সম্পূর্ণ নিউজ সময়
বাংলার সময়
৯ টা ১১ মিঃ, ১৪ মে, ২০২১

বৃদ্ধাশ্রমের হাল ধরলেন গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি

হেদায়েতুল ইসলাম বাবু

জীবনের পড়ন্ত বেলায় ঈদের মতো খুশির দিনেও কেউ কাছে নেই। চাতক পাখির মতো অপেক্ষা করেও সন্তান-স্বজনের দেখা নেই। পরিবার-পরিজন থেকে বিচ্ছিন্ন দুর্ভাগাদের জীবনে তাই খুশি হয়ে ধরা দেয় না ঈদ। জীবনের খেরোখাতায় ফেলে আসা সুখস্মৃতিগুলো বৃদ্ধাশ্রমে হাজির হয় বেদনার অশ্রু হয়ে।

যৌবনের সবটুকু উজাড় করে সন্তানদের লালনপালন করেছেন। সব কষ্ট নীরবে সয়েছেন আজ বয়সের ভারে ন্যুয়ে পড়া রোগশোকে তাদের জীর্ণ শরীরের আশ্রয় এখন বৃদ্ধাশ্রম। ঈদের দিনে খোঁজও নিতে আসেনি সন্তান-স্বজনদের কেউ। চোখের নোনা জলে ভাসছে অশীতিপর আজিম উদ্দিনের মতো পোড় খাওয়া মানুষের ঈদ।

এ-বাবা মায়েরা হাড়ভাঙা শ্রমের বিনিময়ে ঈদের আনন্দ কিনেছেন সন্তানের জন্য। ঈদে সন্তানের হাত ধরে নামাজ আদায় করেছেন। আজ হিসেবের খাতায় সবই যেন শূন্য। জীবনের পড়ন্ত বেলায় সন্তানদের না পাওয়ার বেদনার ঝড় মানুষের বুকে।

রক্তের সম্পর্কের মানুষ ভুলে গেলেও ঈদের সকালে সন্তানের ভালোবাসা নিয়ে বৃদ্ধাশ্রমে সস্ত্রীক হাজির গোবিন্দগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মেহেদি হাসান ও মিরু চৌধুরী। তাদের মাঝেই খোঁজার চেষ্টা ভালোবাসা।

ওসি বলেন, সমাজের বিত্তবান যারা আছেন তারা যদি এগিয়ে আসেন তাহলে এখানে যারা এই বৃদ্ধাশ্রমটি পরিচালনা করছেন তাদের পরিশ্রমটি কম হতো।

মানুষের কাছে হাত পেতে এলাকার তরুণদের স্বেচ্ছাসেবায় চলছে বৃদ্ধাশ্রমটি। আশ্রিতদের খাদ্য ও চিকিৎসার জন্য বৃত্তবানদের সহায়তা চান উদ্যোক্তারা।

গাইবান্ধা গোবিন্দগঞ্জ মেহেরুন নেছা বৃদ্ধাশ্রমের সভাপতি আপেল মাহমুদ বলেন, অনেক সমস্যা আছে তবে এখানে ওষুধ খাতে অনেক ব্যয় হয়ে থাকে। টাকার আসার তেমন কোনো ব্যবস্থা নেই।

২০১৭ সালে গোবিন্দগঞ্জের ছোট সোহাগী গ্রামে এলাকার তরুণদের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত মেহেরুননেছা বৃদ্ধাশ্রমে বাস করছেন ২৬ জন নারী -পুরুষ। তিন বছর ধরে প্রতিষ্ঠানটির মানবতার হাল ধরেছেন গোবিন্দগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা একেএম মেহেদী হাসান।

© ২০২১ সময় টিভি মিডিয়া নেটওয়ার্ক
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়