সম্পূর্ণ নিউজ সময়
পশ্চিমবঙ্গ
৮ টা ৪০ মিঃ, ১৭ মে, ২০২১

পশ্চিমবঙ্গের দুই মন্ত্রী গ্রেপ্তার: সিবিআই কার্যালয়ের ভেতরে মমতা, বাইরে রণক্ষেত্র

আলোচিত নারদা কাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কংগ্রেসের মন্ত্রিসভার দুজন প্রভাবশালী মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম ও সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে সোমবার (১৭ মে) গ্রেপ্তার করেছে ভারতের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা (সিবিআই)। এছাড়া তৃণমূলের বেশ কয়েকজন বিধায়ক ও প্রাক্তন মন্ত্রীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এরপরই সিবিআইয়ের আঞ্চলিক সদর দপ্তর নিজাম প্যালেসের সামনে বিক্ষোভ শুরু করে পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল কর্মী ও সমর্থকরা।
আন্তর্জাতিক সময় ডেস্ক

এদিকে ফিরহাদ হাকিমসহ অন্যদের তুলে নিয়ে যাওয়ার খবরে সকালেই সিবিআই দপ্তরে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাদের ছেড়ে দিতে কড়া হুঁশিয়ারি দেন তিনি। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মমতা সেখানেই রয়েছেন।

পশ্চিমবঙ্গের গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, ফিরহাদ হাকিমকে গ্রেপ্তার করার পরেই নিজাম প্যালেসে জড়ো হয়ে বিক্ষোভ শুরু করে তৃণমূল কর্মীরা। এক পর্যায়ে কেন্দ্রীয় বাহিনী ও তৃণমূল সমর্থকদের মধ্যে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। কেন্দ্রীয় বাহিনীকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে তৃণমূল সমর্থকরা। এক পর্যায়ে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় পুরো এলাকা। পরে পরিস্থিতি বিবেচনায় আসামিদের আদালতে হাজির করার বদলে ভার্চুয়াল শুনানির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এর আগে, সকালেই মমতার মন্ত্রিসভার দুজন প্রভাবশালী মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম ও সুব্রত মুখোপাধ্যায়সহ তৃণমূল বিধায়ক ও প্রাক্তন মন্ত্রী মদন মিত্র, তৃণমূল ত্যাগী বিজেপির নেতা ও প্রাক্তন কলকাতার মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তার করে নিজাম প্যালেসে নিয়ে যায় সিবিআই।

নেতাদের গ্রেপ্তারের খবর পেয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কালীঘাটের বাড়িতে থেকে সোজা চলে যান নিজাম প্যালেসে। এই গ্রেপ্তার বেআইনি বলে দাবি করে সিবিআই দপ্তরেই অবস্থান করছেন তিনি।

অনিন্দ রাউৎ নামের একজন তৃণমূল নেতা স্থানীয় গণমাধ্যমে বলেছেন সিবিআই দপ্তরের গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন- তার নেতাদের গ্রেপ্তার করার আগে তাকেও গ্রেপ্তার করতে হবে। না হলে তিনি সিবিআই দপ্তর থেকে যাচ্ছেন না।

এদিকে সোমবারই নারদা কাণ্ডের চার্জশিট দেবে সিবিআই। ২০১৪ সাল নারদা ডটকমের পক্ষ থেকে সাংবাদিক ম্যাথু সেমুয়েল একটি স্টিং অপারেশন করেন। সেখানে দেখা যায়, তৃণমূলের নেতা মন্ত্রী ও সাংসদের ক্যামেরার সামনে ঘুষ নিতে দেখা গেছে। ২০১৬ সালে বিধানসভা ভোটের আগেই তা প্রকাশ করা হলে দেশ জুড়ে আলোচনার ঝড় উঠে।

© ২০২১ সময় টিভি মিডিয়া নেটওয়ার্ক
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়