সম্পূর্ণ নিউজ সময়
বাংলার সময়
২ টা ৩৪ মিঃ, ৪ আগস্ট, ২০২০

৬ বছরেও শেষ হয়নি পিনাক-৬ লঞ্চ দুর্ঘটনার বিচার কাজ

৬ বছরেও পিনাক-৬ লঞ্চ দুর্ঘটনার বিচার কাজ শেষ না হওয়ায় ক্ষোভ বাড়ছে স্বজনহারা মানুষের। এছাড়া নিখোঁজ ৬৩ যাত্রীর সন্ধান না পাওয়ায় হতাশ তাদের পরিবার। স্বাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হলেই দ্রুত মামলা নিষ্পত্তির আশা করছে রাষ্ট্রপক্ষ। এদিকে, শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে লঞ্চ চলাচলে থামেনি অনিয়ম। ফিটনেস না থাকা, অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহনের সঙ্গে রয়েছে অব্যবস্থাপনার নানা অভিযোগ।
তৌফিক মাহমুদ

২০১৪ সালের ৪ আগস্ট, আড়াইশ' যাত্রী নিয়ে উত্তাল পদ্মার শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে ডুবে যায় এমভি পিনাক-৬। মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনার পর উদ্ধার করা হয় ৪৯ জনের মরদেহ। আর সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ ৬৩ জনের।

৮৫ যাত্রীর ধারণক্ষমতা থাকলেও লঞ্চটি যাত্রীপরিবহন করছিলো আড়াইশ। তদন্তেও এমন তথ্য মিলেছে। এরপর ছয়জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেয়া হলেও, এখনো শেষ হয়নি বিচারকাজ। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেন স্বজনহারা মানুষ। বাড়ছে হতাশাও।

আরো পড়ুনঃ নাত‌নীকে ধর্ষণ, বাবার বিরুদ্ধে মামলা কর‌লো ছে‌লে

তবে মামলাটি দ্রুত নিষ্পত্তির আশা করছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী।

জেলা দায়রা জজ আদালত পিপি অ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন বলেন, আমরা সাক্ষীদের যেভাবে হোক কোর্টে হাজির করবো। দ্রুত মামলাটি নিষ্পত্তি করার চেষ্টা করবো।

এদিকে, পিনাক-৬ ট্রাজেডিতে অর্ধশতের বেশি মানুষের প্রাণহানির পরও শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি রুটে লঞ্চ চলাচলে বন্ধ হয়নি অনিয়ম। সরকারের নির্দেশনা অমান্য করে অতিরিক্ত যাত্রীবোঝাই চলছে। লঞ্চগুলোতে নেই পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা। অগ্নি-নির্বাপক যন্ত্রও নেই কারও। প্রশাসনের নজরদারি না থাকায় যাত্রীদের ঝুঁকি বাড়ছে বলে অভিযোগ যাত্রীদের।

আরো পড়ুনঃ যেসব শর্তে করোনার নতুন প্রজ্ঞাপন জারি

পিনাক ট্রাজেডির পুনরাবৃত্তি রোধে সতর্ক থাকার দাবি প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের।

জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন বলেন, লঞ্চ-মালিক সমিতির যারা আছে, তাদের আমরা ইন্সট্রাশন দিয়েছি তারা যেন ধারণক্ষমতার বাইরে লোক না নেয়।

শিমুলিয়া কাঁঠালবাড়ি ও শিমুলিয়া-মাঝিকান্দি রুটে বর্তমানে ৮৭টি লঞ্চ চলাচল করছে।

© ২০২১ সময় টিভি মিডিয়া নেটওয়ার্ক
সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত
DMCA.com Protection Status
সময় মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করুন
Somoy Tv App PlayStore Somoy Tv App AppleStore
ফলো সামাজিক সময়