সম্পূর্ণ নিউজ সময়
বাংলার সময়
১১ টা ৯ মিঃ, ৯ মে, ২০২১

অনিয়মের অভিযোগে পাংশা উপজেলা চেয়ারম্যান বরখাস্ত

নানা অনিয়ম, স্বজনপ্রীতি ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগে রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফরিদ হাসান ওদুদকে চেয়ারম্যান পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। 
করিম ইসহাক

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপজেলা-২ শাখা এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। যা বৃহস্পতিবার (০৬ মে) বিকেলে পাংশা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে পৌঁছায়।

রোববার (০৯ মে) সকালে পাংশা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, গত বৃহস্পতিবার (০৬ মে) বিকেলে তিনি প্রজ্ঞাপনটি হাতে পেয়েছেন। উপজেলা চেয়ারম্যান ফরিদ হাসান ওদুদের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ থাকায় তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

৫ মে তারিখে ইস্যু করা স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপজেলা-২ শাখার উপসচিব মোহাম্মদ সামসুল হক স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে, উপজেলা পরিষদের অধিগ্রহণকৃত জমিতে নির্মিত ১০টি দোকানঘর তার আপন ভাই ও ফুফাতো ভাইদের নামে বরাদ্দ দেয়া, রাজস্ব তহবিল ব্যবহারের নির্দেশিকা অনুসরণ না করে গরিব/মেধাবী শিক্ষার্থীদের পরিবর্তে নিজস্ব লোকের সন্তানদের বৃত্তি প্রদানের মাধ্যমে অর্থ আত্মসাৎ করা, বয়ষ্ক ভাতা কর্মসূচি নীতিমালা (সংশোধিত) ২০১৩ অনুসরণ না করে বয়ষ্ক ভাতা প্রদান এবং নিয়ম বহির্ভুতভাবে উপজেলা পরিষদের তহবিল থেকে পাংশা পৌরসভা এলাকার প্রকল্প বরাদ্দ দেয়া সম্পর্কে আনীত অভিযোগগুলো বিভাগীয় কমিশনারের তদন্তে  প্রমাণিত হয়েছে। এবং যেহেতু প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে তাকে জবাব প্রদানের জন্য বলা হলে তিনি জবাব দেননি এবং পরবর্তীতে তাকে ব্যক্তিগত শুনানি প্রদানের জন্য বলা হলেও তিনি শুনানিতে অংশগ্রহণ করেননি।

সেহেতু উপজেলা পরিষদ আইন ১৯৯৮ [উপজেলা পরিষদ (সংশোধন) আইন ২০১১ দ্বারা সংশোধিত] এর ১৩ ধারার বিধান অনুযায়ী রাজবাড়ী জেলার পাংশা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফরিদ হাসান ওদুদকে পাংশা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদ থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলো। এবং পাংশা উপজেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান-১ কে  উপজেলা পরিষদের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য পরিষদের আর্থিক ক্ষমতা প্রদান করা হলো।

প্রজ্ঞাপনের অনুলিপি পাঠানো হয়েছে মন্ত্রিপরিষদ সচিব, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের মুখ্য সচিব, ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার, স্থানীয় সরকার পরিচালক, পাংশা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ফরিদ হাসান ওদুদসহ মোট ১৩টি দপ্তরে।

এ বিষয়ে কথা বলার জন্য সাময়িক বরখাস্ত হওয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ফরিদ হাসান ওদুদের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল দেওয়া হলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়।

© ২০২১ সময় টিভি মিডিয়া নেটওয়ার্ক
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়