আশিকুর রহমান সমী
আপডেট
২২-০৫-২০২০, ১৬:০০

মানুষের জন্যই জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ প্রয়োজন

মানুষের জন্যই জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ প্রয়োজন
আমাদের পৃথিবী বিভিন্ন প্রজাতির, রঙের, বর্ণের, আকৃতির জীব কূল নিয়ে গঠিত। এদের মধ্যে আছে যেমন প্রজাতিগত বৈচিত্র্য, ঠিক তেমন আছে বাসস্থানগত বৈচিত্র্য, আবার সব থেকে মজার ব্যাপার জীনগত বৈচিত্র্যও পরিলক্ষিত হয় এ জীব কূলের মধ্যে। আর এই সব কিছু নিয়ে তৈরি জীববৈচিত্র্য বা Biodiversity.

সৃষ্টির শুরু থেকে ধাপে ধাপে বিভিন্ন ধরনের পরিবেশ বিভিন্ন বৈচিত্র্যের প্রাণীরা মানিয়ে নিয়েছে তাদের বৈচিত্র্য দিয়ে আর তার ফলে ধরিত্রী মাতা আজ বৈচিত্র্যময়।

চারপাশের জীব দের নিয়ে আমাদের জীবন। আর এই জীবেরা পরিবেশের গুরুত্বপূর্ণ উপাদান আর এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। এই পরিবেশ প্রকৃতির মধ্যে রয়েছে ভারসাম্য, রয়েছে সুষ্ঠু নিয়ম। পরিবেশের একে অপরের সাথে গভীর ভাবে জড়িয়ে। একটু কোথাও সমস্যা হলে পুরো নিয়মে ভারসাম্য নষ্ট হয়। প্রকৃতি বিভিন্ন দূর্যোগের মাধ্যমে সেটি জানান দিতে ভোলে না।

বর্তমানে আমরা মানুষ সমাজ নিজেদের চাওয়ার পরিধি টা বাড়িয়ে দিয়েছি। পৃথিবীটা আমাদের একার হয়ে গেছে। শুধু আমাদের মানব সমাজকে টিকে থাকতে হবে। বাকিদের কথা আমরা ভুলেই গেছি। আমরা ভুলে গেছি আমাদের চারপাশের পরিবেশটা আমাদের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ।


প্রথমত, আমরা তাদের আবাসস্থল নষ্ট করে ফেলছি। আর আমরা যে স্থানে বসবাস করছি তা একসময় ঐ জীব সবার ছিল। আমরা আজ যে বনের গাছ উজার করে বাড়ি বানাচ্ছি নিজেদের জন্য, হয়তো ওই গাছে পেঁচার বাড়ি ছিল। সে হয়তো ইঁদুর খেয়ে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার পাশাপাশি কৃষির অর্থনৈতিক উপকার করতো। ওই গাছে হয়তো বক/মাছরাঙার বিশ্রামের জায়গা ছিল, যারা জলাশয়ের অসুস্থ মাছ খেয়ে মাছের সংক্রমক ব্যাধি দূর করতো, গাছটিতে হয়তো সাপ আশ্রয় নিতো, যা ক্ষতিকর পোকামাকড় খেত বা ইঁদুর খেয়ে ফসল রক্ষা করতো। গাছ কাটার মাধ্যমে ওই সকল স্থানে শুধু গাছের অভাব হলো তাই নয়, এই গাছে বসবাসকারী সকল প্রাণী হারিয়ে গেল। যার কারণে, ক্ষতিকর প্রভাব পড়লো পরিবেশে, কৃষিতে, কৃষি অর্থনীতিতে। তখন এই ইঁদুর দমনে, পোকা মাকড় দমনে মানুষ নিল বিভিন্ন ব্যবস্থা যেমন ধরুন বিভিন্ন কেমিক্যাল আর বিষ। যা সেই মানুষ খাবে আর ধীরে ধীরে মানুষ মৃত্যু বরণ করবে।
জলচর পাখিরা অসুস্থ মাছ ধরে না খেলে পুরো জলাশয়ের মাছের মধ্যে দেখা দিতো বিভিন্ন সংক্রমক রোগ বালাই।

বিভিন্ন গবেষণা দেখায়, একটি পেঁচা সারাজীবনে ২০ লক্ষ টাকার ফসলের উপকার করে শুধু ইঁদুর খেয়ে।

দ্বিতীয়ত, বন্যজীব আর মানুষের মধ্যে প্রায় তৈরী হচ্ছে সংঘর্ষ। মানুষ শুধু তার আবাসস্থল নষ্ট করে শান্তিতে নেই, অসহায় বন্যজীবদের উপর অজ্ঞতা, শিক্ষার অভাব এমন কি মানুষ মজার ছলেও হত্যা করছে জীব কূলকে। একটি প্রাণের মূল্য তাদের কাছে খুবই তুচ্ছ।

গত কয়েকদিনের বিভিন্ন খবরের রিপোর্টে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উঠে এসেছে এমন কিছু তথ্য। Leopard cat, Fishing Cat, Jungle Cat সহ বুনো বিড়াল জাতীয় প্রাণিদের বাঘের বাচ্চা হিসাবে দাবি করে মেরে ফেলা হচ্ছে প্রতিনিয়ত। মানুষ জানেই না, বাঘকে অনেক আগেই তারা মারতে মারতে সংখ্যা এত কমিয়ে দিয়েছে, যে বাংলাদেশে সুন্দরবন আর পার্বত্য চট্টগ্রামের কিছু অংশ ছাড়া বাঘ আর কোথাও রয়েল বেঙ্গল টাইগার এর অস্তিত্ব নেই। এই ছোট বুনো বিড়াল জাতীয় প্রাণিদের শারীরিক গঠন হয়তো কিছুটা বাঘের মতো দেখতে কিন্তু মানুষের শারীরিক কোন ক্ষতি এরা করে না। আগে সারা দেশে প্রাকৃতিক পরিবেশের প্রাচুর্যতা ছিলো, তারা সেখানেই ছিল, সেখান থেকে বন্য পশুপাখি শিকার করে খেতো। মানুষ তো আজ তার সমস্ত জায়গা দখল করে নিয়েছে। এখন আর আগের মতে বন নেই, তাদের সংখ্যাও দিন দিন কমে গিয়েছে একে বারে, যে কয়টি বেঁচে আছে সেগুলোও আজ মানুষের সাথে লড়াই করে হাপিয়ে উঠেছে। তাদের ও তো খাবার দরকার বেঁচে থাকার জন্য, মানুষ তো আর তাদের প্রাকৃতিক খাদ্যের ব্যবস্থার প্রতুলতা রাখেনি পরিবেশে। বন মুরগি, অন্যান্য প্রাণী অনেক আগেই সাবার করেছে। কিন্তু মানুষ জানেই না প্রতিবেশ ব্যবস্থায় তাদের গুরুত্বপূর্ণ অবদানের কথা।

তৃতীয়ত, মানুষের কুসংস্কার, ভ্রান্ত ধারণা, আর বন্যপ্রাণী সম্পর্কে জ্ঞানের অভাব আমাদের ভারতীয় উপমহাদেশের মানুষের মধ্যে বন্যজীব দের নিয়ে বিভিন্ন কুসংস্কার প্রচলিত। যুগে যুগে এই সকল জীবদের সাথে সংঘর্ষ সহ বিভিন্ন কারণে মানুষের বন্যপ্রাণী নিয়ে তৈরী হয়েছে কুসংস্কার এবং ভ্রান্ত ধারণা। যার ফলে মারা পড়ে এই সকল জীব। যেমন মানুষের ভ্রান্ত ধারনায় মারা পড়ে বিভিন্ন প্রজাতির বিষাক্ত ও অবিষাক্ত সাপ। পরিবেশে এরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে, আর শুধুমাত্র আত্মরক্ষার কাজে এরা মানুকে আক্রান্ত করে। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের বন্যপ্রাণীরা মানুষের শখ নামক জিনিসটির প্রতি হার মেনে আজ খাঁচায় বন্দি।

চতুর্থত, আমাদের কাজের সমম্বয়হীনতা। মানুষের কাছে সঠিক বার্তা না পৌঁছানো, টেকসই সংরক্ষণ ব্যবস্থার অভাব। আর জনগণের কাছে খবর গুলো না পৌছানো।

বিজ্ঞানীদের কাজ, গবেষণা বা চিন্তাধারা কতটা পৌছায় সবার মধ্যে এটা গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। সঠিক পরিকল্পনা, জনগণের অংশগ্রহন ছাড়া কখনো সংরক্ষণ সম্ভব নয়।

পরিবেশ, প্রতিবেশ আর জীববৈচিত্র্যের এমন ক্ষতি মানুষ করে ফেলেছে এখন, পরিবেশ আজ জানান দিচ্ছে তার কথা। বিভিন্ন প্রাকৃতিক দূর্যোগের কবলে পড়ছে আজ পুরো বিশ্ব।

সময় এসেছে সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহনের। গত পরশু পুরো বাংলাদেশ দেখেছে ঘূর্ণিঝড় আমফান এর ভয়াল গ্রাস। কেন এখন এত ঘন ঘন প্রকৃতিক দূর্যোগের কবলে পড়ছে আমাদের এই ধরিত্রী । এখানে একটি দেশ নিজ থেকে করা না, দরকার পুরো বিশ্বের সচেতন হওয়া। সকলের একসাথে উদ্যোগ নেয়া।

আমরা প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় শুধু সুন্দরবনকে মনে রাখি, কেন এর আগে কেন ভাবি না এই বনের কথা। এই বন বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা করছে বাংলাদেশকে। এটি প্রাকৃতিক ভাবে তৈরী হওয়া বন, দিনে দিনে আমরা একে ধ্বংসের পথে নিয়ে যাচ্ছি, এই বন না থাকলে কি হবে এটা যেন ফেসবুক স্ট্যাটাসের বাইরে মন থেকে আমরা একটু চিন্তা করি।

আমরা প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় শুধুমাত্র সুন্দরবন কে মনে রাখি, কেন এর আগে কেন ভাবি না এই বনের কথা। এই বন বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা করছে বাংলাদেশ কে। এটি প্রাকৃতিক ভাবে তৈরি হওয়া বন, দিনে দিনে আমরা একে ধ্বংসের পথে নিয়ে যাচ্ছি, এই বন না থাকলে কি হবে এটা যেন ফেসবুক স্ট্যাটাসের বাইরে মন থেকে আমরা একটু চিন্তা করে দেখি। যান্ত্রিকতা দিয়ে আর যাই হোক, মানুষ প্রকৃতির সাথে পেরে উঠবে না। প্রকৃতি তার ভারসাম্য হারিয়ে রুদ্র মূর্তি ধারণ করতে সময় নেবে না।

বিশ্বব্যাপী বর্তমানে হওয়া করোনা ভাইরাস, মানুষ কে করেছে আজ গৃহবন্দী। আর বন্য জীবরা খুঁজে ফিরছে তাদের পরিবেশ। মানুষ যেন তাদের কথা এবার একটু ভাবে। একটু তাদের কথাও চিন্তা করে। পৃথিবীর কি হাল করেছে এটা যেন তাদের মধ্যে একটু হলেও নাড়া দেয়।

ধরিত্রী মাতাকে বাঁচাতে, এই জীব বৈচিত্র্য কে বাঁচাতে আমাদের এগিয়ে আসতে হবে সকলকে। প্রত্যেক মানুষ কে নিজ নিজ অবস্থান থেকে দাড়াতে হবে সংরক্ষণের জন্য।
আর সংরক্ষণের বার্তা পৌছাতে হবে সাধারণ মানুষের মাঝে। তাদের অংশগ্রহণ না থাকলে, যতই কথা বলা হোক এটা সম্ভব নয়। আর তাদের কাছে কথা গুলো পৌঁছাতে হবে তাদের ভাষায়। এর একটি উৎকৃষ্ট উদাহরণ যশোর এর কেশবপুরে হনুমান সংরক্ষণ প্রকল্প। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের শিক্ষক ও বন্যপ্রাণী গবেষক প্রফেসর ড. ফিরোজ জামান ও তার গবেষক দল একটি উৎকৃষ্ট উদাহরণ করে রেখেছে যশোরের হনুমান সংরক্ষণে সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করে। যে মানুষ এক সময় হনুমান হত্যা করতো তারা এই গবেষণা প্রকল্পের পর থেকে নিজ সন্তানের মত স্নেহে হনুমান সংরক্ষণ করছে।

প্রথমত সঠিক পরিকল্পনা প্রয়োজন। পরিকল্পনা ছাড়া সংরক্ষণ সম্ভব নয়। আর এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে হবে সকলকে অন্তর্ভুক্ত করে, বিশেষ করে জন সাধারণ কে।

কারণ তারা ঐ এলাকায় থাকবে আর তাদের সাথেই ঐ এলাকার জীবকুলের সম্পর্ক সব থেকে বেশি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বহুল জনপ্রিয়। এই মাধ্যম গুলোতে জনগণের মধ্যে সচেতনতা তৈরি সম্ভব যার উদাহরণ, Deep Ecology and Snake Rescue Organisation নামক গ্রুপ। এই গ্রুপ থেকে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের অনেক মানুষ আজ সাপ সম্পর্কে সচেতন যেখানে তাদের ছিলো অনেক অজ্ঞতা।

বর্তমানের সংবাদ মাধ্যম গুলো রাখতে পারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা এই জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণে। বিশেষ করে সাংবাদিক বৃন্দ। সঠিক সংবাদ, জীব বৈচিত্র্য সম্পর্কে সঠিক তথ্য উপস্থাপনের মাধ্যমে তারা সংরক্ষণে এগিয়ে আসতে পারেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিভিন্ন উদ্যোগ আসলেই প্রশংসনীয় জীব বৈচিত্র্য সংরক্ষণে। এখন এই উদ্যোগ বাস্তবায়নে দরকার জনগণের অংশগ্রহণ। 

পৃথিবীতে এখন দরকার মানুষ আর অন্যান্য জীব কূলের সহ অবস্থান। সকলকে নিয়ে আমাদের বেঁচে থাকতে হবে। আর সকলেই পরিবেশের জন্য দরকারি। সকালের আছে ধরণী মায়ের বুকে সুস্থ নিশ্বাসে বেঁচে থাকার অধিকার। 

এমন একটি দিন হয়তো আসবে যেদিন মানুষ জীববৈচিত্র্যকে দিয়ে জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ করবে। আর তার সূচনা এখনই হওয়া উচিত।

লেখক:
শিক্ষার্থী, প্রাণিবিদ্যা বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।




DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ
করোনা ভাইরাস লাইভ আপডেট
আক্রান্ত চিকিৎসাধীন সুস্থ মৃত্যু
৩৫৩৮৪৪ ৯০৮৯১ ২৬২৯৫৩ ৫০৪৪
বিস্তারিত
সেন্টমার্টিন থেকে ফিরলেন আটকে পড়া শতাধিক পর্যটক নদীভাঙনে বিলীনের পথে ভোলার বহুতল আশ্রয় কেন্দ্র জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদের উপ-নির্বাচনে ৩ প্রার্থীর মনোনয়ন জমা কুড়িগ্রামে বজ্রপাতে নিহত ১ টেস্ট খেলার স্বপ্নে বিভোর সাইফউদ্দিন বাংলাদেশে বিপুল পরিমাণ সমরাস্ত্র বিক্রি করতে চায় তুরস্ক দরপত্রে মাত্র একটি প্রতিষ্ঠান, বাদ কেনাকাটার প্রস্তাব! গ্রিস-তুরস্ক সংঘাত এড়াতে তোড়জোড় কড়াইল বস্তি থেকে চার বছরের শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার নীলফামারীতে পলাতক আসামি গ্রেফতার হাত-পায়ের রগ কেটে মাকে হত্যা করল ছেলে! মৌলভীবাজারে শীতকালীন করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে আগাম প্রস্তুতিমূলক সভা ডাক বিভাগের মহাপরিচালককে অপসারণের পরামর্শ সংসদীয় কমিটির বগুড়ায় নদী ভাঙনে বিলীন রাস্তাঘাট-স্কুল নীলফামারীতে অপহরণ মামলায় আসামির যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ভারতসহ তিন দেশের নাগরিকদের প্রবেশে সৌদির নিষেধাজ্ঞা মেডিকেল টেস্টের ফি নির্ধারণের অগ্রগতি জানতে চান হাইকোর্ট শ্রীলঙ্কা সিরিজের জন্য চাতক পাখির মতো অপেক্ষা ভুল করে ৪ কোটি টাকা পেলেন দম্পতি স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ধানমন্ডিতে রেস্টুরেন্টকে জরিমানা ইসরাইল ইস্যুতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের তীব্র সমালোচনা কাতারের ইএমবিএ শিক্ষার্থী মাজিদুল নিখোঁজ, সন্ধান চান ভাই দুই সপ্তাহেও উদ্ধার হয়নি নাসিরনগরের স্কুল ছাত্র ধর্ষণের মামলা নিয়ে রাজনীতি করছেন নূর ও সহযোগীরা, দাবি প্রতিপক্ষের পাসপোর্ট-ভিসা জালিয়াতি চক্রের ২ প্রতারক গ্রেফতার বিদ্যালয় ভবন ভেঙে পড়লো নদীতে মহেশপুরে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে যুবকের মৃত্যু বখাটেদের পায়ে ধরে ‘বড় ভাই’ ডেকেও রক্ষা পাননি তরুণী (ভিডিও) দারাজে পাওয়া যাচ্ছে রিয়েলমি সি১৭ বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তরুণী ধর্ষণের অভিযোগ ১০০ ফুট সুড়ঙ্গ খুঁড়ে গায়েব কয়েদি! ভাষা সৈনিক আফরোজ বখত আর নেই সুদানে অজ্ঞাত জ্বরে ৮ জনের মৃত্যু অনুমোদনহীন বিদেশি পারফিউম বিক্রি, ৩ দোকানের জরিমানা ফিনিশিং লাইনে পৌঁছেও হার মানলেন অ্যাথলিট, অবাক বিশ্ব (ভিডিও) যশোরে উপজেলা পরিষদের উপ-নির্বাচনে ৪ প্রার্থীর মনোনয়ন জমা ‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আংশিকভাবে খোলার কোন সুযোগ নেই’ পেসার রাহী করোনা পজিটিভ সৌদিতে বিমানের বিশেষ দুটি ফ্লাইট চলতি মাসেই যশোরে ৮ মাসে সহিংসতার শিকার ১৭১ নারী মৌলভীবাজারে জেলা পরিষদের উপনির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীদের মনোনয়ন জমা লিবিয়ায় হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত: ৪ রুশ ভাড়াটে সেনা নিহত চোখের জলে বার্সাকে বিদায় বললেন সুয়ারেজ ‘পেঁয়াজের বাজার অস্থিতিশীলকারীদের আইনের আওতায় আনা হবে’ মানবপাচারকারী চক্রের মূলহোতা বিজনের সহযোগীসহ গ্রেফতার ৩ রাজবাড়ীতে বিপুল পরিমাণ অস্ত্রসহ ৩৭ ডাকাত গ্রেফতার আম বাগানের পাশে মিলল বৃদ্ধার লাশ নতুন কারা মহাপরিদর্শক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোমিনুর রহমান পুরাতন বাইক কিনতে সতর্কতা মা বললো ভয় দেখাতে, পুলিশ চালালো ১১টি গুলি! মালেকের বাবার নামে প্রতিষ্ঠিত মাজারে যেতেন নায়ক-নায়িকা ইউরোপ সেরার তালিকায় নেই মেসি-রোনালদো! ভারতে ভবনধ্বসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩৭ জাতীয় মহিলা সংস্থার নতুন চেয়ারম্যান চেমন আরা কাছে নেই সৃজিত, মিথিলার আবেগমাখা শুভেচ্ছাবার্তা মুফতি আলাউদ্দিন জিহাদীর মুক্তির দাবিতে হরতালের হুঁশিয়ারি নূরের সংগঠন থেকে সেই মামুনকে অব্যাহতি, তদন্ত কমিটি গঠন অবশেষে আকামার মেয়াদ বাড়ালো সৌদি আরব সৃজিতকে জয়া আহসানের শুভেচ্ছা মাদককাণ্ডে দীপিকা-সারা-শ্রদ্ধা-রাকুলকে সমন জারি পাবনা-৪ উপ-নির্বাচন, বিএনপি প্রার্থীর নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা ভূমি অধিগ্রহণ জটিলতায় স্থবির রংপুর অঞ্চলের সড়ক মহাসড়ক প্রকল্পের কাজ ইডেন শিক্ষার্থীকে নূরের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলাকারী ছাত্রী বলে প্রচার! বাগেরহাটে উপনির্বাচনে ৩ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল চীন-মার্কিন উত্তেজনায় জাতিসংঘের কঠোর সতর্কতা স্কিল ক্যাম্পে যোগ দিলেন ২৪ ক্রিকেটার কোদালের কোপে পিতাকে হত্যার দায়ে পুত্রের যাবজ্জীবন কোটি টাকার অবৈধ কারেন্ট জাল পোড়ালো কোস্ট গার্ড অর্ধশত পুকুরে মনিপুরি ইলিশের চাষ বাঁশির সুরেই ধ্যান চুয়াডাঙ্গার খোকনের আইফেল টাওয়ারে বোমা হামলার হুমকি রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যানসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে দুদকের তিন মামলা ‘মান্নার অনুপস্থিতিতেই সুযোগ করে নিয়েছেন শাকিব খান’ কক্সবাজারে বৈরি আবহাওয়ায় বিপাকে ট্রলার মালিক-জেলেরা সার্জিক্যাল মার্কেটে র‌্যাবের অভিযান 'এরকম দৃশ্য না থাকলে ভিউ হবে না' রাজশাহীতে আরও ৯০ জনের করোনা শনাক্ত এরদোয়ানের সহায়তা চাইলেন মাহমুদ আব্বাস করোনা মোকাবিলায় অন্যদের তুলনায় বাংলাদেশ সফল: তথ্যমন্ত্রী গলায় আটকে গেল জ্যান্ত কৈ মাছ, অতপর... এবার সুশান্তের বিরুদ্ধেই অভিযোগ তুললেন রিয়া শাকিবের সাথে মালদ্বীপ যাচ্ছেন মাহি প্রবাসীদের সমস্যা নিরসনে সৌদি সরকারের দিকে তাকিয়ে বাংলাদেশ যা করলে পেটের মেদ কমবে ভারতে নিত্যপণ্যের দাম বাড়লেও সরকার নীরব হৃতিককে পেতে ৮০ কোটি রুপি প্রস্তাব ব্যালট যাবে সকালে, রাতে ভোটের সুযোগ নেই: সিইসি কর দিলো ফেসবুক কক্সবাজার থেকে বিমানে রাজশাহী গেল ইয়াবা মুসলিম বলে হোটেল থেকে তাড়িয়ে দেয়া হল শিক্ষকদের! ‘মালেকের বিরুদ্ধে সব অভিযোগের দায় তার ব্যক্তিগত’ পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে জিম্বাবুয়ে গোপালগঞ্জে উপনির্বাচনে ৩ প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল কুড়িগ্রামে চাকিরপশার নদী রক্ষায় সংবাদ সম্মেলন গোপালগঞ্জে মাদ্রাসা তৈরিতে বাধা, প্রতিবাদে মানববন্ধন 'ঘাড় মটকে' চালককে হত্যা করে অটোরিকশা ছিনতাই হাতিয়ায় টানা বর্ষণ-জোয়ারে ২০ গ্রাম প্লাবিত মালয়েশিয়ায় আনোয়ারের নেতৃত্বে নতুন সরকার? সঠিক সময়ে সঠিক ভ্যাকসিন পেতে চাই: স্বাস্থ্যমন্ত্রী রুশ ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার দায় নেবে মস্কো
আরও সংবাদ...
ভিসা ছাড়াই বাংলাদেশি নাগরিকরা ভ্রমণ করতে পারবেন যে ৪১ দেশ ভারত থেকে লন্ডন যেতে বাস সার্ভিস চালু ৩০ মিনিটে এনআইডির অসুন্দর ছবি বদলে ফেলুন বাংলাদেশকে ১৬ আনাই ফাঁকি দিয়েছে ভারত! ডাচ্-বাংলা-আইবিএলসহ ৫ ব্যাংকে লেনদেন সীমিত করা হয়েছে ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলমকে নোটিশ মোবাইল কিনতে শিক্ষার্থীদের ১০ হাজার টাকা করে ঋণ দেয়ার সিদ্ধান্ত বাইকার ফারহানা ‘নববধূ’ নয়, বিয়ে তিন বছর আগে, রয়েছে সন্তানও ‘দুই আর দুই পাঁচ’ বলছেন শাহেদ ডাল-আলু ভর্তা খেয়ে মাকে টাকা পাঠান সৌদি প্রবাসী কিশোর (ভিডিও) দেখা মিলল বিশ্বের সবচেয়ে বড় নীল তিমির (ভিডিও) ওয়াইফাই ইন্টারনেটের গতি বাড়ানোর কৌশল আল বুখারি বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর হলেন ড. ইউনূস দু'বোনের মারামারিতে দেরিতে ছাড়ল বিমান (ভিডিও) শিক্ষার্থীদের এক হাজার করে টাকা দেবে সরকার চেয়ার ছেড়ে পালালেন জায়েদ খান! মিয়া খলিফাকে খুঁজছে মার্কিন সেনারা (ভিডিও) সুশান্তের মৃত্যু: ‘আওয়াজ আসলেই তালা ভাঙা বন্ধ করে দিও’ (ভিডিও) মসজিদের একটি এসিও বিস্ফোরিত হয়নি এক সপ্তাহ পরেই বদলে যাচ্ছে ফেসবুক, বাধ্যতামূলক নতুন ডিজাইন ঘুষের ৫০ হাজার টাকা না দেয়ায় ঝরল ১৮ প্রাণ, শঙ্কা আরো! গ্রিসের ছয়টি যুদ্ধবিমানকে তুরস্কের ধাওয়া (ভিডিও) খোঁজ মিলেছে অভিনেতা শুভর মেসি-বার্সা ইস্যুতে নাটকীয় মোড়! পৃথিবীর সবচেয়ে বিষাক্ত সাপের দেখা মিলল সমুদ্রে জয়কে সাতদিনের আলটিমেটাম, নিঃশর্ত ক্ষমা না চাইলে মামলা এবার ভারতের প্রদেশের মালিকানা দাবি করল চীন মেয়েসহ দেশ ছাড়লেন মিথিলা গভীর রাতে বাসভবনে ঢুকে ইউএনওকে হাতুড়ি পেটা জাদুকরি পরিবর্তন ঘটে সকালে কুসুম গরম লেবু পানিতে দেশে পাঁচ রকম করোনা ভাইরাসের সন্ধান চাঁদে পড়ছে মরচে! বাংলাদেশি ভ্যাকসিন কবে আসবে জানালেন আসিফ মাহমুদ লাইভ কনসার্টে টাকা ছুঁড়লেন দর্শক, উচিৎ শিক্ষা দিলেন অরিজিৎ (ভিডিও) দেশে বিমান তৈরি শুরু হবে ২০২১ সালে (ভিডিও) তুরস্ককে চারদিকে ঘিরে ফেলছে ফ্রান্স? পছন্দের রঙ বলে দেয় ব্যক্তিত্ব কেমন আড়াইহাজারে এশিয়ার সবচেয়ে বড় বিদেশি বিনিয়োগ! মোবাইল কিনতে ‘ঋণ’ দিচ্ছে রবি ইসরায়েল-আমিরাতের চুক্তি, মুখ খুললো সৌদি শোক দিবসে তারকাদের আচরণে সমালোচনার ঝড় সময় টিভিতে তিন ক্যাটাগরিতে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি সুশান্ত হত্যায় নাম জড়াল ভারতীয় খেলোয়াড়ের! নতুন নিয়মে ট্রেনের টিকিট-ভ্রমণ করবেন যেভাবে রিয়াকে জড়িয়ে ধরা মহেশ ভাটের ভিডিও ভাইরাল দেশে আরো একটি গাধার জন্ম সুশান্তের মৃত্যু: সন্দীপের সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট প্রকাশ তুরস্কের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় গ্যাস ক্ষেত্রের সন্ধান এসি বিস্ফোরণের কারণ ও রক্ষা পেতে যা করবেন প্রাথমিক বিদ্যালয় খোলার প্রস্তুতির নির্দেশ
আরও সংবাদ...


মেনে চলি

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  EnglishLive TV DMCA.com Protection Status
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
উপরে