মো. বিলাল হোসেন বিপ্লব
আপডেট
২৮-১১-২০২০, ২২:৪৭

জমি-জমার ক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের দলিল

জমি-জমার ক্ষেত্রে বিভিন্ন ধরনের দলিল
দলিল বলতে কোন চুক্তির লিখিত এবং আইনি প্রমাণককে বুঝানো হয়ে থাকে। আমাদের দেশে দলিল বলতে সবাই মূলত জমি-জমার দলিলকেই বুঝে থাকেন। তবে জমি-জমার ক্ষেত্রেও বিভিন্ন ধরনের দলিল হয়ে থাকে। আজ আমরা জমি-জমার ক্ষেত্রে কি কি দলিল হয়ে থাকে সেসব বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো।

জমির বিভিন্ন ধরনের দলিল থাকতে পারে। বিক্রয় দলিল থেকে শুরু করে ভূমি উন্নয়ন কর খতিয়ান সবই হচ্ছে দলিল। ক্রেতাকে প্রথমেই দেখতে হবে সবশেষে যে দলিল করা হয়েছে, তার সঙ্গে আগের দলিলগুলোর মিল আছে কি না। বিশেষ করে, ভায়া দলিলের সঙ্গে সামঞ্জস্য আছে কি না, দেখতে হবে। ভায়া দলিল হচ্ছে মূল দলিল, যা থেকে পরের দলিল সৃষ্টি হয়। ধরা যাক, আপনি কিছু জমি ১৯৯০ সালে ৪৭০ নম্বর রেজিস্ট্রি দলিলের মাধ্যমে কেনেন। সেই জমি ২০০৮ সালে অন্য একজনের কাছে ৫২০ নম্বর রেজিস্ট্রি দলিলে বিক্রি করলেন। তাহলে আগের ৪৭০ নম্বর দলিলটি হচ্ছে ভায়া দলিল।

হস্তান্তর করা দলিলে দাতা এবং গ্রহীতার নাম, ঠিকানা, খতিয়ান নম্বর, জোত নম্বর, দাগ নম্বর, মোট জমির পরিমাণ ভালো করে দেখতে হবে। আরেকটি বিষয় খেয়াল করতে হবে, যে ভায়া দলিল থেকে পরবর্তী দলিল করা হয়েছে, তাতে প্রতি দাগের হস্তান্তরিত জমির পরিমাণ ঠিক আছে কিনা। অনেক সময় আগের দলিলের চেয়ে পরের দলিলে বেশি জমি দেখানো হয়।

দলিলের এসব তথ্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। দলিল সম্পাদনের সময় এসব বিষয়ে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে। 

সম্পত্তি ক্রয়পূর্ব প্রস্তুতি মালিকানা স্বত্বের তদন্ত ও তল্লাশি:

সম্পত্তি ক্রয়-বিক্রয়ের ক্ষেত্রে ক্রেতার অবশ্য কর্তব্য হচ্ছে ক্রয়েচ্ছু সম্পত্তির স্বত্বের তদন্ত ও তল্লাশি। স্থাবর সম্পত্তির ক্ষেত্রে বিক্রেতার নিকট হতে প্রাপ্ত স্বত্ব সম্পর্কীয় দলিলাদি পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পরীক্ষা করে দেখতে হবে। বিক্রেতার বর্তমান মালিকানা স্বত্ব কিরূপে কবে এবং কতখানি বর্তাইয়াছে দেখতে হবে।বিক্রেতা যদি ওয়ারিশান সূত্রে সম্পত্তির মালিক হন তাহা হলে তার পূর্ববর্তী মালিকদের ধারাবাহিক ও বৎসরানুক্রমিক একটি তালিকা প্রস্তুত করা আবশ্যক। তদন্ত করে দেখতে হবে বিক্রেতার পূর্ববর্তী মালিকের এই সম্পত্তিতে বৈধ মালিকানা স্বত্ব ছিল কিনা। কিংবা থাকলেও সময় প্রবাহে তাদের মালিকানা স্বত্ব কোনরূপ খর্ব হয়েছে কিনা। ওয়ারিশান সূত্রে প্রাপ্ত বিক্রেতার সম্পত্তির উপর অন্য কোন ওয়ারিশানের হক আছে কিনা এবং তাকলে ছাহাম বণ্টন হয়েছে কিনা।বিক্রেতা খরিদসূত্রে বিক্রয়েচ্ছু সম্পত্তির মালিক হলে, সে যার নিকট হতে সম্পত্তি খরিদ করেছে তাহার বৈধ মালিকানা-স্বত্ব ছিল কিনা এবং থাকলে সঠিক রেজিস্ট্রি করে স্বত্বান্তর করা হয়েছে কিনা। বিক্রেতার মালিকানা-স্বত্ব সম্পর্কীয় চেক, পরচা, নকশা ইত্যাদি পরীক্ষার পর সম্পত্তি সম্পর্কিত ইতিপূর্বে সম্পাদিত দলিল দস্তাবেজ যাহাকে ‘বায়া দলিল’ বলে পরীক্ষা করতে হবে।

ইতিপূর্বে দলিল দস্তাবেজ বলতে মূল দলিল, বন্টননামা, হেবা-নামা, সালিশি আদালতে হুকুমজারি, ট্রাস্ট দলিল, ওয়াকফনামা, স্বত্ব প্রত্যর্পণ সম্পর্কিত কোন দলিলাদি, উইলের প্রবেট ইত্যাদি বোঝায়। বিক্রেতার স্বত্বের প্রমাণ হিসাবে দেওয়ানী আদালতের রায়ের কপি নাম জারির সইমোহরী কপি, সরকারী বা স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে প্রদত্ত কর বা খাজনার রসিদপত্র ইত্যাদি যাচাই করে দেখা উচিত।  দখলী স্বত্বঃদলখ মালিকানা স্বত্বের অবিচ্ছেদ্য অংশ। বিক্রেতাকে সম্পত্তির উপর গিয়ে সঠিকভাবে নির্ধারণ করতে হবে বিক্রেতার সম্পত্তির উপর কার্যকরী দখল আছে কিনা। সম্পত্তিটি যদি অন্য কাহারও দখলে থাকে তাহা হলে দখলকাররা কেন, কতদিন ও কি সূত্রে দখলে আছে এবং তাহা বিক্রেতার স্বত্ব ক্ষুণ্ণকারক কিনা যাচাই করা উচিৎ।

তল্লাশি:

ক্রেতার ক্রয়েচ্ছু সম্পত্তি তল্লাশি করা একান্তভাবে আবশ্যক। যে রেজিস্ট্রেশন অফিসের এখতিয়ারভূক্ত এবং রাজস্ব দফতরে সম্পত্তিটির কাগজপত্র সংরক্ষিত হয়, এই উভয় স্থানে তল্লাশি করা উচিত। বিক্রেতা তার স্বত্ব প্রমাণের জন্য যে সকল কাগজ ও দলিলাদী উপস্থাপন করে তা সঠিক কিনা সে বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কার্যালয়ে গিয়ে পরীক্ষা করেই নিশ্চিত হওয়া যায়। 

বিভিন্ন প্রকার দলিল

আমাদের দেশে বিশেষ করে জমি-জমা ক্রয়-বিক্রয়,বণ্টন এবং হস্তান্তরের ক্ষেত্রে দলিল শব্দটি ব্যবহার করা হয়। দলিলের মূল পাঁচটি বিষয় হলো-

১) জমির বিস্তারিত বিবরণ
২)জমি দাতার /বিক্রেতার পরিচয়
৩)জমি গ্রহীতা /ক্রেতার পরিচয়
৪) সাক্ষীদের পরিচয়
৫)দলিল সম্পাদনের তারিখ

এসব তথ্য সব ধরনের দলিলেই থাকতে হবে। 

সাফকবালা: কোন ব্যক্তি তাহার সম্পত্তি অন্যের নিকট বিক্রয় করে যে দলিল সম্পাদন ও রেজিষ্টারী করে দেন তাকে সাফাকবালা বা বিক্রয় কবলা বা খরিদা কবালা বলা হয়। এই কবালা নির্ধারিত দলিল ষ্ট্যাম্পে লিখার পর দলিল দাতা অর্থাৎ বিক্রেতা সাবরেজিষ্টারী অফিসে উপস্থিত হয়ে দলিল সহি সম্পাদন করে গ্রহীতা অর্থাৎ খরিদ্দারের বরাবরে রেজিস্টারি করে দিবেন। এই দলিল রেজিস্টারি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দলিলের তফছিলে লিখিত অর্থাৎ বিক্রিত ভূমির যাবতীয় স্বত্ব দলিল দাতা হতে বিলুপ্ত হয়ে দলিল গ্রহিতাতে অর্থাৎ খরিদ্দারের উপর অর্পিত হলো। দলিলদাতা ওয়ারিশানক্রমে উক্ত জমি হতে নিঃস্বত্ববান হলেন।

দানপত্র দলিল: যেকোনো সম্প্রদায়ের যে কোন ব্যক্তি তার সম্পত্তি দান করতে পারেন। এই দানপত্র দলিলে শর্তবিহীন অবস্থায় সকল প্রকার ক্ষমতা প্রদানের দান করতে হবে। স্বত্ব সম্পন্ধে দাতার কোন প্রকার দাবী থাকলে দানপত্র শুদ্ধ হবে না।

হেবা দলিল: মুসলিম সম্প্রদায়ের জন্য এই হেবা অর্থাৎ দানপত্র দলিল, এই দলিল কোন কিছুর বিনিময়ে নয়, কেবলমাত্র সন্তুষ্ট হয়ে এইরূপ দান করা হয়। কিন্তু এই হেবা সর্তবিহীন অবস্থায় দান বিক্রয়, কট রেহান ও রূপান্তর ইত্যাদি সকল ক্ষমতা প্রদানে দান বা হেবা করতে হবে। স্বত্ব সম্বন্ধে দাতার কোনরূপ দাবী থাকলে সেই দান বা হেবা শুদ্ধ হবে না এবং তা যে কোন সময় বাতিল যোগ্য। এরূপ দানপত্রে দাতার কোন স্বার্থ সংরক্ষিত থাকবে না।
 
হেবা বিল এওয়াজ: এই হেবা বিল এওয়াজ মুসলিম সম্প্রদায়ের একটি দানপত্র দলিল এই দানও সন্তুষ্ট হয়ে করা হয় বটে। কিন্তু ইহা কোন কিছুর বিনিময়ে হয়ে থাকে, যেমন- পবিত্র কোরআন, জায়নামাজ, তছবিহ, মোহরানার টাকা, এমন কি যে কোন জিনিষের বিনিময়েও হতে পারে, যেমন আংটি ইত্যাদি। এই হেবা বিল এওয়াজ দলিল সম্পূর্ণ শর্তবিহীন অবস্থায় গ্রহিতা যাবতীয় হস্তান্তর ও রূপান্তরের সকল প্রকার ক্ষমতার অধিকারী হবে এবং দাতার যাবতীয় স্বত্ব গ্রহিতাতে অর্পিত হবে। দাতার স্বার্থে কোনপ্রকার স্বত্ব দাতার জন্য সংরক্ষিত থাকলে দলিল শুদ্ধ হবে না। এই হেবা বিল এওয়াজ অবশ্যই রেজিস্টারি হতে হবে। এই হেবা বিল এওয়াজ যদি টাকা বিনিময়ে হয় এবং ক্রমিক ওয়ারিশী সূত্রে আগে পরে তিন ধাপের পরের ব্যক্তিকে বা তৃতীয় ব্যক্তিকে হেবা বিল এওয়াজ মুলে দান করে থাকে তা হলে শরীক কর্তৃক জানার তারিখ হতে ৪ মাসের মধ্যে প্রিয়েমশান করতে পারে।

এওয়াজ দলিল: যে কোন সম্প্রদায়ের বা একই সম্প্রদায়ের বা একই বংশের বা কোন ব্যক্তি যে কোন ব্যক্তির সহিত তাহাদের লপ্ত ও সুবিধা মত একের ভূমি অপরকে দিতে পারেন অর্থাৎ পরস্পর এওয়াজ পরিবর্তন সরতে পারেন। এই দলিল অবশ্যই রেজিস্টারি হতে হবে। এওয়াজ পরিবর্তন দলিলের একটা ব্যাখ্যা দেওয়া হলো- ক এর জমি খ এর বাড়ীর নিকট এবং খ এর জমি ক এর বাড়ীর নিকট। উভয়ের জমিই উভয়ের বেলপ্ত। কাজেই ক তার জমি 'খ'কে এবং তার জমি ক কে দিয়ে উভয়ে একটি দলিল সম্পাদন করে রেজিস্টারি করে নিল।একেই এওয়াজ পরিবর্তন দলিল বলে। এই দলিলের কেহ প্রিয়েমশান করতে পারে না। 

বন্টননামা দলিল: শরিকগণের মধ্যে সম্পত্তি ক্রমে নিজ নিজ ছাহাম প্রাপ্ত হয়ে উক্ত ছাহামের বাবদ যে দলিল করতে হয় তাকে বন্টননামা দলিল বলে। একই সম্পত্তিতে মালিক একই বংশের লোককে সাধারণত শরিক বলা হয়। শরিক দুই প্রকারের, যথা- উত্তরাধিকার সূত্রে শরিক ও কোন শরিক হতে খরিদ সূত্রে শরিক। ইংরেজিতে বলা হয় কো-শেয়ারার বাই ইনহেরিটেন্স এন্ড কো-শেয়ারার বাই পারচেজ। বন্টননামা দলিল করবার সময় সকল শরিকগণ দলিলে পক্ষভুক্ত থেকে ও দস্তখত করে বন্টননামা দলিল করতে হবে। কোন একজন শরিক বাদ থাকলে বন্টননামা শুদ্ধ হবে না। বন্টননামা দলিল রেজিষ্টারী করতে হবে কিন্তু ঘরোয়াভাবে বণ্টন করে সকল পক্ষগণ যদি বন্টননামা দলিলে দস্তখত করে থাকেন তা হলেও বন্টননামা কার্যকরী হতে পারে। যদি শরিকগণ আপোষমতে বণ্টন করতে রাজী না হন তাহলে যে কোন শরিক বন্টনের জন্য আদালতে নালিশ করতে পারেন।
 
অছিয়তনামা দলিল: কোন ব্যক্তি তার সম্পত্তি কাউকে বা তার উত্তরাধিকারীদের মধ্যে অছিয়তকারী ব্যক্তির উত্তরাধিকারীদের মধ্যে সকলকে না দিয়ে যদি একজনকে বা কোন তৃতীয় ব্যক্তিকে প্রদান করে থাকেন এবং অছিয়তকারীর মৃত্যুর পর যদি তাহার উত্তরাধিকারীগণ দাবী উত্থাপন করেন তাহলে যাকে সম্পত্তি অছিয়ত করা হলো সেই ব্যক্তি উক্ত সম্পত্তির এক তৃতীয়াংশ পাবে এবং অবশিষ্ট দুই তৃতীয়াংশের মালিক উত্তরাধিকারীদের মধ্যে সকলেই হবেন।

উইল দলিল: হিন্দু সম্প্রদায়ের লোক তাদের নিজস্ব সম্পত্তি তাদের আত্মীয়দের মধ্যে যাকে ইচ্ছা উইল করে দিতে পারেন। যিনি উইল করলেন তিনি জীবমানে একের অধিক উইল করতে পারেন। কিন্তু সর্বশেষ যে উইল করলেন কেবল ঐটাই কার্যকরী হবে। 

না-দাবী দলিল: কোন ব্যক্তি সুনির্দিষ্ট কোন সম্পত্তিতে তার স্বত্বাধিকার নাই মর্মে অথবা স্বত্বাধিকার ত্যাগ করছেন মর্মে দলিল সম্পাদন ও রেজিস্ট্রি করে দিতে পারেন। এরূপ দলিলকে নাদাবী দলিল বলা হয়।

বায়নানামা দলিল: প্রজাদের ভূমি রাজস্ব বাকী পড়লে উপরস্থ মালিকগণ আদালতে খাজনার নালিশ করে ডিক্রি করতেন। প্রজা উক্ত ডিক্রিকৃত টাকা জমিদারকে প্রদান না করলে উক্ত খাজনার ডিক্রি জারী দিয়ে উক্ত ভূমি নিলাম করাতেন। উক্ত নিলাম উপরস্থ মালিকসহ সর্বসাধারণের খরিদ করবার অধিকার ছিল। যে ব্যক্তি অধিক টাকায় নিলামের ডাক উঠাতেন তিনি উক্ত নিলাম খরিদ্দার বলে গণ্য হতেন। খাজনার ডিক্রি ছাড়া আরও কয়েক প্রকারের নিলাম হয়ে তাকে যেমন সরকার কর্তৃক বাকী ভূমি রাজস্বের নিমিত্তমানী মোকদ্দমার দাবীর ও দেওয়ানী মোকদ্দমার খরচের টাকার নিমিত্ত ও রেহানী ঋণের দরুন। যিনি নিলাম খরিদ করতেন তাকে একটি নিদর্শন পত্র বা সার্টিফিকেট দেওয়া হতো, তাকে বয়নামা বলা হয়।

দখলনামা দলিল: বন্টনের মোকদ্দমা, স্বত্ব সাব্যস্ত পূর্বক খাস দখল, উৎপাত ও প্রিয়েমশান ইত্যাদি মোকদ্দমায় ডিক্রির পর আদালত হতে বন্টনের মোকদ্দমায় কমিশনার ও অন্যান্য মোকদ্দমায় আদালতের পদাতিক বা নায়েব, নাজির যোগে ডিক্রির মর্ম মতে দখলী পরওয়ানের ভিত্তিতে দখল গ্রহণ করিতে হয় এবং দখল দেওয়ার পর কমিশনার ও আদালতের পদাতিক বা নায়েব নাজির রিপোর্টসহ উক্ত দখলী পরওয়ানা আদালতে দাখিল করেন। তাকে দখলনামা দলিল বলা হয়।

লেখক: সহকারী কমিশনার (ভূমি), হরিরামপুর, মানিকগঞ্জ।



DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ
করোনা ভাইরাস লাইভ আপডেট
আক্রান্ত চিকিৎসাধীন সুস্থ মৃত্যু
৫৩৩৪৪৪ ৪৭৪৩৭ ৪৭৭৯৩৫ ৮০৭২
বিস্তারিত
আমি করোনার টিকা নিইনি: রুমিন ফারহানা ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা কিশোরী: বোনের ভাসুর মাদরাসা শিক্ষকের দায় স্বীকার অভিনেত্রী সায়নীকে যৌনকর্মী বললেন বিজেপি সাংসদ এমপি পাপুলের ৪ বছরের কারাদণ্ড জলবায়ু পরিবর্তনরোধে যুক্তরাষ্ট্রকেই নেতৃত্ব দিতে হবে: বাইডেন ভবনের টয়লেটে শিশুর বস্তাবন্দি লাশ দুই পদে নিয়োগ দেবে চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড ‘যেমন খুশি তেমন সাজতে’ পারবেন মার্কিন নারী সেনারা গাছ লাগানো হবে কাবা শরীফে, নকশা প্রকাশ প্রেমিককে বিয়ে করতে ভারতে ফাতিমা, ফিরলেন ১০ বছর পর গাঙ্গুলির হৃদযন্ত্রে স্টেন্ট বসানো সম্পন্ন খাসির মাংসে কি করোনা ছড়ায়? শাহেদের বিরুদ্ধে দুই মামলার চার্জ গঠন: শুনানি ২৩ ফেব্রুয়ারি আলোচনায় ব্যাচেলর পয়েন্টের ‘নোয়াখালীর শিমুল’ সেনাবাহিনীর ৬ কোরে চাকরির সুযোগ দ্বিতীয় দিনে মন্ত্রী-সচিবসহ টিকা নিলেন ৫৪২ জন ‘নাসার কয়েন’ দেখিয়ে ব্যবসায়ীর কোটি টাকা লোপাট! ব্যবসা সূচকে এবার যথেষ্ট উন্নতি করবে বাংলাদেশ: বিডা চেয়ারম্যান ৩৮তম বিসিএস: ২১২৯ প্রার্থীর গেজেট প্রকাশ আলোড়ন তুলেছে ‘কেজিএফ: চ্যাপ্টার টু’ ‘স্ত্রীর মাংস খাওয়া হালাল’, সৌদি মুফতির নামে ফতোয়া কতটা সত্য? হবিগঞ্জে দেওয়াল ধসে দুই শ্রমিকের মৃত্যু অগ্নিকাণ্ডের পর স্বাভাবিক হচ্ছে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল টিকা নিয়েছি, কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়নি: পলক বিয়ে করতে ভয় পাচ্ছেন নায়িকা আইরিন একুশে বইমেলার তারিখ চূড়ান্ত কলা খেলে ঘুম ভাল হয় টেকনিশিয়ানের ভুলে জরিমানার মুখে কসাই সৌরভ গাঙ্গুলির শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল তৃতীয় পক্ষ নয়, সরাসরি ঢাকার সঙ্গে যোগাযোগ করুন: ওয়াশিংটনকে পররাষ্ট্র সচিব ঢাকায় সাংবাদিক সম্মেলনের ডাক কাদের মির্জার দক্ষিণ আফ্রিকায় বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা ‘আওয়ামী লীগ নয়, বিএনপির প্রতিপক্ষ পুলিশ-প্রশাসন’ ফেব্রুয়ারির মধ্যেই ক্রিকেটারদের ভ্যাকসিন দেয়া হবে বয়স্কভাতা থেকে বঞ্চিত ৮০ বছরের সুরধনী, মেম্বারের ষড়যন্ত্রের অভিযোগ ‘দাদি’র বিরুদ্ধে থানায় নায়িকা সুবহা স্পেস স্টেশনের ক্যামেরায় ধরা পড়ল ভুতুড়ে আলো (ভিডিও) চট্টগ্রামের নির্বাচন অনিয়মের মডেল: মাহবুব তালুকদার খুলনায় ১০০ কোটি টাকার সাপের বিষ উদ্ধার রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমার অপরাধ করেই যাচ্ছে! চলচ্চিত্র প্রযোজক সমিতিতে প্রশাসক বহালের নির্দেশ ক্রাইস্টচার্চের আদলে সিঙ্গাপুরে মসজিদে হামলা পরিকল্পনা, কিশোর আটক উন্নয়ন প্রকল্পের লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী বাস্তবায়ন চান কৃষিমন্ত্রী জেমস ফটোগ্রাফার, মডেল জয়া শুধু শ্বাস পরীক্ষাতেই বোঝা যাবে করোনায় আক্রান্ত কিনা ১৪২ মণ জাটকা আটক করেছে কোস্টগার্ড মায়ের ভালোবাসা ছুঁয়ে গেল নেটিজেনদের হৃদয় (ভিডিও) ভাসানচরে যাচ্ছে রোহিঙ্গাদের গাড়িবহর ‘প্রশাসনকে কার্যকর করতে ঊর্ধ্বতনদের দায়িত্বশীল হতে হবে’ ‘বিমান ভাড়া’ কমাতে চার তরুণের ৩০ কেজি কমলা ভক্ষণ টিকা দেওয়ার দ্বিতীয় দিনে কমল মৃত্যু ও আক্রান্ত বিচিত্র ছাগলছানা: কপালের উপর এক চোখে দুই মনি কক্সবাজার হাসপাতালের অগ্নিকাণ্ড অনুসন্ধানে কমিটি শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্র যাচ্ছেন সেনাপ্রধান ‘আওয়ামী লীগ প্রতিদ্বন্দ্বী ছিল না’ ট্রেলারে নুসরাতের পরকীয়া (ভিডিও) পরিত্যক্ত সেই ১১৫ রাউন্ড গুলি জাদুঘরে উদ্ভট গল্পের ফাঁদ, হাতিয়ে নিচ্ছে কোটি কোটি টাকা নারী স্বাস্থ্যকর্মীকে পেটালেন আ.লীগ নেতা কিশোরীকে ধর্ষণের পর ধর্মান্তকরণের চাপ! কথার ফুলঝুড়ি দিয়ে নয়, কাজ করতে হবে: মেয়র রেজাউল নওগাঁয় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড মার্কিন সাংবাদিক হত্যার আসামিকে মুক্তি দিলেন পাকিস্তানের আদালত যারা টিকা নিয়েছেন তারা সুস্থ আছেন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রথম প্রান্তিকে লাভ কমার আশঙ্কা স্যামসাংয়ের মন্দার কবলে রংপুরের ‘শ্রমিকের হাট’ করোনার টিকা নিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান না খুলতে সরকারকে লিগ্যাল নোটিশ ইরানে হামলার ছক ইসরাইলের, এবার সংঘাত কি অনিবার্য? ‘পরিবেশবিষয়ক আইন যুগোপযোগী করা হবে’ সম্রাট-আরমানের বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন ৩ মার্চ ৩ স্বর্ণ চোরাকারবারির ১৪ বছরের কারাদণ্ড শিক্ষার্থীদের প্রতি দীপু মনির অনুরোধ অবশেষে সাজার দায় থেকে মুক্তি পেলেন কামরুল সরকারি পাটকল বন্ধের সিদ্ধান্ত যৌক্তিক ছিল: পাটমন্ত্রী বিএনপিকে ধন্যবাদ কাদেরের গাড়ির নিচে ‘বোমা’ বেঁধে ২০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি, গ্রেফতার কিশোর বিএনপি তো এজেন্টই দিতে পারেনি: হাছান নতুন দুই সিনেমায় তিশা কাদের মির্জার সংবর্ধনায় এমপি মমতাজের গান (ভিডিও) মোদির ঢাকা সফর চূড়ান্ত করতে ভারত যাচ্ছেন পররাষ্ট্র সচিব চসিক নির্বাচন সুষ্ঠু হয়নি, রক্তপাত হয়েছে: কাদের মির্জা করোনার বছরেও গ্রামীণফোনের আয় ১৪ হাজার কোটি টাকা! স্বাধীনতা অর্থবহ করে সমৃদ্ধ দেশ গড়ার কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী ভারতে প্রবেশের সময় ১২ নারীসহ আটক ২২ সিনেমা থেকে বাদের খবরে যা বললেন দীঘি রাত ১২টার পর বের হলেই ধরবে পুলিশ বঙ্গবন্ধুর মতাদর্শ এখন সারা পৃথিবীর জন্য প্রাসঙ্গিক: অমর্ত্য সেন আজমকে তুলে নিয়ে মারধর, মুক্তিপণ আদায় করে ফেলে যায় ওরা এইচএসসির ফল প্রকাশ হতে পারে রোববার এক সময়ের পরিত্যক্ত জমি এখন চায়ের রাজ্য! নিজের পোস্টার সরিয়ে ‘সিঙ্গাপুর’ গড়ার কাজ শুরু করলেন কাদের মির্জা দুর্নীতির সূচকে শীর্ষে দক্ষিণ সুদান ও সোমালিয়া দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা দিনাজপুরে শৈত্যপ্রবাহ থাকবে আরো ৪ দিন এ বছর পর শেষ হচ্ছে পদ্মা সেতুর কাজ ২৫ বছরের সম্পর্ক ভাঙছেন লোপামুদ্রা! ভারতের টিকা পৃথিবীর সবচেয়ে নিরাপদ, দাবি সেব্রিনার ভারত থেকে চিরকালের জন্য চলে যাচ্ছে টিকটক রাতে ভালো ঘুমিয়েছেন সৌরভ, সকালে নাশতা করেছেন স্বাভাবিক
আরও সংবাদ...
বাসা ফাঁকা পেলেই বান্ধবীদের নিয়ে ফুর্তি করত দিহান আনুশকার শরীরে ‘ফরেন বডি’র আলামত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলতে লিগ্যাল নোটিশ ৭ বছর আগে মারা যাওয়া বাবাকে গুগলে খুঁজে পেলেন সন্তান! ফুটপাতেই ১০ বছর ভিক্ষুক জীবন পুলিশের শুটারের! সমালোচকদের জবাব দিলেন ভাইরাল সেই টম ইমাম আবারও প্রভার ভিডিও ভাইরাল! যুবককে চেয়ারে বেঁধে শারীরিক সম্পর্ক তরুণীর, ফাঁস লেগে মৃত্যু! জন্মতারিখ অনুযায়ী কেমন যাবে ২০২১ সাল ধর্ষণের উদ্দেশ্যে নয়, একান্তে সময় কাটাতে বাসায় ডেকেছিল: দিহানের মা কারাগারেই নারীর সঙ্গে দীর্ঘ সময় কাটান তুষার, সিসিটিভিতে ধরা নববর্ষ উদযাপন করতে গিয়ে যুবকের করুণ মৃত্যু বিকৃত যৌনাচারের ‘ফরেন বডি’সহ নানা উপাদানে সয়লাব দেশের বাজার দিহানের বাসার সিসিটিভিতে যা পাওয়া গেল জীবনসঙ্গী থাকতেও অন্যের প্রতি আকর্ষণ যে ৪ কারণে মানুষের ভিতরে কেন এত যৌন কাম: এসপি আবিদা তৃতীয় সন্তানের বাবা হচ্ছেন সাকিব! অনুষ্ঠানে গান বাজালে জানাজা বা বিয়ে না পড়ানোর ঘোষণা ঠোঁটের লিপস্টিক বলে দেবে নারীর চরিত্র ভারতীয় ক্রিকেটারদের দিয়ে টয়লেট পরিষ্কার করাচ্ছে অস্ট্রেলিয়া! গৃহবধূকে হত্যার পর চামড়া ছিলে লবণ লাগানোর বর্ণনা দিলেন স্বামী দেওয়ানবাগী পীর মারা গেছেন ২৪ ঘণ্টার আগেই শেষ হচ্ছে দিন, তবে কি কেয়ামতের আলামত! মহানবীর (সা.) ১৪০০ বছর আগের যে বাণী সত্য প্রমাণ পেল বিজ্ঞান ধর্ষণকাণ্ড থেকেই নিখিলের সঙ্গে মন কষাকষি নুসরাতের! নুসরাতের পোশাক বদলানোর ভিডিও ভাইরাল থার্টিফার্স্ট নাইটে বিমানবালাকে ১১ জনে ধর্ষণের পর হত্যা! (ভিডিও) আনুশকা-দিহানের সম্পর্ক দুইমাস আগে থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সময় জানালেন মন্ত্রী স্কুল-কলেজ ছাড়া কোথাও বাবার নাম নিও না, সন্তানদের উদ্দেশ্যে মাশরাফী ২০২১ সালে আসছে পুরুষের জন্মনিরোধক পিল! বাংলাদেশে আসছে ‘রয়েল এনফিল্ড’! ঘটনার কিছুক্ষণ আগে বাবাকে ফোন করেছিল আনুশকা ডিএসপি মেয়েকে স্যালুট জানিয়ে ভাইরাল ইন্সপেক্টর বাবা ফজরের ওয়াক্তে মারা যাওয়ার ইচ্ছা পূরণ যুবকের, স্ট্যাটাস ভাইরাল অমরজিৎ পৃথিবীর 'সবচেয়ে কম বয়সী' সিরিয়াল কিলার গৃহকর্ত্রীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনকারী সেই রেখা গ্রেফতার মেশিনে টুকরো টুকরো হয় ঘুমন্ত মেহেদীর দেহ স্কুলে ২০২১ সালের ছুটির তালিকা প্রকাশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কবে খুলতে পারে জানালেন প্রধানমন্ত্রী মেসেঞ্জার নিয়ে ‘ভয়াবহ’ তথ্য প্রকাশ ওয়ালটনের পরিচালক মাহবুব আলম আর নেই আসছে তীব্র শৈত্যপ্রবাহ, তাপমাত্রা নামবে ৪ ডিগ্রিতে নববর্ষে আতশবাজি, লাখ লাখ পাখির করুণ মৃত্যু ‘বিকৃত যৌনাচারের কারণে মারা যায় স্কুলছাত্রী’ প্রেমিকের আবদার মেটাতে ১৪ বছরের মেয়েকে ধর্ষণে সাহায্য মায়ের! আনুশকার দাফন সম্পন্ন বৌভাতে মাংস কম দেওয়া নিয়ে সংঘর্ষ, বরের চাচা নিহত স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে হোটেলে দেবর-ভাবি সন্তানরা বেঁচে থাকলেও সম্পত্তি লিখে দিলেন কুকুরের নামে!
আরও সংবাদ...

মেনে চলি

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  EnglishLive TV DMCA.com Protection Status
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
উপরে
x