মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
আশিকুর রহমান সমী
আপডেট
২২-০৫-২০২০, ১৬:০০

মানুষের জন্যই জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ প্রয়োজন

মানুষের জন্যই জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ প্রয়োজন
আমাদের পৃথিবী বিভিন্ন প্রজাতির, রঙের, বর্ণের, আকৃতির জীব কূল নিয়ে গঠিত। এদের মধ্যে আছে যেমন প্রজাতিগত বৈচিত্র্য, ঠিক তেমন আছে বাসস্থানগত বৈচিত্র্য, আবার সব থেকে মজার ব্যাপার জীনগত বৈচিত্র্যও পরিলক্ষিত হয় এ জীব কূলের মধ্যে। আর এই সব কিছু নিয়ে তৈরি জীববৈচিত্র্য বা Biodiversity.

সৃষ্টির শুরু থেকে ধাপে ধাপে বিভিন্ন ধরনের পরিবেশ বিভিন্ন বৈচিত্র্যের প্রাণীরা মানিয়ে নিয়েছে তাদের বৈচিত্র্য দিয়ে আর তার ফলে ধরিত্রী মাতা আজ বৈচিত্র্যময়।

চারপাশের জীব দের নিয়ে আমাদের জীবন। আর এই জীবেরা পরিবেশের গুরুত্বপূর্ণ উপাদান আর এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। এই পরিবেশ প্রকৃতির মধ্যে রয়েছে ভারসাম্য, রয়েছে সুষ্ঠু নিয়ম। পরিবেশের একে অপরের সাথে গভীর ভাবে জড়িয়ে। একটু কোথাও সমস্যা হলে পুরো নিয়মে ভারসাম্য নষ্ট হয়। প্রকৃতি বিভিন্ন দূর্যোগের মাধ্যমে সেটি জানান দিতে ভোলে না।

বর্তমানে আমরা মানুষ সমাজ নিজেদের চাওয়ার পরিধি টা বাড়িয়ে দিয়েছি। পৃথিবীটা আমাদের একার হয়ে গেছে। শুধু আমাদের মানব সমাজকে টিকে থাকতে হবে। বাকিদের কথা আমরা ভুলেই গেছি। আমরা ভুলে গেছি আমাদের চারপাশের পরিবেশটা আমাদের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ।


প্রথমত, আমরা তাদের আবাসস্থল নষ্ট করে ফেলছি। আর আমরা যে স্থানে বসবাস করছি তা একসময় ঐ জীব সবার ছিল। আমরা আজ যে বনের গাছ উজার করে বাড়ি বানাচ্ছি নিজেদের জন্য, হয়তো ওই গাছে পেঁচার বাড়ি ছিল। সে হয়তো ইঁদুর খেয়ে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার পাশাপাশি কৃষির অর্থনৈতিক উপকার করতো। ওই গাছে হয়তো বক/মাছরাঙার বিশ্রামের জায়গা ছিল, যারা জলাশয়ের অসুস্থ মাছ খেয়ে মাছের সংক্রমক ব্যাধি দূর করতো, গাছটিতে হয়তো সাপ আশ্রয় নিতো, যা ক্ষতিকর পোকামাকড় খেত বা ইঁদুর খেয়ে ফসল রক্ষা করতো। গাছ কাটার মাধ্যমে ওই সকল স্থানে শুধু গাছের অভাব হলো তাই নয়, এই গাছে বসবাসকারী সকল প্রাণী হারিয়ে গেল। যার কারণে, ক্ষতিকর প্রভাব পড়লো পরিবেশে, কৃষিতে, কৃষি অর্থনীতিতে। তখন এই ইঁদুর দমনে, পোকা মাকড় দমনে মানুষ নিল বিভিন্ন ব্যবস্থা যেমন ধরুন বিভিন্ন কেমিক্যাল আর বিষ। যা সেই মানুষ খাবে আর ধীরে ধীরে মানুষ মৃত্যু বরণ করবে।
জলচর পাখিরা অসুস্থ মাছ ধরে না খেলে পুরো জলাশয়ের মাছের মধ্যে দেখা দিতো বিভিন্ন সংক্রমক রোগ বালাই।

বিভিন্ন গবেষণা দেখায়, একটি পেঁচা সারাজীবনে ২০ লক্ষ টাকার ফসলের উপকার করে শুধু ইঁদুর খেয়ে।

দ্বিতীয়ত, বন্যজীব আর মানুষের মধ্যে প্রায় তৈরী হচ্ছে সংঘর্ষ। মানুষ শুধু তার আবাসস্থল নষ্ট করে শান্তিতে নেই, অসহায় বন্যজীবদের উপর অজ্ঞতা, শিক্ষার অভাব এমন কি মানুষ মজার ছলেও হত্যা করছে জীব কূলকে। একটি প্রাণের মূল্য তাদের কাছে খুবই তুচ্ছ।


গত কয়েকদিনের বিভিন্ন খবরের রিপোর্টে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে উঠে এসেছে এমন কিছু তথ্য। Leopard cat, Fishing Cat, Jungle Cat সহ বুনো বিড়াল জাতীয় প্রাণিদের বাঘের বাচ্চা হিসাবে দাবি করে মেরে ফেলা হচ্ছে প্রতিনিয়ত। মানুষ জানেই না, বাঘকে অনেক আগেই তারা মারতে মারতে সংখ্যা এত কমিয়ে দিয়েছে, যে বাংলাদেশে সুন্দরবন আর পার্বত্য চট্টগ্রামের কিছু অংশ ছাড়া বাঘ আর কোথাও রয়েল বেঙ্গল টাইগার এর অস্তিত্ব নেই। এই ছোট বুনো বিড়াল জাতীয় প্রাণিদের শারীরিক গঠন হয়তো কিছুটা বাঘের মতো দেখতে কিন্তু মানুষের শারীরিক কোন ক্ষতি এরা করে না। আগে সারা দেশে প্রাকৃতিক পরিবেশের প্রাচুর্যতা ছিলো, তারা সেখানেই ছিল, সেখান থেকে বন্য পশুপাখি শিকার করে খেতো। মানুষ তো আজ তার সমস্ত জায়গা দখল করে নিয়েছে। এখন আর আগের মতে বন নেই, তাদের সংখ্যাও দিন দিন কমে গিয়েছে একে বারে, যে কয়টি বেঁচে আছে সেগুলোও আজ মানুষের সাথে লড়াই করে হাপিয়ে উঠেছে। তাদের ও তো খাবার দরকার বেঁচে থাকার জন্য, মানুষ তো আর তাদের প্রাকৃতিক খাদ্যের ব্যবস্থার প্রতুলতা রাখেনি পরিবেশে। বন মুরগি, অন্যান্য প্রাণী অনেক আগেই সাবার করেছে। কিন্তু মানুষ জানেই না প্রতিবেশ ব্যবস্থায় তাদের গুরুত্বপূর্ণ অবদানের কথা।

তৃতীয়ত, মানুষের কুসংস্কার, ভ্রান্ত ধারণা, আর বন্যপ্রাণী সম্পর্কে জ্ঞানের অভাব আমাদের ভারতীয় উপমহাদেশের মানুষের মধ্যে বন্যজীব দের নিয়ে বিভিন্ন কুসংস্কার প্রচলিত। যুগে যুগে এই সকল জীবদের সাথে সংঘর্ষ সহ বিভিন্ন কারণে মানুষের বন্যপ্রাণী নিয়ে তৈরী হয়েছে কুসংস্কার এবং ভ্রান্ত ধারণা। যার ফলে মারা পড়ে এই সকল জীব। যেমন মানুষের ভ্রান্ত ধারনায় মারা পড়ে বিভিন্ন প্রজাতির বিষাক্ত ও অবিষাক্ত সাপ। পরিবেশে এরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে, আর শুধুমাত্র আত্মরক্ষার কাজে এরা মানুকে আক্রান্ত করে। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের বন্যপ্রাণীরা মানুষের শখ নামক জিনিসটির প্রতি হার মেনে আজ খাঁচায় বন্দি।

চতুর্থত, আমাদের কাজের সমম্বয়হীনতা। মানুষের কাছে সঠিক বার্তা না পৌঁছানো, টেকসই সংরক্ষণ ব্যবস্থার অভাব। আর জনগণের কাছে খবর গুলো না পৌছানো।

বিজ্ঞানীদের কাজ, গবেষণা বা চিন্তাধারা কতটা পৌছায় সবার মধ্যে এটা গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। সঠিক পরিকল্পনা, জনগণের অংশগ্রহন ছাড়া কখনো সংরক্ষণ সম্ভব নয়।

পরিবেশ, প্রতিবেশ আর জীববৈচিত্র্যের এমন ক্ষতি মানুষ করে ফেলেছে এখন, পরিবেশ আজ জানান দিচ্ছে তার কথা। বিভিন্ন প্রাকৃতিক দূর্যোগের কবলে পড়ছে আজ পুরো বিশ্ব।

সময় এসেছে সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহনের। গত পরশু পুরো বাংলাদেশ দেখেছে ঘূর্ণিঝড় আমফান এর ভয়াল গ্রাস। কেন এখন এত ঘন ঘন প্রকৃতিক দূর্যোগের কবলে পড়ছে আমাদের এই ধরিত্রী । এখানে একটি দেশ নিজ থেকে করা না, দরকার পুরো বিশ্বের সচেতন হওয়া। সকলের একসাথে উদ্যোগ নেয়া।

আমরা প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় শুধু সুন্দরবনকে মনে রাখি, কেন এর আগে কেন ভাবি না এই বনের কথা। এই বন বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা করছে বাংলাদেশকে। এটি প্রাকৃতিক ভাবে তৈরী হওয়া বন, দিনে দিনে আমরা একে ধ্বংসের পথে নিয়ে যাচ্ছি, এই বন না থাকলে কি হবে এটা যেন ফেসবুক স্ট্যাটাসের বাইরে মন থেকে আমরা একটু চিন্তা করি।

আমরা প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় শুধুমাত্র সুন্দরবন কে মনে রাখি, কেন এর আগে কেন ভাবি না এই বনের কথা। এই বন বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে রক্ষা করছে বাংলাদেশ কে। এটি প্রাকৃতিক ভাবে তৈরি হওয়া বন, দিনে দিনে আমরা একে ধ্বংসের পথে নিয়ে যাচ্ছি, এই বন না থাকলে কি হবে এটা যেন ফেসবুক স্ট্যাটাসের বাইরে মন থেকে আমরা একটু চিন্তা করে দেখি। যান্ত্রিকতা দিয়ে আর যাই হোক, মানুষ প্রকৃতির সাথে পেরে উঠবে না। প্রকৃতি তার ভারসাম্য হারিয়ে রুদ্র মূর্তি ধারণ করতে সময় নেবে না।

বিশ্বব্যাপী বর্তমানে হওয়া করোনা ভাইরাস, মানুষ কে করেছে আজ গৃহবন্দী। আর বন্য জীবরা খুঁজে ফিরছে তাদের পরিবেশ। মানুষ যেন তাদের কথা এবার একটু ভাবে। একটু তাদের কথাও চিন্তা করে। পৃথিবীর কি হাল করেছে এটা যেন তাদের মধ্যে একটু হলেও নাড়া দেয়।

ধরিত্রী মাতাকে বাঁচাতে, এই জীব বৈচিত্র্য কে বাঁচাতে আমাদের এগিয়ে আসতে হবে সকলকে। প্রত্যেক মানুষ কে নিজ নিজ অবস্থান থেকে দাড়াতে হবে সংরক্ষণের জন্য।
আর সংরক্ষণের বার্তা পৌছাতে হবে সাধারণ মানুষের মাঝে। তাদের অংশগ্রহণ না থাকলে, যতই কথা বলা হোক এটা সম্ভব নয়। আর তাদের কাছে কথা গুলো পৌঁছাতে হবে তাদের ভাষায়। এর একটি উৎকৃষ্ট উদাহরণ যশোর এর কেশবপুরে হনুমান সংরক্ষণ প্রকল্প। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের শিক্ষক ও বন্যপ্রাণী গবেষক প্রফেসর ড. ফিরোজ জামান ও তার গবেষক দল একটি উৎকৃষ্ট উদাহরণ করে রেখেছে যশোরের হনুমান সংরক্ষণে সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা তৈরি করে। যে মানুষ এক সময় হনুমান হত্যা করতো তারা এই গবেষণা প্রকল্পের পর থেকে নিজ সন্তানের মত স্নেহে হনুমান সংরক্ষণ করছে।

প্রথমত সঠিক পরিকল্পনা প্রয়োজন। পরিকল্পনা ছাড়া সংরক্ষণ সম্ভব নয়। আর এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে হবে সকলকে অন্তর্ভুক্ত করে, বিশেষ করে জন সাধারণ কে।

কারণ তারা ঐ এলাকায় থাকবে আর তাদের সাথেই ঐ এলাকার জীবকুলের সম্পর্ক সব থেকে বেশি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এখন বহুল জনপ্রিয়। এই মাধ্যম গুলোতে জনগণের মধ্যে সচেতনতা তৈরি সম্ভব যার উদাহরণ, Deep Ecology and Snake Rescue Organisation নামক গ্রুপ। এই গ্রুপ থেকে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের অনেক মানুষ আজ সাপ সম্পর্কে সচেতন যেখানে তাদের ছিলো অনেক অজ্ঞতা।

বর্তমানের সংবাদ মাধ্যম গুলো রাখতে পারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা এই জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণে। বিশেষ করে সাংবাদিক বৃন্দ। সঠিক সংবাদ, জীব বৈচিত্র্য সম্পর্কে সঠিক তথ্য উপস্থাপনের মাধ্যমে তারা সংরক্ষণে এগিয়ে আসতে পারেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিভিন্ন উদ্যোগ আসলেই প্রশংসনীয় জীব বৈচিত্র্য সংরক্ষণে। এখন এই উদ্যোগ বাস্তবায়নে দরকার জনগণের অংশগ্রহণ। 

পৃথিবীতে এখন দরকার মানুষ আর অন্যান্য জীব কূলের সহ অবস্থান। সকলকে নিয়ে আমাদের বেঁচে থাকতে হবে। আর সকলেই পরিবেশের জন্য দরকারি। সকালের আছে ধরণী মায়ের বুকে সুস্থ নিশ্বাসে বেঁচে থাকার অধিকার। 

এমন একটি দিন হয়তো আসবে যেদিন মানুষ জীববৈচিত্র্যকে দিয়ে জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ করবে। আর তার সূচনা এখনই হওয়া উচিত।

লেখক:
শিক্ষার্থী, প্রাণিবিদ্যা বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।





DMCA.com Protection Status

এই বিভাগের সকল সংবাদ
করোনা ভাইরাস লাইভ আপডেট
আক্রান্ত চিকিৎসাধীন সুস্থ মৃত্যু কোয়া:
৪৪৬০৮ ৩৪৬২৩ ৯৩৭৫ ৬১০ ৪২৫২৯
বিস্তারিত
জুন পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিলের বিলম্ব ফি দিতে হবে না বোর্ড সেরা কুমিল্লা জিলা স্কুল,পাসে এগিয়ে মেয়েরা বেনাপোলে ৩৮ কেজি গাঁজা জব্দ পাসের হারে খুলনা বিভাগে শীর্ষে সাতক্ষীরা যেসব শর্তে মসজিদ খুলেছে সৌদি সরকার চুয়াডাঙ্গায় নদীতে ডুবে শিশুর মৃত্যু পঙ্গপালের হানায় বিপর্যস্ত ভারত-পাকিস্তান পঙ্গপালও আয়ের উৎস! পরিস্থিতি অনুকূল না হলে এইচএসসি পরীক্ষা নেয়া সম্ভব না: শিক্ষামন্ত্রী কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার ঘটনায় উত্তাল লস অ্যাঞ্জেলস, কারফিউ জারি আইসিইউ না পেয়ে শ্বাসকষ্টে চবি শিক্ষকের মৃত্যু করোনাজয়ীদের জন্য ‘দুঃসংবাদ’ সারা দেশে পাসের হার ৮২.৮৭ শতাংশ ট্রেনে সুরক্ষার দেখা মিললেও লঞ্চে নেই ছিটেফোঁটাও লকডাউন নিয়ে দোটানায় ব্রিটিশ সরকার ‘চাচীর সঙ্গে পরকীয়া’, চাচার সেপটিক ট্যাঙ্কে ভাতিজার মরদেহ যশোর বোর্ডে পাসের হার ৮৭ দশমিক ৩১ শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তায় ধাপে ধাপে খোলা হবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান: প্রধানমন্ত্রী এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ যশোরে 'বন্দুকযুদ্ধে' মাদক ব্যবসায়ী নিহত করোনা: কর্মীদের কাজে ফেরা নিয়ে যে নির্দেশনা আইএলও’র বরিশাল-ঢাকা লঞ্চ চলাচল শুরু এন্টিবডি টেস্টে আগ্রহ নেই ইতালিতে বিক্ষোভ থামাতে সেনারা দারুণ কাজ করছে: ট্রাম্প লিসবনে বেড়েছে করোনা রোগী, আক্রান্ত প্রবাসী বাংলাদেশিরাও বিশ্বের অর্থনৈতিক মন্দার প্রভাব আয়ারল্যান্ডেও উপজেলা চেয়ারম্যানের বাড়িতে ডাকাতি, ১০০ ভরি স্বর্ণ লুট তেহরানে খুলল অফিস-ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, আতঙ্কে প্রবাসীরা একদিনে ৪ হাজার মৃত্যু, আক্রান্ত সোয়া লাখ খুলছে সৌদির নববীসহ ৯০ হাজার মসজিদ পার্টিতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত বেলজিয়ামের রাজকুমার মুরগির খামার থেকেও ভাইরাস ছড়াতে পারে, দাবি বিজ্ঞানীর বাজেটে আবাসন খাতে নেই নতুন প্রস্তাবনা করোনায় মৃতদের পাশে ‘আল রশিদ ফাউন্ডেশন’ ‘ভাই, আমাদের খুব মারে, ৯ দিন খেতে দেয় না’ প্রেমের জট খুলবে সিংহের, শরীর খারাপ তুলার বেড়িবাঁধ সংস্কারে সেনাবাহিনী, স্বস্তি খুলনাবাসীর প্রসব কমেছে হাসপাতালে, বেড়েছে মাতৃ ও শিশু মৃত্যুর হার অনলাইনে ট্রেনের টিকিট, বাড়তে পারে কালোবাজারিদের দৌরাত্ম্য প্রথম প্রাইভেট রকেটের যাত্রা মহাকাশে এসএসসির ফল পেতে প্রি-রেজিস্ট্রেশন করবেন যেভাবে ৬৬ দিন ছুটি শেষে খুলছে অফিস-ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এসএসসি’র ফল প্রকাশ সকাল ১১টায় দুই মাস পর যাত্রী নিয়ে ঢাকায় ঢুকল ট্রেন বাইরে মাস্ক না পরলে 'আইনি ব্যবস্থা' ৬১ লাশ দাফন করা সেই কাউন্সিলর দিশেহারা হয়ে ছুটছেন স্ত্রীকে নিয়ে ইন্টার মিলান ছেড়ে সেইন্ট জার্মেইতে মাওরো ইকার্দি ২০ জুন থেকেই মাঠে গড়াচ্ছে সিরি'আ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ বাতিলের পক্ষে সাঙ্গাকারা নিয়ম মেনে মাঠে ফিরতে চায় ইংল্যান্ড জুলাইয়ে ইংল্যান্ডে খেলতে স্বীকৃতি জানিয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বেতনের অংশ বিসিবি স্টাফদের দিলেন ভেট্টোরি ফেসবুকে বিচারপতিকে নিয়ে কটূক্তি করায় যুবক গ্রেফতার চুয়াডাঙ্গায় এক দিনেই সুস্থ হলেন ২৭ করোনা রোগী নোয়াখালীতে করোনায় মৃত্যুর তথ্যে নিয়ে গরমিল সিলেটে আরো ১১ পুলিশ সদস্য করোনা আক্রান্ত রাতের আঁধারে হত্যা করা হলো চার হাজার মুরগী একদিনে দুইবার শপথ পড়লেন হাইকোর্টের ১৮ বিচারপতি বাড়ছে না বিমানের ভাড়া, চলবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে জিয়াউর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকীতে নেতাকর্মীদের নগদ অর্থ বিতরণ যে তিন উপায়ে পাওয়া যাবে এসএসসির ফল পুরোদমে চালু হচ্ছে সরকারি হাসপাতালের বহির্বিভাগ বাসে এক যাত্রীকে কিনতে হবে দুই টিকিট কাস্তে দিয়ে মেয়ের গলা বিচ্ছিন্ন করে দিলেন পাষণ্ড বাবা করোনা উপসর্গ নিয়ে আ.লীগ নেতার মৃত্যু, তার আগে হৃদয়স্পর্শী ফেসবুক পোস্ট প্রথমবারের মত ভিডিও কনফারেন্সে শপথ নিলেন হাইকোর্টের বিচারপতিরা নাতনিকে ধর্ষণের অভিযোগে নানা গ্রেফতার ৮০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধির সুপারিশ অযৌক্তিক: ক্যাব 'পরিবহন ভাড়া বাড়ানো যাত্রীদের সঙ্গে প্রহসন' আম্পানে ভেঙেছে উত্তরা গণভবনের ঘড়ি, নজর নেই কারো সিরাজগঞ্জে চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা, শিক্ষক গ্রেপ্তার সিলেটে মেছোবাঘ-শেয়াল হত্যার ঘটনায় মামলা দেশে ফেরা হল না, লিবিয়াতেই ২৬ বাংলাদেশির দাফন কুয়েতে কারফিউ বাড়ল তিন সপ্তাহ কাতারে ক্রমেই বাড়ছে করোনা সংক্রমণ ডাক্তার আসছে শুনে বাড়ি থেকে পালালেন করোনা রোগী আমিরাতে নতুন আক্রান্ত ৬৩৮ সাবেক সংসদ সদস্য মুহাদ্দিস আবু সাঈদের ইন্তেকাল ৬১ লাশ দাফন করা করোনাযোদ্ধা কাউন্সিলর খোরশেদ নিজেই আক্রান্ত দাঙ্গার আগুনে জ্বলছে যুক্তরাষ্ট্র বেতন চাওয়ায় বুদ্ধি প্রতিবন্ধীকে গরম খুন্তি দিয়ে অমানবিক নির্যাতন করোনায় অসহায় মধ্যবিত্তদের পাশে স্পিক আউট করোনায় সফলতার উদাহরণ গ্রিস করোনায় চাঁদপুরে বাড়ছে আক্রান্ত-মৃতের সংখ্যা আল আকসা মসজিদের গ্র্যান্ড খতিবকে আটক করেছে ইসরায়েল কিভাবে বাংলাদেশি অভিবাসীদের গন্তব্য হয়ে উঠলো লিবিয়া? ভারতে লকডাউন বাড়ল একমাস কোম্পানীগঞ্জে বজ্রপাতে প্রাণ গেল যুবকের করোনায় মৃত বিএনপি নেতার লাশ দাফন করলো ছাত্রলীগ কক্সবাজারে উদ্বেগজনকভাবে বাড়ছে করোনা রোগী নারায়ণগঞ্জে ১৩ মামলার আসামী দুর্ধর্ষ ডাকাত অস্ত্রসহ গ্রেফতার সুইডেনে করোনা সংক্রমণ বেড়েই চলছে মা ইঁদুরের বীরত্বের কাছে পরাজিত হলো বিষধর সাপ (ভিডিও) পশ্চিমবঙ্গে সন্দেহভাজন জঙ্গি গ্রেফতারে পুলিশ-এলাকাবাসীর ভিন্নমত নওগাঁয় পুলিশ-চিকিৎসকসহ করোনায় নতুন আক্রান্ত ১৩ আকাশে উড়লো সম্পূর্ণ বৈদ্যুতিক বিমান যুক্তরাষ্ট্রে বিক্ষোভে গুলিতে নিহত ১, কারফিউ জারি গোপালগঞ্জে আরো ১৫ জনের করোনা শনাক্ত নামাজের জন্য গির্জা খুলে দিল জার্মানি ট্রেনের ভাড়া বাড়বে না, টিকিট অনলাইনে: রেলমন্ত্রী
আরও সংবাদ...
করোনার প্রাদুর্ভাব অব্যাহত থাকলে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত স্কুল-কলেজ বন্ধ 'লকডাউনে' যাচ্ছে সূর্য, সতর্কতা জারি নাসার করোনায় আক্রান্ত ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী অসুস্থ বাচ্চাকে নিয়ে হাসপাতালে হাজির বিড়াল মঙ্গলবার থেকে ইফতার বিক্রি হবে রেস্তোরাঁগুলোতে দেশের সব মসজিদ খুলে দেয়া হচ্ছে যে ওষুধে ‘করোনায় সুস্থের হার বাড়ছে’ বাংলাদেশে চুরি দেখে ফেলায় এলোপাথাড়ি কোপ, দুই বোনকে ধর্ষণের পর চারজনকেই জবাই ভারতকে নেপালের 'হুমকি', সীমান্তে সেনা মোতায়েন শনাক্ত মৃত্যুতে নতুন রেকর্ড আজ চিকিৎসক পরিবারে ১৮ জন করোনায় আক্রান্ত, বাড়িতে স্থানীয়দের ইট নিক্ষেপ দেশে প্লাজমা থেরাপিতে একদিনেই বিস্ময়কর সাফল্য ৩৬ দিন রোজা হবে ২০৩০ সালে! ৯ বছরের সংসার ভাঙল অভিনেতা অপূর্ব-অদিতির জনপ্রিয় অভিনেতা ইরফান খান মারা গেছেন লকডাউনে বাবাকে রোগী সাজিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে বিয়ে! দাজ্জালের সঙ্গে ইহুদিদের যোগাযোগ শুরু! শরীরে লালচে র‌্যাশ, করোনার নতুন উপসর্গ! কোনো হাসপাতাল নিল না, কুর্মিটোলায় ভর্তির পর অতিরিক্ত সচিবের মৃত্যু ভুল নম্বরে টাকা চলে গেলে ফেরত পাবেন যেভাবে সহকর্মীরাই হত্যা করেন গাজীপুরের সেই প্রকৌশলীকে 'পদত্যাগ করলেন' বিদ্যানন্দের প্রতিষ্ঠাতা করোনা: এক বাড়িতেই ৩১ লাশ! শাশুড়ির জন্য ১৫ বছর পর নাচলেন মিথিলা! (ভিডিও) দেশে সর্বোচ্চ আক্রান্তের দিনে ১৪ জনের মৃত্যু চারদিনেই সারবে করোনা, গবেষণায় সাফল্যের দাবি বাংলাদেশের আজও শনাক্ত সহস্রাধিক, মৃত্যু ২১ জনের আম্পানের তাণ্ডব শুরু, সক্রিয় হতে পারে শনিবার সাধারণ ছুটি আরও বাড়ছে ১৫ জুলাই করোনামুক্ত হবে বাংলাদেশ! এসএসসি’র ফল-এইচএসসি পরীক্ষার বিষয়ে যা বললেন শিক্ষামন্ত্রী আম্পানের পর আসছে ঘূর্ণিঝড় 'নিসর্গ' একদিনে সর্বোচ্চ আক্রান্ত, মৃত্যু ১৪ জনের আক্রান্ত ছাড়াল ১৮ হাজার, মৃত্যু বেড়ে ২৮৩ নতুন আরো ৭০৬ জন করোনায় আক্রান্ত একদিনে রেকর্ড সংখ্যক আক্রান্ত, মৃত্যু বেড়ে ১৮৬ একদিনে বাংলাদেশে করোনা শনাক্তের রেকর্ড ৭৮৬ দেশে করোনা ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল হতে পারে জুনে স্ত্রী-মেয়ের কান্না শুনেও এগিয়ে এল না কেউ, সিঁড়িতেই পড়ে রইল লাশ একদিনে আক্রান্ত ৯৬৯, মোট মৃত্যু ২৫০ একদিনে সর্বাধিক রোগী শনাক্ত, মৃত্যু বেড়ে ১৫৫ রেকর্ড শনাক্তের দিন ২০ জনের মৃত্যু করোনায় মৃতের সংখ্যা ৩০০ ছাড়াল বাংলাদেশে, নতুন আক্রান্ত ৯৩০ একদিনে নতুন আক্রান্ত ৫৬৪, মৃত্যু বেড়ে ১৬৮ আক্রান্ত ছাড়াল ১০ হাজার, মৃত্যু বেড়ে ১৮২ ঢাকায় যেসব মার্কেট খোলা থাকবে কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই চরম আকার ধারণ করবে ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ করোনা সন্দেহে ছাদ থেকে লাফিয়ে কনস্টেবলের আত্মহত্যা মধ্যরাতে করোনা রোগীকে মারধর করে তাড়িয়ে দিল বাড়িওয়ালা করোনার মধ্যে টেকনাফে দেখা মিলল ‘পঙ্গপাল’ প্রজাতির পতঙ্গ
আরও সংবাদ...


মেনে চলি

Contact Address

Nasir Trade Centre, Level-9,
89, Bir Uttam CR Dutta Road, Dhaka 1205, Bangladesh
Email: somoydigitalsomoynews.tv

Find us on

  Live TVEnglish DMCA.com Protection Status
মোবাইল অ্যাপস ডাউনলোড করুন
উপরে