ফাইয়াজ আহমেদ
আপডেট
০৬-০৮-২০২০, ২২:১০

এরদোয়ানকে ‘সৌদির আসনে’ বসাতে চান ইমরান খান ও শি জিনপিং

এরদোয়ানকে ‘সৌদির আসনে’ বসাতে চান ইমরান খান ও শি জিনপিং
ইসলামি বিশ্বের নেতৃত্বের ভূমিকা পাওয়ার জন্য গেল কয়েক বছর ধরে তীব্র লড়াই করে যাচ্ছে তুরস্ক। আয়া সোফিয়াকে পুনরায় মসজিদে ফেরানোর পরে আঙ্কারার ইউরোপীয় ইউনিয়নে অন্তর্ভুক্ত হওয়ার আশা চুরমার হয়ে গেছে। বরং আয়া সোফিয়াকে মসজিদে ফিরিয়ে তুরস্ক ইসলামপন্থীদের দিকে আরো ঝুঁকছে।

তুরস্কের লক্ষ্য বাস্তবায়নে আঙ্কারার পুরোনা মিত্র পাকিস্তান রয়েছে তার সঙ্গে। তুরস্কের পাশাপাশি বৈশ্বিক পরাশক্তি চীনের সঙ্গেও ইসলামাবাদের রয়েছে শক্তিশালী সম্পর্ক।

১৯১৮ থেকে ১৯২২ সাল পর্যন্ত ভারতে চলামান খেলাফত আন্দোলনের মাধ্যমে তুরস্ক-পাকিস্তানের মধ্যে বর্তমান সম্পর্কের সূত্রপাত হয়।

আন্দোলনের লক্ষ্যে ছিল গ্রেট ব্রিটেনের আগ্রাসন থেকে অটোমান সামরাজ্যের অখণ্ডতা এবং ইসলামি খেলাফত রক্ষা করা।


পাশাপাশি স্বাধীনতা যুদ্ধে হিন্দু-মুসলমানকে ঐক্যবদ্ধ করা। উভয়ের শত্রু ইংরেজ বেনিয়াদের বিরুদ্ধে।

১৯১৯ সালে অটোমান সামরাজ্য পুনঃপ্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে খেলাফত আন্দোলন প্রতিষ্ঠিত হয়। আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন শাওকাত আলী, মাওলানা মোহাম্মদ আলী জৌহর, হাকিম আজমল খান এবং মাওলানা আবুল কালাম আজাদ। সুন্নি মুসলমানদের এ নেতৃত্বকে কার্যকর রাজনৈতিক কর্তৃপক্ষ বিবেচনা করা হতো।

ইশতিহারে খেলাফত আন্দোলন ব্রিটিশ সামরাজ্যবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের আহ্বান জানায়। যারা সমাজের নানা শ্রেণি-পেশার মানুষকে এ আন্দোলনে সম্পৃক্ত করতে সক্ষম হয়। স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ নেন কৃষক, কারিগর, শ্রমিক, ক্ষুদ্র ও মাঝারি আকারের উদ্যোক্তা, মসজিদের ইমাম, মাদরাসার শিক্ষক সবাই ।

তাদের এ বিদ্রোহ ছিল উপনিবেশ ও সামরাজ্যবাদের বিরুদ্ধে। পরে ১৯২২ সালে মুস্তফা কামাল আতার্তুকের অধীনে তুরস্ক ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্রে রূপান্ত হয়। পরে খেলাফত আন্দোলন সাম্প্রদায়িক বিচ্ছিন্নতাবাদের পক্ষে অভিজাত সংগঠনে পরিণত হয়।

তুরস্কের স্বাধীনতা যুদ্ধে কামালপন্থীদের আর্থিক সহায়তা দিয়েছিল ব্রিটিশ ভারতের মুসলমানরা। সেই সূত্র ধরে ১৯৪৭ সালে সদ্য গঠিত পাকিস্তানের সঙ্গে চটজলদি কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করে। এক্ষেত্রে ব্যক্তি সম্পর্কও ছিল। পাকিস্তানের স্থপতি মুহাম্মদ আলী জিন্নাহর আঙ্কারার সঙ্গে ভালো সম্পর্ক ছিল। ১৯৯৯ সালে পাকিস্তানের ক্ষমতায় এসে প্রেসিডেন্ট পারভেজ মোশাররফও সেই ধারা অব্যাহত রেখেছিলেন।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে উভয়ে একে অপরকে অব্যাহতভাবে সমর্থ দিয়েছে। যা এখনো চলমান। ১৯৭৪ সালে সাইপ্রাসে আক্রমণের জন্য একমাত্র পাকিস্তান মিত্র তুরস্ককে সমর্থন দিয়েছিল।

২০০৩ সালে তুর্কি প্রধানমন্ত্রী রিসেপ তাইপ এরদোয়ানের সঙ্গে সাক্ষাতে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শওকত আজিজ বলেছিলেন, নর্দান আয়ারল্যান্ড বিষয়ে আঙ্কারা যে নীতি নির্ধারণ করবে, আমরা বলছি, পাকিস্তান তাতে সন্দেহাতীতভাবে সমর্থন দেবে। আমরা শতভাগ তুরস্ককে সমর্থন করবো। প্রেসিডেন্ট পারভেজ মোশাররফ ও ক্ষমতায় থাকাকালীন একই বাক্যের পুনরাবৃত্তি করেছিলেন যে সাইপ্রাস ইস্যুতে তুরস্কের সংগ্রামে আমরা পূর্ণ সমর্থন অব্যাহত রাখবো।

১৯৯০ সালে কারণবশত দু’পক্ষের সম্পর্কের অবনতি ঘটে। তখন নর্দান জোটকে সমর্থন করে তুরস্ক। তালেবানের পক্ষে অবস্থান নেয় পাকিস্তান। তা সত্ত্বেও ২০০১ সালে তুর্কি প্রেসিডেন্ট আহমেদ সিজার কাশ্মীর সংঘাতের সময় পাকিস্তানের পক্ষে সমর্থন ঘোষণা করেন।

২০০৩ সালে রিসেপ তাইপ এরদোয়ান বলেন, আমরা বিশ্বাস করি কাশ্মীর সমস্যা সমাধানে পাকিস্তানের ভূমিকা অত্যন্ত ইতিবাচক। আমরা তাদের আন্তরিক সাধুবাদ জানাই। কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানকে পূর্ণ সমর্থন দেবে তুরস্ক। অবশ্যই সংকটের দ্রুত সমাধান হওয়া জরুরি।

২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোয়ান কাশ্মীর ইস্যুতে সরাসরি পাকিস্তান এবং কাশ্মীরের স্বাধীনতাকামীদের সমর্থন দেয়ায় ভারত-তুরস্ক সম্পর্কের অবনতি হয়। এর মাধ্যমে ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্সের সঙ্গে পাকিস্তানের চলা দ্বন্দ্বে ইসলামাবাদকে সহায়তা করে আঙ্কারা।

ওই বছরের ১৫ ফেব্রুয়ারি বক্তব্যে কাশ্মীর ইস্যুতে কারো পক্ষ নিয়ে কথা বলেননি। তিনি বলেন, তুরস্ক এবং তুর্কি জনগণ কাশ্মীরীদের প্রতি সংহতি প্রকাশ করছে। কাশ্মীরীরা নানা ধরনের নির্যাতন নিপীড়নের শিকার হচ্ছেন। কাশ্মীর রাজ্যের বর্তমান পরিস্থিতিতে আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। দিনে দিনে সেখানকার পরিস্থিতি খারাপ হচ্ছে। কাশ্মীর সংকট নিরসনে কাশ্মীরী ভাই-বোনদের ইচ্ছা অনুযায়ী জাতিসংঘের রেজ্যুলেশনের ভিত্তিতে পাকিস্তান ও ভারতের আলোচনার পক্ষে তুরস্ক।

তুরস্ক এবং পাকিস্তানের মধ্যে উচ্চ পর্যায়ের সামরিক সহযোগিতাপূর্ণ সম্পর্কও বিদ্যমান। স্নায়ুযুদ্ধে সময়ে উভয়ে সেন্ট্রো মিলিটারি-পলিটিক্যাল ব্লকের সদস্য ছিল। ১৯৮৮ সালে সামরিক অভিজ্ঞতা বিনিময় করার জন্য মিলিটারি এডুকেশন অ্যান্ড ডিফেন্স ইন্ড্রাস্টি প্রতিষ্ঠা করে। ২০০৩ সালে দু’পক্ষের মধ্যে গঠিত হয় হায়ার মিলিটারি ডায়ালগ অর্গানাইজেশন।

নানা সময়ে পাকিস্তান এবং তুরস্ক যৌথ সামরিক মহড়ায় অংশ নিয়েছে। ১৯৯০ এর শুরুতে পাকিস্তানের এফ-১৬ যুদ্ধবিমানের আধুনিকায়ন হয় তুরস্কে। এরই ধারবাহিকতায় গেলো দু’বছরে চীনের পরই পাকিস্তান সেনাবাহিনীকে সবেচেয়ে বেশি অস্ত্র সরবরাহ করেছে তুরস্ক। ২০১৮ সালে দেড়শ’ কোটি মার্কিন ডলার দিয়ে তুরস্ক থেকে ৩০টি টি-১২৯ তুর্কি হেলিকপ্টার ক্রয় করে পাকিস্তান।

২০১৯ সালে ১১ অক্টোবরে সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে তুরস্কের অপারেশন ‘পিস স্প্রিং’কে সমর্থন জানান পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। এটা কোনোভাবেই কাকতালীয় নয়। এর আগে কুর্দি ওয়ার্কার পার্টির বিরুদ্ধে অভিযানেও আঙ্কারাকে সমর্থন দেয় ইসলামাবাদ।

শিক্ষা এবং সংস্কৃতিতেও দু’পক্ষের উল্লেখযোগ্য অর্জন রয়েছে। ২০০৩ সালে ইসলামাবাদের ইনস্টিটিউট ফর স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ এবং আঙ্কারার সেন্টার ফর স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজের মধ্যে শিক্ষা এবং বিজ্ঞান বিষয়ে উন্নতির লক্ষ্যে একটি চুক্তি সই হয়।

ফেতুল্লাহ গিলনের সমর্থককর্মীদের সরিয়ে নেওয়ার পরও তুর্কি ভাষা ফাউন্ডেশনের অধীনে পাকিস্তানে তুর্কি ভাষার স্কুল ও কলেজে একটি প্রকল্প চালু আছে। পাকিস্তান ও আফগানিস্তানে উর্দু ও দারিতে অনুবাদ হওয়া তুর্কি নাটকের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। পরস্পরের নাগরিকরা একে অপরের দেশে ভ্রমণের মাধ্যমে নিজেদের পর্যটন শিল্পও সক্রিয়ভাবে বিকাশিত করছে ইসলামাবাদ ও আঙ্কারা।

আফগানিস্তান এবং পাকিস্তানের মধ্যে মধ্যস্থতারও চেষ্টা করেছে তুরস্ক। তুরস্কের আমন্ত্রণে ২০০৭ সালের ২৯ এপ্রিল আঙ্কারায় আফগান প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই এবং প্রেসিডেন্ট পারভেজ মোশাররফের মধ্যে একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকের ফলাফলের ভিত্তিতে সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে যৌথ সহযোগিতা ঘোষণা করে আঙ্কারা। অভ্যন্তরীণ বিশ্বাস তৈরিতে একটি জয়েন্ট গ্রুপও তৈরি করা হয়।

ওই বছর জয়েন্ট গ্রুপের প্রথম সম্মেলন হয় আঙ্কারায়। ২০০৮ সালের ডিসেম্বরে দ্বিতীয় বৈঠকে পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট আসিফ আলী জারদারি, আফগান প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই এবং তুর্কি প্রেসিডেন্ট আবদুল্লাহ গুল উপস্থিত ছিলেন। ২০০৯ সালের ১ এপ্রিল তাদের উপস্থিতিতেই তৃতীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ২০১৪ সালে জয়েন্ট গ্রুপের অষ্টম বৈঠক হয়।

একইসময়ে ইস্তাম্বুল প্রসেস নামে ২০১১ সালে তুরস্ক আরেকটি প্রচেষ্টা হাতে নেয়। কিন্তু এসব সম্মেলনের মূল উদ্দেশ্য আফগানিস্তান এবং পাকিস্তানের মধ্যকার দীর্ঘদিনের সংকট নিরসন এবং দু’পক্ষের সম্পর্ক জোরদার পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হয়নি।

এই লক্ষ্য অর্জনে ব্যর্থতা কোনওভাবেই আফগান-তুর্কি এবং পাকিস্তান-তুর্কি সম্পর্ককে প্রভাবিত করতে পারেনি। বিশেষত ইসলামী সহযোগিতা সংস্থায় আঙ্কারা ও ইসলামাবাদের মধ্যে ফলপ্রসূ সহযোগিতা দিচ্ছে।

হানাফি মাজহাব এবং সন্নি মতাদর্শে আফগান ইস্যুতে একাট্টা তুরস্ক এবং পাকিস্তান। ১৯৯৭ সালে তুরস্কের পদক্ষেপে প্রতিষ্ঠিত ইসলামিক জি-৮ এ পাকিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।

পাকিস্তান-তুর্কি সম্পর্কের মূল জটিলতা হল নিম্ন স্তরের অর্থনৈতিক সম্পর্ক। ২০০৪ সালে দেশ দুটির মধ্যে বাণিজ্য হয়েচিল মাত্র ১শ’ ৬০ মিলিয়ন ডলার। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য হয়েছে ৯শ’ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

তাদের মধ্যে রাজনৈতিক বড় সমস্যা হল উইঘুর ইস্যু। জিনজিয়ানে যারা চীনা কমিউনিস্ট সরকার দ্বারা অমানবিক নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন।

চীনের সাথে ঘনিষ্ট সম্পর্কের কারণে, পাকিস্তান পূর্ব তুর্কিস্তান ইসলামী আন্দোলনের বিদ্রোহীদের সন্ত্রাসবাদী হিসাবে অভিহিত করে। আর তুরস্ক নিয়মিত জিনজিয়ানের অশোভন নীতির জন্য চীনের সমালোচনা করে আসছে।

চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোর এবং বেইজিংয়ের সঙ্গে আর্থিক সম্পর্ক উন্নতির ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও পরে তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান উইঘুর ইস্যুতে তার অবস্থান কিছুটা পরিবর্তন করেন।

এসবের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে তুরস্কের সম্পর্ক খারাপ হচ্ছে। অন্যদিকে সম্পর্ক জোরদার হচ্ছে তুর্কি রুশ সম্পর্ক।

পরিশেষে বলা যায় চীন এবং পাকিস্তানের সহায়তায় সৌদি আরবকে সরিয়ে ইসলামি  বিশ্বের নেতৃত্বের আসনে আরোহন করতে চান তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইপ এরদোয়ান।

ইউরো এশিয়ান টাইমস থেকে অনুবাদ করেছেন ফাইয়াজ আহমেদ



DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ
করোনা ভাইরাস লাইভ আপডেট
আক্রান্ত চিকিৎসাধীন সুস্থ মৃত্যু
৩৬২০৪৩ ৮৮৩৪৫ ২৭৩৬৯৮ ৫২১৯
বিস্তারিত
মৃত্যুর আগে মাটিতে হত্যাকারীদের নাম লিখে গেলেন আশরাফুল গির্জায় আটকে রেখে কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনায় সেই ফাদার গ্রেফতার লুডু খেলায় হেরে বাবার বিরুদ্ধে মেয়ের মামলা! কুয়েতের নতুন আমির শেখ নাওয়াফ আল সাবাহ রাত পেরোলেই বাবরি মসজিদ মামলায় রায় ভারতের উপ-রাষ্ট্রপতি করোনায় আক্রান্ত ভয়ংকর 'মগজ-খেকো' প্রাণী কেড়ে নিল শিশুর প্রাণ, সতর্কতা জারি টেক্সাসে এক ঘরে দুই বোনকে ধর্ষণ,গ্রেফতার ২ ধর্ষক ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে নিহত ২ সীমান্ত থেকে বাংলাদেশির লাশ উদ্ধার ধর্ষণবিরোধী গ্রাফিতি আঁকার সময় আটক ২ যশোরে প্রধানমন্ত্রীর ভুয়া পিএস আটক আশাশুনির খাজরা ইউপি চেয়ারম্যান ডালিম গ্রেফতার এবার ফাদারের বিরুদ্ধে গির্জায় কিশোরীকে আটকে ধর্ষণের অভিযোগ পানিতে ডুবে দুই ভাইয়ের মৃত্যু চাঁদপুরে গৃহবধূর গলায় ওড়না পেঁচানো লাশ উদ্ধার সাতক্ষীরা সীমান্তে ১০টি সোনার বারসহ আটক ১ কুয়েতের আমিরের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতির শোক গোয়েন্দা নজরদারিতে বলিউডের আরও ৩০ তারকা ক্রিকেটারদের দ্বিতীয় দফা করোনা পরীক্ষা বুধবার শিশুকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ বৃদ্ধের বিরুদ্ধে লকডাউনে সবজি বেচছেন ‘বালিকা বধূর’ সহকারী পরিচালক! বিএনপির লোকজনই মাদক ব্যবসায় জড়িত: গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী লকডাউনেও প্রতিঘণ্টায় ৯০ কোটি কামিয়েছেন মুকেশ আম্বানি ফুটবলারের কণ্ঠ শুনে কোমা থেকে জেগে উঠলেন নারীভক্ত! বরিশালে ৭ আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা কোনোভাবেই খাদ্য নষ্ট ও অপচয় করা যাবে না: কৃষিমন্ত্রী ৪ হাজার জঙ্গিকে মুক্তি দিচ্ছে পাকিস্তান! নতুন কাউকে প্রয়োজন নেই জিদানের বেনাপোলে ১৩টি সোনার বারসহ নারী আটক করোনা মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৬ প্রস্তাব তুরস্কের গুলিতে ভূপাতিত আর্মেনীয় জঙ্গিবিমান এবারও জানুয়ারিতেই বিনামূল্যে বই পাবে শিক্ষার্থীরা ভয়ঙ্কর 'ক্যাট কিউ' ভাইরাসের লক্ষণ মাস্ক কেলেঙ্কারিতে জড়িতদের শাস্তি চান ডা. ইকবাল লালমনিরহাটে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে ভাঙন মানিকের ‘ভিশন-২০৩৩’ সকল কলেজ ক্যাম্পাসের জন্য নতুন নির্দেশনা জারি চট্টগ্রাম পৌঁছাল মিয়ানমারের পেঁয়াজের প্রথম চালান এমসি কলেজে গণধর্ষণ: দাড়ি-চুল ফেলেও আটক তারেক চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণা, আটক ১০ ধর্ষণের মতো অপরাধে সম্পৃক্তদের ছাড় দেয়া হবে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কুয়েতের আমির শেখ সাবাহ মারা গেছেন জেএমআইয়ের চেয়ারম্যান ৫ দিনের রিমান্ডে মিনিকেট চালের দাম নির্ধারণ সাম্প্রদায়িক উস্কানিতে না জড়ানোর আহ্বান প্রাণিসম্পদ মন্ত্রীর বাংলাদেশ থেকে ‘ফুড আইটেম’ আমদানির আগ্রহ তুরষ্কের পানি বাড়ায় রাজবাড়ীর পদ্মায় তীব্র ভাঙন মঙ্গল গ্রহে আরও তিনটি হ্রদের সন্ধান! চীনকে দমাতে ৭২ হাজার অ্যাসল্ট রাইফেল আনছে ভারত অ্যাপের মাধ্যমে নিজ এলাকার তথ্য পাবেন এমপিরা স্ত্রী-মেয়েকে গলাকেটে পুড়িয়ে হত্যা, ট্রাক চালকের মৃত্যুদণ্ড রোগী দেখতে এসে হাসপাতালের পলেস্তারা খসে আহত ক্যান্সার আক্রান্ত রোগীকে পেটাল তারা! কেরোসিন ঢেলে স্ত্রীকে পুড়িয়ে হত্যা, স্বামীর মৃত্যুদণ্ডাদেশ কুমারখালীতে বালু উত্তোলনের দায়ে জেল-জরিমানা সীমান্তে সোনার বারসহ বাংলাদেশি আটক আইফোন প্রেমীদের জন্য সুখবর ক্রিকেটারের গায়ে মদ ঢালা নিয়ে বিতর্ক! গাজীপুরে ওয়ালটনের গোডাউনে অগ্নিকাণ্ড আর্মেনিয়া-আজারবাইজান যুদ্ধে শতাধিক নিহত পাবনায় কালো তালিকাভুক্ত হচ্ছে ১২২ চালকল এক নম্বরে চার ফোনে খোলা যাবে হোয়াটসঅ্যাপ! চট্টগ্রামে নিষিদ্ধ ওষুধ বিক্রির দায়ে মালিককে জরিমানা ধর্ষকদের সরাসরি ক্রসফায়ার দেয়া উচিত: হানিফ সড়কপথে যোগাযোগ শুরুর পরিকল্পনা ভারত-বাংলাদেশের বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় প্রতিষ্ঠানগুলোকে গুরুত্ব দেয়ার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর গাজীপুরে শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে কিশোর গ্রেফতার অনলাইনে ‘ধামাকা অফারে’ প্রতারণা করতেন স্বামী-স্ত্রী তারানা হালিমের বিরুদ্ধে মামলা গ্রহণ করেননি আদালত চীনের নতুন ভাইরাস ‘ক্যাট কিউ’ সুশান্তকে গলা টিপে হত্যা করা হয়েছে, দাবি আইনজীবীর ঘরে সাউন্ড বক্স বাজিয়ে চাচাতো বোনকে ধর্ষণ নারায়ণগঞ্জে অপহৃত শিশু উদ্ধার, দম্পতি গ্রেফতার সুশান্তের বাবার দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে মুখ খুললেন রিয়া ইতিহাসে প্রথম আরবের ক্লাবে খেলবেন ইসরায়েলি ফুটবলার গ্যাসের সমস্যা দূর করে এই ফল নার্সারি শিক্ষার্থীদের বিষপ্রয়োগ, চীনা শিক্ষিকার মৃত্যুদণ্ড ৪০ সেকেন্ডে ১৫ লাখ টাকা ছিনতাই মেসিকে ধরে রাখার কৌশল জানালেন বার্সা মিডফিল্ডার দুঃসময় পার করছে বিএনপি, দেশ নয়: কাদের গুগল ড্রাইভ থেকে মুছে যাবে তথ্য যক্ষ্মায় আক্রান্ত নায়ক ফারুক নিউইয়র্কে রেস্তোরাঁ খুলে দেয়ার দাবিতে আন্দোলন প্রতাপনগর ইউপি চেয়ারম্যানের অপসারণ দাবি বথুয়া খান, কিডনি ভালো রাখুন তিতাসে চাকরি সুযোগ শেষ হলো ওয়েব সিরিজ ‘বিলাপ’এর শুটিং সবার জন্য আসছে চীনা ভ্যাকসিন মার্কিন নির্বাচনে মহাকাশ থেকেই ভোট দেবেন কেট রুবিনস ইসলামী বিশ্বিবদ্যালয়ে নতুন উপাচার্য নিয়োগ করোনারোধে নিরাপত্তার চাদরে আয়ারল্যান্ড সাতক্ষীরা মেডিকেলে চালু হচ্ছে জরুরি বিভাগ যশোরে বোমা ফাটিয়ে ১৭ লাখ টাকা ছিনতাই গণধর্ষণের শিকার ‘দলিত নারী’র মৃত্যু, ভারতজুড়ে ক্ষোভ ৩০ মিনিটেই করোনা পরীক্ষার ফল: ডব্লিউএইচও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার তথ্য বুধবার জানাবো: শিক্ষামন্ত্রী মুখোমুখি চেলসি-টটেনহ্যাম গ্রাহকের কললিস্ট ফাঁস বন্ধে হাইকোর্টের অভিমত রাজশাহী যুবক নিহতের ঘটনায় গ্রেফতার ২
আরও সংবাদ...
ভিসা ছাড়াই বাংলাদেশি নাগরিকরা ভ্রমণ করতে পারবেন যে ৪১ দেশ ভারত থেকে লন্ডন যেতে বাস সার্ভিস চালু ৩০ মিনিটে এনআইডির অসুন্দর ছবি বদলে ফেলুন বাংলাদেশকে ১৬ আনাই ফাঁকি দিয়েছে ভারত! ডাচ্-বাংলা-আইবিএলসহ ৫ ব্যাংকে লেনদেন সীমিত করা হয়েছে ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলমকে নোটিশ মোবাইল কিনতে শিক্ষার্থীদের ১০ হাজার টাকা করে ঋণ দেয়ার সিদ্ধান্ত বাইকার ফারহানা ‘নববধূ’ নয়, বিয়ে তিন বছর আগে, রয়েছে সন্তানও ‘দুই আর দুই পাঁচ’ বলছেন শাহেদ ডাল-আলু ভর্তা খেয়ে মাকে টাকা পাঠান সৌদি প্রবাসী কিশোর (ভিডিও) দেখা মিলল বিশ্বের সবচেয়ে বড় নীল তিমির (ভিডিও) ওয়াইফাই ইন্টারনেটের গতি বাড়ানোর কৌশল আল বুখারি বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর হলেন ড. ইউনূস দু'বোনের মারামারিতে দেরিতে ছাড়ল বিমান (ভিডিও) শিক্ষার্থীদের এক হাজার করে টাকা দেবে সরকার চেয়ার ছেড়ে পালালেন জায়েদ খান! মিয়া খলিফাকে খুঁজছে মার্কিন সেনারা (ভিডিও) সুশান্তের মৃত্যু: ‘আওয়াজ আসলেই তালা ভাঙা বন্ধ করে দিও’ (ভিডিও) মসজিদের একটি এসিও বিস্ফোরিত হয়নি এক সপ্তাহ পরেই বদলে যাচ্ছে ফেসবুক, বাধ্যতামূলক নতুন ডিজাইন ঘুষের ৫০ হাজার টাকা না দেয়ায় ঝরল ১৮ প্রাণ, শঙ্কা আরো! গ্রিসের ছয়টি যুদ্ধবিমানকে তুরস্কের ধাওয়া (ভিডিও) খোঁজ মিলেছে অভিনেতা শুভর মেসি-বার্সা ইস্যুতে নাটকীয় মোড়! পৃথিবীর সবচেয়ে বিষাক্ত সাপের দেখা মিলল সমুদ্রে জয়কে সাতদিনের আলটিমেটাম, নিঃশর্ত ক্ষমা না চাইলে মামলা এবার ভারতের প্রদেশের মালিকানা দাবি করল চীন মেয়েসহ দেশ ছাড়লেন মিথিলা গভীর রাতে বাসভবনে ঢুকে ইউএনওকে হাতুড়ি পেটা জাদুকরি পরিবর্তন ঘটে সকালে কুসুম গরম লেবু পানিতে দেশে পাঁচ রকম করোনা ভাইরাসের সন্ধান চাঁদে পড়ছে মরচে! বাংলাদেশি ভ্যাকসিন কবে আসবে জানালেন আসিফ মাহমুদ লাইভ কনসার্টে টাকা ছুঁড়লেন দর্শক, উচিৎ শিক্ষা দিলেন অরিজিৎ (ভিডিও) দেশে বিমান তৈরি শুরু হবে ২০২১ সালে (ভিডিও) তুরস্ককে চারদিকে ঘিরে ফেলছে ফ্রান্স? পছন্দের রঙ বলে দেয় ব্যক্তিত্ব কেমন আড়াইহাজারে এশিয়ার সবচেয়ে বড় বিদেশি বিনিয়োগ! মোবাইল কিনতে ‘ঋণ’ দিচ্ছে রবি ইসরায়েল-আমিরাতের চুক্তি, মুখ খুললো সৌদি শোক দিবসে তারকাদের আচরণে সমালোচনার ঝড় সময় টিভিতে তিন ক্যাটাগরিতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি সুশান্ত হত্যায় নাম জড়াল ভারতীয় খেলোয়াড়ের! নতুন নিয়মে ট্রেনের টিকিট-ভ্রমণ করবেন যেভাবে রিয়াকে জড়িয়ে ধরা মহেশ ভাটের ভিডিও ভাইরাল দেশে আরো একটি গাধার জন্ম সুশান্তের মৃত্যু: সন্দীপের সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট প্রকাশ তুরস্কের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় গ্যাস ক্ষেত্রের সন্ধান এসি বিস্ফোরণের কারণ ও রক্ষা পেতে যা করবেন প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলার প্রস্তুতির নির্দেশ
আরও সংবাদ...


মেনে চলি

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  EnglishLive TV DMCA.com Protection Status
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
উপরে