সম্পূর্ণ নিউজ সময়
বাংলার সময়
৯ টা ২২ মিঃ, ১৫ মে, ২০২১

দুই বছর আগে জামিন পেয়ে দু’দিন আগে মুক্তি পেলেন

বাংলার সময় ডেস্ক

গাজীপুরের জয়দেবপুর থানায় করা মামলায় জামিনের দুই বছর পর কারামুক্ত পাকিস্তানি নাগরিক ইঞ্জিনিয়ার খালিদ মাহমুদ। ২০১৫ সালে তার বিরুদ্ধে হরতাল-অবরোধে নাশকতার অভিযোগে মামলা করা হয়।

সেই মামলায় গাজীপুর জেলা জজকোর্ট থেকে জামিন আবেদন করেন খালিদ। সেখানে আবেদন নাকচ হলে হাইকোর্টে জামিন আবেদন করেন। ওই আবেদনে ২০১৬ সালে হাইকোর্ট তার জামিন মঞ্জুর করেন।

এরপরে ২০১৬ সালে কারামুক্তির দিন আরেকটি মামলায় তাকে ‘শ্যোন অ্যারেস্ট’ দেখিয়ে আবারও আটক করা হয়। প্রথম মামলায় জামিন হলেও দ্বিতীয় মামলার কারণে তিনি মুক্তি পাননি।

চার বছর কারাভোগের পর ২০১৯ সালে উচ্চ আদালত থেকে দ্বিতীয় মামলায় জামিন পান তিনি। কিন্তু সে সময় তার মুক্তি মেলেনি। মুক্তি মিলল এ বছরের ১২ মে।

এর কারণ হিসেবে জানা গেছে, যারা ওই ইঞ্জিনিয়ারের আইনজীবী ছিলেন তাদের দায়িত্ব ছিল সেই জামিন আদেশের কপিটি কারাগারে নিয়ম মেনে পাঠানো। কিন্তু তারা সেই দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করেননি। তাই পাকিস্তানি নাগরিক দুই বছর ধরে কারাগারে ছিলেন।

বুধবার (১২ মে) সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার ফজলুল করিম মণ্ডল জুয়েল গণমাধ্যমকে জানান, হাইকোর্টের আদেশের কপি চলতি বছরের ২৯ এপ্রিল কারাগারে যাওয়ার পর মঙ্গলবার (১২ মে) কারামুক্ত হন খালিদ।

ইঞ্জিনিয়ার খালিদ মাহমুদ ২০১৫ সালে ওয়ার্কপারমিট নিয়ে বাংলাদেশে এসেছিলেন কাজ করতে। তিনি গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার বনগাতীতে এমএস ইউনিলাইন্স টেক্সটাইলস লিমিটেড নামে একটি কারখানায় ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার ছিলেন। সেখানে কাজ শুরুর ছয় মাসের মাথায় তাকে আটক করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এরপর প্রায় তিন মাস কোনো মামলা ছাড়াই তাকে আটক রাখা হয়। এরপরে বিএনপির ডাকা এক হরতালে নাশকতার মামলায় তাকে আসামি দেখানো হয়। 

© ২০২১ সময় টিভি মিডিয়া নেটওয়ার্ক
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়