সম্পূর্ণ নিউজ সময়
মহানগর সময়
১৩ টা ২৬ মিঃ, ৭ মে, ২০২১

খালেদার চিকিৎসার বিষয়ে বিএনপির সিনিয়র নেতাদের ভূমিকা কী?

খালেদা জিয়ার চিকিৎসা বিষয়ে বিএনপির সিনিয়র নেতাদের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। শুরু থেকে নেত্রীর করোনা আক্রান্তের বিষয়টি এড়িয়ে গেছেন তারা। বিভিন্ন সময় চেষ্টা করেছেন তথ্য গোপনেরও।
আহমেদ সালেহীন

১১ এপ্রিলের কথা। ওইদিন বেগম খালেদা জিয়ার করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট ভাইরাল হয় সামাজিক মাধ্যমে। রিপোর্টের সত্যতা জানতে যোগাযোগ করা হয় বিএনপির বেশ কয়েকজন শীর্ষ নেতার সঙ্গে। এরমধ্যে কেউ কেউ গুজব বলে উড়িয়ে দেন। আবার কেউ বলেন করোনা পরীক্ষাই করা হয়নি নেত্রীর। স্বাস্ব্য অধিদপ্তর থেকে নিশ্চিত করার পর মুখ খোলেন তারা।

বাসায় চিকিৎসা নেয়ার পর থেকেই বেগম জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও নেতারা বলে আসছেন ভালো আছেন বেগম জিয়া। বাসাতেই মিনি হাসপাতাল করার কথাও জানায় তারা। গত ২৭ এপ্রিল হঠাৎ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তখনও তারা বলেছেন-শুধু শারীরিক পরীক্ষা করাতে হবে, বাসা থেকে আসা যাওয়ার সমস্যার কারণে ভর্তি করা হয়েছে হাসপাতালে। ২-৩দিন থাকলেই ঠিক হয়ে যাবে। তখনও বিএনপি নেত্রীর অসুস্থতার বিষয়টি গোপন করার প্রবণতা দেখা যায়।

এমনকি ৩ মে সিসিইউতে স্থানান্তরের পরও তার শারীরিক অবস্থা নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি করে বিএনপির নেতা ও চিকিৎসকরা। সবশেষ বিদেশে চিকিৎসার অনুমতি চেয়ে পরিবারের আবেদন করার পর মুখে কুলুপ দিয়েছিলেন দলটির শীর্ষ নেতারা। এবিষয়ে জানতে চেয়ে ফোন করা হলে তথ্য নেই বলে এড়িয়ে গেছেন তারা। শুক্রবার (০৭ মে) তার শারীরিক অবস্থা এবং আবেদনের অগ্রগতি নিয়ে কেউ গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে চাননি।

বেগম জিয়ার দণ্ড স্থগিত হয় পরিবারের আবেদনে। তার মুক্তির মেয়াদও বাড়ানো হয় পরিবারের আবেদনে। সবশেষ বিদেশে নিয়ে চিকিৎসার আবেদনটিও করে পরিবার। সবক্ষেত্রে পরিবারের ভূমিকা দেখে তাই অনেকের মনে প্রশ্ন নেত্রীর জন্য দলের শীর্ষ নেতাদের ভূমিকা কী?

© ২০২১ সময় টিভি মিডিয়া নেটওয়ার্ক
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়