সম্পূর্ণ নিউজ সময়
বাণিজ্য সময়
২০ টা ২৩ মিঃ, ৬ মে, ২০২১

চালের দাম পাইকারিতে কমলেও খুচরায় আগের মতোই

চালের দাম পাইকারিতে কেজিপ্রতি দুই থেকে আট টাকা পর্যন্ত কমলেও খুচরা বাজারে আগের দামেই বিক্রি হচ্ছে। দেশে অর্ধেকের বেশি বোরো ধান কাটা হয়েছে। কৃষকের কাছে প্রায় এক কোটি টন চালের সমপরিমাণ ধান মজুত রয়েছে। এতে চালের দাম পাইকারিতে ও মিলগেটে কেজিতে দুই থেকে আট টাকা পর্যন্ত কমেছে তবে এর সুফল পাচ্ছেন না ভোক্তারা। খুচরা বাজারে আগেই দামে বিক্রি হচ্ছে চাল।  
ওয়েব ডেস্ক

সরকারি সংস্থা কৃষি বিপণন অধিদপ্তর এবং ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের হিসাবে খুচরায় সব ধরনের চালের দাম গত এক সপ্তাহে কমেনি। কৃষি মন্ত্রণালয়ের হিসাবে, এবার বোরোতে ২ কোটি ৫ লাখ টন চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করা হয়েছিল। বোরো পেকে ওঠার আগে এপ্রিলের শুরুতে কালবৈশাখী ঝড় ও দাবদাহে এক লাখ টন চালের সমপরিমাণ ধান নষ্ট হয়েছে। তবে গত বছরের চেয়ে এবার বেশি জমিতে বোরো ধান চাষ হয়েছে। ফলে মোট উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ছুঁয়ে যাবে বলে মন্ত্রণালয় থেকে আশা প্রকাশ করা হয়েছে।

এর আগে কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক জানান, এখন যে ধানগুলো উঠছে, সেগুলো কিছুটা ভেজা। এগুলো শুকালে দাম আরও বাড়বে।

সরকার এবার ধান কাটা শুরুর সঙ্গে সঙ্গে বোরো সংগ্রহ শুরু করেছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ধান বেশি করে কেনায় এবার কৃষকেরা লাভবান হবেন। আর বিদেশ থেকেও চাল আমদানির দরকার হবে না।

দেশে ধান-চালের ব্যবসা বেশি হয় কুষ্টিয়া, নওগাঁ ও রংপুরে। এসব এলাকার হাটগুলোতে প্রতিদিনই বিপুল পরিমাণ ধান উঠছে। সরকার প্রতি কেজি মোটা ধান ২৭ টাকায় কেনার ঘোষণা দিয়েছে। কিন্তু রংপুরে প্রতি কেজি ধান ২০ টাকা, নওগাঁয় ১৭ থেকে ১৮ টাকা এবং কুষ্টিয়ায় ১৮ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে এগুলো মূলত ভেজা ধান। শুকালে দাম কেজিতে দুই থেকে তিন টাকা পর্যন্ত বাড়বে বলে জানা গেছে। তাতেও সরকার নির্ধারিত দামের চেয়ে ধানের দাম কমই বাজারে।

এদিকে কুষ্টিয়ার চালের মোকামে গত এক সপ্তাহ আগেও মাঝারি মানের চালের ৫০ কেজির বস্তা ২ হাজার ৮০০ থেকে ৩ হাজার টাকায় বিক্রি হয়েছে। বৃহস্পতিবার তা কমে ২ হাজার ৬০০ টাকায় নেমে এসেছে। প্রতি কেজির দাম ৫৯ থেকে কমে ৫২ টাকা হয়েছে। মোটা চালের কেজি ৪০-৪২ থেকে কমে ৩৮ টাকায় এসেছে।

বৃহস্পতিবার (৬ মে) ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) হিসাবে খুচরা বাজারে মোটা চাল প্রতি কেজি ৪৪ থেকে ৪৮ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। মাঝারি সরু চাল ৫৫-৬৪ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। মাঝারি চাল ৫০ থেকে ৫৬ এবং সরু চাল বিক্রি হচ্ছে ৫৫ থেকে ৬৪ টাকায়। সব ধরনের চালের দাম গত এক সপ্তাহে ১ থেকে ২ টাকা কমেছে।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ অটো, মেজর, হাসকিং ও চালকল মালিক সমিতির কুষ্টিয়া জেলার সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদিন বলেন, আমরা চালের দাম কমিয়ে দিয়েছি। কিন্তু বেচাকেনা কম।

ধানের দাম কম থাকার পরও কেন চালের দাম বেশি  এমন প্রশ্নের উত্তরে এক চালকলের মালিক বলেন, বোরোর চাল বাজারে আসতে জুন-জুলাই লেগে যাবে। এখন বাজারে যে চাল বিক্রি হচ্ছে, তা আমনের, আর এগুলোর ধান আমাদের বেশি দামে কিনতে হয়েছে।

খাদ্য মন্ত্রণালয়ের হিসাব অনুযায়ী, গত ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত সরকারি গুদামে চালের মজুত ছিল ২ লাখ ৯৭ হাজার টন, যা গত ১৩ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। মজুত বাড়াতে সরকারের ১০ লাখ টন আমদানির পরিকল্পনার মধ্যে ভারত, মিয়ানমার ও ভিয়েতনাম থেকে সাড়ে ছয় লাখ টন চাল আমদানির প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। আর বেসরকারি খাতকে দেয়া আরও ১০ লাখ টন চাল আমদানির বেশির ভাগই ভারত থেকে আসছে।

© ২০২১ সময় টিভি মিডিয়া নেটওয়ার্ক
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়