সম্পূর্ণ নিউজ সময়
মহানগর সময়
৫ টা ৩১ মিঃ, ১১ মে, ২০২১

রাশিয়ার সঙ্গে টিকার চুক্তি নিয়ে কালক্ষেপণ না করার তাগিদ

রাশিয়ার সঙ্গে টিকার চুক্তি নিয়ে কালক্ষেপণ না করার তাগিদ দিয়েছে জাতীয় পরামর্শক কমিটি। তাদের মতে, সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সংকটও বাড়বে। কাজেই শর্ত কঠিন হলেও এখনই তা মেনে নেওয়া শ্রেয়। এদিকে টিকার মজুদ প্রায় শেষ হয়ে আসলেও অধিদফতর বলছে এখনো সংকট নেই। নির্ধারিত সময়েই মিলবে টিকার দ্বিতীয় ডোজ।
রাশেদ লিমন

ইতালি, স্পেন কিংবা আশপাশের আরও অনেক দেশকে পেছনে ফেলে ফেব্রুয়ারিতে টিকাদান কর্মসূচি শুরু করে বাংলাদেশ। তবে তিনমাস পরে এসে অনেকটাই অনিশ্চয়তায় দেশের ভ্যাক্সিনেশন কার্যক্রম। সপ্তাখানেক বাদেই ফুরিয়ে যাবে টিকার মজুদ। মাথার উপর সাড়ে ১৩ লাখ মানুষের দ্বিতীয় ডোজের চাপ।

এমন অবস্থায় স্বাস্থ্য অধিদফতর বলছে, এখনো টিকার সংকট তৈরি হয়নি। প্রয়োজনে আট সপ্তাহের পরিবর্তে ১২ সপ্তাহ পরে দেওয়া হবে অবশিস্টদের দ্বিতীয় ডোজ। পাশাপাশি চিনের উপহার পাঁচ লাখও আসছে জুনের শুরুতে। দরকষাকষি চলছে রাশিয়ার সঙ্গে।

কোভিড টিকা বিতরণ ও প্রস্তুতি বিষয়ক কমিটির প্রধান অধ্যাপক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, করোনা টিকা ৮ সপ্তাহ থেকে ১২ সাপ্তাহের মধ্যে টিকা দেওয়া যায়।

তবে টিকা নিয়ে করা জাতীয় কমিটি বলছে এখন কেবল দ্বিতীয় ডোজ নিয়ে ভাবলেই চলবে না। তারা বলছেন সুন্দর সূচনা করেও ভ্যাক্সিনেটেট কার্যক্রমে মাঝপথে এসে এলোমেলো বাংলাদেশ। তাই কেবল উপহারের ওপর ভরসা না করে কঠিন শর্ত হলেও রাশিয়া কিংবা চীনের সঙ্গে চুক্তির তাগিদ তাদের। তারা বলছেন, দিন বাড়লে বাড়তে থাকবে এসব টিকার চাহিদা।

জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটির সদস্য অধ্যাপক  ডা. বে-নজির আহমদে বলেন, টিকা কার্যক্রমে আমরা খারাপ অবস্থানে চলে গিয়েছি। অন্যদিকে রাশিয়া যে কন্ডিশন দিয়েছে সেগুলো মানা আমাদের জন্য কঠিন। কিন্তু আমাদের দেখতে হবে বর্তমান ঝুঁকি, টিকা প্রাপ্যতা এবং ভবিষ্যতের সামগ্রিক লাভ। এগুলো ভেবে রাশিয়ার সঙ্গে চুক্তি করা প্রয়োজন আমি মনে করি।

এছাড়া জনসন ও স্পুটনিক ভি লাইটের মতো এক ডোজের টিকা নিতে সরকারের প্রতি পরামর্শ জাতীয় টিকাদান কারিগরি পরামর্শক দলের।

© ২০২১ সময় টিভি মিডিয়া নেটওয়ার্ক
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়