সম্পূর্ণ নিউজ সময়
স্বাস্থ্য
১১ টা ৩৩ মিঃ, ৫ মে, ২০২১

করোনা রোগীদের রোজা নিয়ে অধ্যাপক আবদুল্লাহ’র পরামর্শ

রমজানে স্বাস্থ্য নিয়ে সময় নিউজের সাপ্তাহিক আয়োজন ‘বদ্যি বাড়ি’তে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক এবিএম আবদুল্লাহ।
স্বাস্থ্য সময় ডেস্ক

করোনা পজিটিভ হলে রোজা রাখা যাবে কিনা?

অধ্যাপক এবিএম আবদুল্লাহ: এটা (করোনা) হলে নির্ভর করে রোগীর স্বাস্থ্যের ওপর। যদি মৃদু উপসর্গ হয়: যেমন হালকা জ্বর, সর্দি, কাশি ও ঘ্রাণ না পাওয়া এমন উপসর্গ হলে তাহলে রোজা রাখতে সমস্যা নেই। তবে, রোগীর অবস্থা খারাপ হয়, শ্বাসকষ্ট, অনেক কাশি থাকে এবং অক্সিজেনের লেভেল কমে যায়; তাহলে রোজা রাখা ঠিক হবে না।  

করোনায় আক্রান্ত কোন ধরনের রোগীরা রোজা রাখতে পারবেন না?

অধ্যাপক এবিএম আবদুল্লাহ: আক্রান্ত রোগীর লক্ষণ যদি সিরিয়াস হয়, শ্বাসকষ্ট থাকে। তাহলে রোজা রাখা ঠিক হবে না। এছাড়াও ডায়াবেটিস, লিভার, ক্যান্সার, অ্যাজমা, স্ট্রোকের রোগীর যদি করোনা হয় তাহলে তার জন্য রোজা রাখা ঝুঁকিপূর্ণ। এ ধরনের রোগীদের জটিলতা রাড়তে পারে এবং মৃত্যুঝুঁকিও থাকে। রোগীর অক্সিজেন লেভেল যদি ৯৫ নিচে নেমে যায় তার জন্য রোজা আরও ঝুঁকিপূর্ণ।

রোজা রেখে টিকা নেয়া যাবে কি না?

অধ্যাপক এবিএম আবদুল্লাহ: এটা গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন। আমাকে অনেক রোগীরা এই প্রশ্ন করেছের। শুরুতে টিকা নিয়ে মানুষের মধ্যে ভয়, আতঙ্ক ছিলো; সেটা কাটিয়ে মানুষ টিকা নেয়া শুরু করেছে। যেহেতু দেশে টিকা দেয়ার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এতে অনেকের রোজার মধ্যে দ্বিতীয় ডোজ নেয়ার সময় এসেছে। আবার অনেকে প্রথম ডোজ নেয়ার তারিখ পড়েছে। রোজা রেখে টিকা নেয়া যাবে। আমাদের ইসলামিক ফাউন্ডেশন এই ব্যাপারে একটি নির্দেশনা দিয়েছেন। সেখানে বলা হয়েছে, টিকা নিলে রোজা ভঙ্গ হবে না। কেননা মানুষের জীবন বাঁচানো সবচেয়ে বেশি জরুরি। আর এটা নিলে রোজা ভঙ্গ হবে না। যারা এখনো ভয় পাচ্ছেন; তাদেরকে বলছি, রোজা নিলে রোজা ভঙ্গ হবে না। আপনারা নির্ভয়ে নিতে পারেন।

মসজিদে জামায়াতে নামাজের আদায়ের আপনার কোন পরামর্শ জানতে চাই?

অধ্যাপক এবিএম আবদুল্লাহ: করোনা একটি মারাত্বক চোঁচাছে রোগ। এজন্য আমাদের স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। একই সঙ্গে মাস্ক পরা, সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা, হাত ধুয়ার অভ্যাস রাখতে হবে। তবে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন তিন ফিট দুরত্ব বজায় রাখা। আপনি সেখানে কোনভাবে সংক্রমিত হন, তাহলে আপনার পরিবারের বাবা-মাসহ পরিবারের অনেকে আক্রান্ত হবেন। একই সঙ্গে প্রতিবেশিদেরও সংক্রমিত করবেন। সেজন্য সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা খুবই জরুরি। এছাড়া রমজান মাসে ইফতার ও সেহরি পার্টির ধুম পড়ে যায়। এটা আমাদের কালচার; আমি বিরোধিতা করছি না। করোনার কারণে এগুলো বর্জন করতে হবে। বাহিরের লোকজনসহ আত্মীয় স্বজনদের ঘরে দাওয়াত থেকে এখন বিরত থাকুন।

© ২০২১ সময় টিভি মিডিয়া নেটওয়ার্ক
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়