সম্পূর্ণ নিউজ সময়
বাংলার সময়
৪ টা ৬ মিঃ, ১৬ মে, ২০২১

দেশের যে এলাকা এখনও করোনামুক্ত

কমল দে

দেশের একমাত্র করোনামুক্ত এলাকা নোয়াখালীর ভাসানচর। গত ৬ মাস ধরে এখানে সাড়ে ১৮ হাজার রোহিঙ্গাসহ প্রায় ২০ হাজার মানুষের বসবাস হলেও কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি। এমনকি করোনা উপসর্গের কোনো রোগীও পাওয়া যায়নি হাসপাতালে।

করোনার প্রথম ও দ্বিতীয় ওয়েভের পর এবার আরেকটি নিয়ে বিশ্বের মতো বাংলাদেশও শঙ্কিত। দেশের প্রতিটি স্থানেই করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। তবে পুরোপুরি ব্যতিক্রম নোয়াখালীর ভাসানচর। গত ৬ মাসে রোহিঙ্গাদের মাধ্যমে মানববসতি গড়ে উঠার পর থেকে এখানে কোনো করোনা রোগী শনাক্ত হয়নি।

সরকারি হাসপাতালেও আসেনি করোনা উপসর্গের কোনো রোগী বলে জানান ভাসানচর সরকারি হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. শঙ্খজিৎ সমাজপতি।

তিনি বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে দেয়া হচ্ছে সেবা। আর যারা আসছে তারাও সেটা মেনে আসছেন, এখন পর্যন্ত কোনো রোগী শনাক্ত করতে পারিনি।  

ভাসানচর সরকারি হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. রাজু সিংহ বলেন, তারা আসলে এখানে মূলত ভিন্ন আছে, যার কারণে করোনা সংক্রমণটা খুবই কম।

গত ৪ ডিসেম্বর থেকে রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে স্থানান্তরের প্রক্রিয়া শুরু হয়। ৬ দফায় মোট সাড়ে ১৮ হাজার রোহিঙ্গাকে নিয়ে আসা হয়েছে এখানে। মূলত ভাসানচরে আসার আগে যথাযথ বিধিনিষেধ পালন করায় এই চরকে করোনামুক্ত রাখা সম্ভব হয়েছে বলে মনে করছেন ভাসানচর আশ্রয়ণ প্রকল্পের পরিচালক কমডোর রাশেদ সাত্তার।

তিনি বলেন, প্রত্যেককে পরীক্ষা করে ভেতরে প্রবেশ করানো হয়। এরপর তাদের কোভিড সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য জানানো হয় তারপর তাদের ক্লাস্টারে পাঠানো হয়।  

বিভিন্ন এলাকার সাধারণ মানুষ থেকে পৃথক থাকার কারণেই করোনামুক্ত বলে মনে করেন এখানকার রোহিঙ্গারা।

রোহিঙ্গা ছাড়াও এ চরে দেড় হাজারের বেশি সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারী, নৌবাহিনীসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য সার্বক্ষণিক অবস্থান করছেন। আরও রয়েছেন কয়েকশ’ নির্মাণশ্রমিক- নৌকার মাঝি, মহিষ বাতান মালিক ও কৃষক।

© ২০২১ সময় টিভি মিডিয়া নেটওয়ার্ক
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়