গাপুর উপজেলা নিয়ে রাজশাহী- ৫ আসনটি। ১৯৯৬ ও ২০০১ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এই আসনটি ছিল বিএনপির কব্জায়। ২০০৮ সালের নির্বাচনে আসনটি দখলে নেয় আওয়ামী লীগ। আর বিনা ভোটে নির্বাচিত হওয়ায় ২০১৪ সালেও আসনটি ধরে রাখে দলটি। তবে দলীয় কোন্দল আর গ্রুপিংয়ের কারণে একাধিক ব্যক্তি নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশা করছেন।

রাজশাহী-৫ আসনের সংসদ সদস্য আবদুল ওয়াদুদ দারা বলেন, 'ভুল বুঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে আওয়ামী লীগকে একত্রিত করে আমরা সামনের দিকে এগিয়ে যাবো। এই নির্বাচনী ক্যাম্পেইন তো মূলত জামায়াত-বিএনপি, স্বাধীনতার বিপক্ষের শক্তির সাথে একটা মহাযুদ্ধ বলতে পারি আমরা।'

রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহসানুল হক মাসুদ বলেন, 'আমরা যেই প্রার্থী হই না কেন আমাদের একটিই লক্ষ্য আগামী নির্বাচনে নৌকাকে বিজয়ী করা।'

নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের জন্য আন্দোলনের প্রস্তুতি নেয়ার পাশাপাশি প্রস্তুতি নিচ্ছে বিএনপিও।

রাজশাহী জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. গোলাম মোস্তফা মামুন বলেন, 'ঐক্যবদ্ধ শক্তি নিয়ে আমরা যেমন বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার আন্দোলন করছি, আমাদের নির্বাচনের প্রস্তুতিও পুরোদমে চলছে।'

আর  দলীয় হাইকমান্ডের নির্দেশে জাতীয় পার্টি এ আসনটি নিজের করে নিতে জনসমর্থন আদায়ে মাঠে নেমেছে।

রাজশাহী জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি মো. আবুল হোসেন বলেন, 'পুটিয়া দুর্গাপুরে আমাকে উনি সবুজ সংকেত দিয়েছেন। সেই লক্ষ্যেই আগামী নির্বাচনের জন্য আমার কর্মীবাহিনীকে নিয়ে আমি প্রতিটা ক্ষেত্রে যাওয়ার চেষ্টা করছি।'

তবে ভোটারদের দাবি, এলাকার উন্নয়নকে সর্বোচ্চ প্রাধান্য দিবেন এমন সৎ ও যোগ্য প্রার্থীকে জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করতে চান তারা।

৩৯০ দশমিক ৫০ বর্গ কিলোমিটারের রাজশাহী-৫ আসনে মোট ভোটার ২ লাখ ৮৭ হাজার ২’শ ৬৫ জন।